পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে ব্যক্তিগত সমস্যা কতটা শেয়ার করবেন?

Video Description

পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে ব্যক্তিগত সমস্যা কতটা শেয়ার করবেন? আমরা কোনো সমস্যায় পড়লে মন তার সমাধান খুঁজতে লেগে পড়ে , সহজ সরল সমস্যার সমাধান তো আমরা করেই ফেলি নিজেদের মধ্যে কিন্তু যখুন সমস্যা কিছুটা জটিল হয় তখন প্রয়োজন হয় সঙ্গীর, যার সঙ্গে আলোচনা করে নিজেকে আমরা ওই কঠিন জায়গা থেকে বার করে আন্তে পারি খুব সহজেই। কিন্তু কিছু কিছু সমস্যা এতটাই বেক্তিগত এতটাই জটিল হয় যে সেগুলো বন্ধুবান্ধব বা পরিবার এর কারোর সঙ্গেই ঠিক ভাগ করে নেওয়া যায়না ,এটাই মনে হয় যদি অন্য কেও আপনার এই দুর্বলতাকে নিয়ে সুযোগ নেয় তাই আমরা কুঁকড়ে থাকি এবং মনের উপর এই কারণে নানান চাপ সৃষ্টি হতে থাকে। কিন্তু কিছু সীমারেখা টেনে নিলেই আপনি হালকা হতে পারেন এবং মনও আপনার ফুরফুরে থাকতে পারে। প্রথমে বুজতে হবে সমস্যাটি কতখানি গভীর ,যদি নিজে সেটা কাটিয়ে উঠতে পারেন তাহলে খামোখা অন্য কারোর সাহায্য না নেওয়া বাঞ্চনীয়। পরিবারের মধ্যে যার কাছে নিজেকে সব থেকে বেশি হালকা করা যায় সে হলো -আমাদের মা। সব থেকে বিস্বস্ত এবং নির্ভরযোগ্য জায়গা হলো এটাই, আর যদি নিজের বেক্তিগত সমস্যা কোনো বন্ধুর সঙ্গে শেয়ার করতে চান তাহলে বেঁছে নিন এমন একজন বন্ধু কে যে নিজে খুব বেশি ইমোশনাল নন, কারণ যারা বেশি ইমোশনাল হন তারা আবেগ দিয়ে পরামর্শ দিতে চেষ্টা করেন যা হয়তো অতটাও কার্যকরী হয়না। যদি সমস্যার সমাধান পেয়ে যান, তাহলে চেষ্টা করবেন এরপর থেকে এইসকল সমস্যা নিজের সমাধান করে ফেলার। বারবার করে কারোর সাহায্য নিলে একসময় সেও কিছুটা বিরক্তি অনুভব করতেই পারে।আর যদি সমস্যার সমাধান পাওয়ার জায়গা কিছুতেই খুঁজে না পান তাহলে একজন ডাক্তার এর পরামর্শ নিন তাতে আপনি অনেক সহজে সব কিছু বলে নিজেকে হালকা করতে পারবেন।

Join more than 1 million learners

On Spark.Live, you can learn from Top Trainers right from the comfort of your home, on Live Video. Discover Live Interactive Learning, now.