দঙ্গল বেঁধে মঙ্গলদীপে

Video Description

যা রে যা মঙ্গলে যা কথায় বলে বাঙালীর পায়ের তলায় সরষে। বছর ভর ভ্রমণ পিপাসু বাঙালী কাছে-দূরের কোনও জায়গাই ঘুরে দেখতে একটুও কার্পণ্য করে না। যত ছোটো জায়গাই হোক না কেন তা খুঁজে বের করতে বাঙালীর জুড়ি মেলা ভার। আর এভাবেই বাঙালীর গন্তব্যের লিস্টে নবতম সংযোজন হল মঙ্গলদীপ। রকেটে নয়, মঙ্গলদীপ যেতে গেলে শিয়ালদা-রানাঘাট শাখার ট্রেনে উঠে নামতে হবে পায়রাডাঙা স্টেশনে। এরপর টোটো ধরে পৌঁছতে হবে গঙ্গার ঘাটে। সড়কপথে গেলে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক ধরে পৌঁছে যেতে পারেন পায়রাডাঙার কাছের গঙ্গা পাড়ে। এবার গঙ্গা পেরোলেই পৌঁছে যাবেন মঙ্গলদীপ। পায়রাডাঙা থেকে মঙ্গলদীপের দূরত্ব প্রায় তিন কিলোমিটার। আর এই পথ অতিক্রম করতে খরচ হয় মোটামুটি ৪৫ টাকার মত। নদীয়ার পায়রাডাঙার কাছে অবস্থিত এই মঙ্গলদীপ ইকো ট্যুরিজম পার্ক এখন পিকনিক প্রিয় বাঙালীর কাছে হট ফেবারিট। যদিও এই মঙ্গলদীপে কিন্তু কোনও জনবসতি নেই। কেবল ঘোরার জন্যই এখানে জন সমাগম ঘটে। মঙ্গলে দঙ্গল প্রায় দুই হাজার বিঘা জমির উপর গড়ে উঠেছে এই মঙ্গলদীপ। মঙ্গলদীপের অন্যতম আকর্ষণ এখানকার দুই নদীর মিলন স্থল। মঙ্গলদীপের একদিকে রয়েছে চূর্ণী নদী তো অন্যদিকে রয়েছে গঙ্গা। রাজ্য সরকারের সহায়তায় পায়রাডাঙা গ্রাম পঞ্চায়েতের উদ্যোগে সরকারী অর্থ সাহায্যে সুন্দর করে সাজিয়ে তোলা হয়েছে এই মঙ্গলদীপ ইকো ট্যুরিজম পার্ক। এখানে রয়েছে শিশুদের জন্য পার্ক, থাকার জায়গা, কেনাকাটার জন্য বিভিন্ন দোকান। উন্মুক্ত আকাশের নীচে দল বেঁধে পিকনিক করাই হোক অথবা মনের মানুষটির সাথে একান্তে সময় কাটানোই হোক, মঙ্গলদীপ হতে পারে যে কোনও মানুষেরই আদর্শ চটজলদি ভ্রমণের জায়গা। মঙ্গলদীপে রয়েছে মহিলা পরিচালিত ক্যান্টিন বা খাওয়ার জায়গা। তাই সঙ্গে করে খাবার-দাবার নিয়ে না আসলেও আপনার রসনা তৃপ্তিতে কোনও বাধা পড়বে না। মঙ্গল গ্রহে জল আছে কিনা জানা না থাকলেও এই মঙ্গলদীপে কিন্তু পর্যাপ্ত জলের সুব্যবস্থা রয়েছে। ছায়া সুনিবিড় শান্তির নীড় এই মঙ্গলদীপে রয়েছে নানা রকম ফুল গাছ ও সবুজের সমারোহ। রয়েছে প্রিয় মানুষটিকে নিয়ে গঙ্গা বক্ষে ছোট্ট ডিঙি নৌকা বিহারের সুযোগ। সবমিলিয়ে নদীয়ার মঙ্গলদীপ এখন বাঙালীর হট ফেবারিট ডেস্টিনেশন।

Join more than 1 million learners

On Spark.Live, you can learn from Top Trainers right from the comfort of your home, on Live Video. Discover Live Interactive Learning, now.