চার বাংলা মন্দিরের ইতিকথা !

Video Description

চার বাংলা মন্দিরের ইতিকথা ! চার বাংলা মন্দিরের ইতিকথা সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানিনা, আসুন একটু শোনা যাক- আজিমগঞ্জের ৩ কিলোমিটার উত্তরে বরনগর গ্রাম, এখানকার প্রধান আকর্ষণ -চার বাংলা মন্দির। আনুমানিক ১৭৫৫ সালে রানী ভবানী এই মন্দির প্রতিষ্ঠা করেন। চার কোনায় চারটি দোতলা ঘর বানিয়ে মন্দির প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। প্রিতিটি মন্দিরের উচ্চতা সাড়ে ৫ মিটার । প্রতি মন্দিরের সামনে ৩ টা করে দরজা রয়েছে প্রবেশ করার জন্য। এবং ৩ টে করে শিব লিঙ্গ রয়েছে মন্দিরে, অপূর্ব টেরাকোটার কাজ লক্ষ্য করা যায় এই মন্দিরে, ঐতিহাসিক নানা গল্পকথা তার মধ্যে ফুটে ওঠে । এই ধরণের মন্দির পশ্চিমবঙ্গের আর কোথাও দেখতে পাওয়া যায়না। রানী ভবানী ছিলেন একজন খুব ভালো মনের মানুষ, যেমন ভালো ভাবে রাজত্ব সামলেছেন তেমনি তার প্রজাদের দুঃখ কষ্ট সব বুঝে চলতেন তিনি। হাওড়া থেকে কাশি পর্যন্ত রাস্তা তিনিই নির্মাণ করেছিলেন। রানী ভবানীর বাসস্থান ছিল বরানগর তাই এখানে তিনি এই মন্দির প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তাই এখনো এটি একটি বিশিষ্ট দর্শনীয় স্থান। শিব রাত্রিতে এখানে অনেক মানুষের সমাগম হয়.

Join more than 1 million learners

On Spark.Live, you can learn from Top Trainers right from the comfort of your home, on Live Video. Discover Live Interactive Learning, now.