যোগ সম্পর্কে কিছু বিশেষ প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তী(Yoga teacher Apurba Chakraborty has answered some special questions about yoga)

বর্তমানে সারা পৃথিবী জুড়ে যোগের প্রচুর চল রয়েছে যার সাথে প্রকৃত যোগের কোনও সম্পর্ক নেই। এই সুপ্রাচীন পদ্ধতিটি সম্পর্কে অনেক ভুল ধারনা দীর্ঘদিন ধরে মানুষের মধ্যে প্রচারিত হচ্ছে। সেকারণে Spark.Live এর সকল পাঠকের জন্যে, স্বনামধন্য যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তী কিছু বিশেষ প্রশ্নের উপযুক্ত উত্তর দিয়েছেন। যার ফলে আপনারা অনেক কৌতূহলের অবসান করতে পারবেন খুব সহজেই।

প্রশ্ন ১) যোগ কি ?

উত্তর- প্রাচীন ভারতীয় মুনি ঋষিদের মতে, যোগ হল ,”জীব আত্মার সাথে পরম আত্মার মিলন”। যোগ শব্দটি সংস্কৃত ‘যুজ’ ধাতু থেকে উৎপন্ন যার অর্থ হল -দুটি সত্তার মিলন। বা একত্রিত করা । যেমন আত্মার সাথে পরমাত্মার মিলন, জীবের সাথে প্রকৃতির মিলন ,শরীরের সাথে মনের মিলন । তাকেই বলে যোগ। অন্য ভাবে বলা যায়, চিন্তাধারা ও কাজকর্মের মধ্যে সমন্বয়ে সাধনের মাধ্যমে দেহ-মনকে একসূত্রে বেঁধে জীবনকে সুন্দর করে গড়ে তোলাই হল ‘যোগ’ ।

প্রশ্ন ২) হঠ যোগ কি ?

উত্তর- প্রাচীন শাস্ত্র শিব-সংহিতায় যোগকে প্রধানত চারটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে- মন্ত্র যোগ, হঠ যোগ, লয় যোগ ও রাজ যোগ। এই চারটি যোগেরই পরম লক্ষই হল জীবআত্মার সাথে পরমাত্মার মিলনের পথকে তরান্বিত করা।
‘হঠ’ শব্দটি ‘হ’ এবং ‘ঠ’ এই দুটি অক্ষরের সমষ্টি । ‘হ’ এর অর্থ সূর্য , ‘ঠ’ অর্থে চন্দ্র; দেহস্থ সূর্য ও চন্দ্র নাড়ির মিলনই হঠযোগ। মানুষকে সুস্থ ও দীর্ঘজীবী করাই হঠযোগের উদেশ্য।

আরও পড়ুন-ডিপ্রেশন দূর করার জন্য যোগব্যায়ামের কার্যকারিতা (Effectiveness of yoga to overcome depression)

প্রশ্ন ৩) বডি ফ্লেক্সিবল না হলে কি যোগব্যায়াম করা যায়?

উত্তর- বডি ফ্লেক্সিবল করার জন্যই যোগব্যায়াম করতে হয়। শরীর বিভিন্ন কারণের জন্য স্টীভ হয়ে যেতে পারে। আর সেই স্টীভনেস যদি সময় মতো কাটানো না যায়, তাহলে পরবর্তী সময়ে সেটাই বড় কোন রোগ বা সমস্যার সৃষ্টি করে। যেমন: ফ্রোজেন সোল্ডার বা কাঁধ লক হয়ে যাওয়া। এই সমস্যাটি বর্তমানে প্রায় প্রতি ঘরে দেখা যায়। এর ফলে রোগী তার কাঁধ ও হাতের জয়েন্ট ঠিক মত ঘোরাতে পারে না, খুব ব্যথার অনুভব হয়। হাত আকাশের দিকে তুলতে পারেন না। স্বাভাবিক কাজ কর্ম ঠিক ভাবে করতে পারেন না। এটি হওয়ার অন্যতম কারণ হল দীর্ঘদিন ধরে থাকা শরীরের স্টীভনেস। যা যোগব্যায়ামের দ্বারা সম্পূর্ণ ভাবে নির্মূল করা যায়।

প্রশ্ন ৪) যোগ অনুশীলন শুরু করার আগে কি ওজন হ্রাস করা দরকার?

উত্তর- না। যোগ অনুশীলন করার আগে কোনো ওজন হ্রাস করার প্রয়োজন নেই। কারণ শরীরচর্চার মধ্যে একমাত্র যোগ হল এমন এক প্রক্রিয়া যা মেদ যুক্ত বা মেদ ছাড়া সকল প্রকারের মানুষই এটা করতে পারেন। নিয়মিত অভ্যাসের ফলে ধীরে ধীরে অতিরিক্ত ওজন হ্রাস হয়ে যাবে। শুধু যোগের উপর ভরসা রাখতে হবে।

প্রশ্ন ৫) যোগব্যায়াম স্ট্রেচিং বা অন্যান্য ধরণের ফিটনেস থেকে কীভাবে আলাদা?

উত্তর- যোগব্যায়াম অন্যান্য ধরণের ফিটনেস থেকে অনেক অংশে আলাদা। যোগব্যায়াম করলে শুধু শারীরিক কায়েকশ্রম হয় তাই নয় শরীরের অন্তর্নিহিত যে সব অর্গান আছে যেমনঃ- লিভার, যকৃত, পাকস্থলীর এই সব অঙ্গের উপর ও প্রভাব পড়ে যার ফলে সেই সব অঙ্গ গুলি সুস্থ ও সবল হয়, এবং বিভিন্ন রোগ মুক্তি ঘটে
সর্বোপরি , যোগ করলে শরীরের সাথে মনের ও উন্নতি হয় ,মন শান্ত হয়, সর্বদা যে দুঃশ্চিন্তা থাকে মানুষের মনে তার থেকে মনকে নিয়ন্ত্রন করা যায়। মনকে আরও একাগ্র করে তোলা যায়, আর আমরা সবাই জানি একাগ্র মনই জীবনের সফলতার মূল চাবি কাঠি।

আরও পড়ুন-যোগাসন করার সঠিক নিয়মগুলি জানেন কি? (Do you know the correct rules of yoga?)

যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তী

দীর্ঘ ১০ বছরের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তী, তিনি একজন যোগ ও ওয়েলনেস পরামর্শদাতা বা প্রশিক্ষক। যোগ ও বিজ্ঞান নিয়ে তিনি স্নাতকোত্তর করেন জৈন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। ২০১৫ সালে তিনি ডিপ্লোমা করেন প্রতিযোগিতামূলক এবং স্পোর্টস যোগ নিয়ে এবং পি.জি ডিপ্লোমা করেন স্ট্রেস ম্যানেজমেন্টে NSOU থেকে, ২০১৭ সালে ভারত সরকার থেকে ডিপিটি এবং ডট করেন। বিহার স্কুল অফ যোগ মুঙ্গারের সাথে তিনি যুক্ত। বর্তমানে যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তী যুক্ত হয়েছেন Spark.Live এ, আপনারা সকলেই নিয়মিত তার সঙ্গে অনলাইন কন্সালটেশনের মাধ্যমে যোগ শিক্ষা গ্রহণ করে নিজেদেরকে সুস্থ্য ও সুন্দর করে তুলতে পারবেন।

Spark.Live এ যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তীর সঙ্গে অনলাইন কন্সালটেশনের জন্যে লিংকটিতে ক্লিক করুন-https://spark.live/consult/certificate-course-in-yoga-with-apurba-chakraborty-bangla

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।