পরকীয়ার মাত্রা বাড়ছে কেন ভারতে? (Why are extramarital affairs increasing in India day by day? )

  • by

এই মুহূর্তে যে গতির সাথে ভারতে বাড়ছে পরকীয়া করার মাত্রা, তা কোনো মহামারী ব্যাধির থেকে কম নয়। আর যদি আপনি ভাবেন যে শুধু পুরুষরাই তাদের স্ত্রীকে ঠকাচ্ছেন, তাহলে সেটা ভুল ভাবছেন। কারণ মহিলারাও এই দৌড়ে পিছিয়ে নেই একেবারে। ২০১৯ সালের একটি সার্ভে অনুসারে, দশ জন মহিলার মধ্যে সাত জন মহিলাই তার স্বামীকে প্রতারণা করেন। কিন্তু এখন ভাবার বিষয়টি হলো- এটির এতো বাড়বাড়ন্ত কেন?

সার্ভে কি বলছে-

মনে করা হচ্ছে, ২০১৮ সালে পরকীয়াতে মহিলাদের পক্ষে আইন পাশ হওয়ার পর মহিলাদের মধ্যে এর প্রবণতা অনেকটাই বেড়েছে। আর এগুলিতে ইন্ধন যোগাচ্ছে কিছু ডেটিং সাইট। প্রায় ৭৭ শতাংশ ভারতীয় মহিলারা ডেটিং সাইটে লগ ইন করছেন, তাদের বিবাহিত জীবনের একঘেয়েমি কাটানোর জন্য। আবার কেউ কেউ স্বামী পরকীয়ায় ব্যস্ত, তাই তাকে উচিত শিক্ষা দিতেও শরণাপন্ন হচ্ছেন সাইটগুলির। অন্যদিকে মূলত নিজেদের সময় কাটানোর জন্য, ৪৫ শতাংশ ভারতীয় মহিলা সিরিয়াস ভাবে ডেটিং অ্যাপে নিজেদের নাম লেখাচ্ছেন।

কেন ডেটিং অ্যাপকে বেছে নেওয়া হয়-

কেন বলুন তো ডেটিং অ্যাপ্কে বেছে নেওয়া হয়েছে? কারণ এই অ্যাপ গুলির অত্যাধুনিক ব্যবস্থা, সাথে আপনার আইডেন্টিটি প্রকাশ না করার দায়িত্ব সবটাই থাকে। তাই এই ক্ষেত্রে মহিলাদের বেশি পছন্দ কিন্তু ডেটিং অ্যাপ।

কারণ-

কারণ খুঁজতে গেলে বলতেই হবে, পার্টনারের অতিরিক্ত কর্ম ব্যস্ততা, সেক্স লাইফ সুখের না হওয়া, বা স্বামী স্ত্রীয়ের মধ্যে মনো মালিন্য লেগেই থাকা, অবহেলা, বনি বোনা না হওয়া, সবটাই কিন্তু মহিলাদের পরকীয়ার নেপথ্যে কারণ হয়ে উঠতে পারে।

তাই বলবো আগে থাকতেই সমস্যা এড়াতে পার্টনারের সাথে কথা বলুন খোলাখুলি। তাহলেই কিন্তু সমস্যা কমবে। পরকীয়া কে অপশন না করে, নিজের সম্পর্ককেই দিন নতুন মোড়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।