করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে কি একেবারেই করবেন না? (What you should not do for avoiding Coronavirus ?)

যেদিকেই এখন তাকানো হচ্ছে, সেদিকেই করোনা. এই ভাইরাসের আতঙ্কে কাঁপছে সারা বিশ্ব. আর ভারতেও যেখানে হু হু করে বেড়েই চলেছে এর প্রকোপ, তাতে সকল নাগরিকের কপালেই ভাঁজ পড়ছে. করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে কি কি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে, তা নিয়ে অনেকবারই কথা হল. এইবার বলবো কি কি করবেন না. মানে যে কাজগুলি করলে করোনার প্রকোপ পড়ার সম্ভাবনা বেশি সেগুলি নিয়ে আজকের আলোচনা-

১. অপরিষ্কার-

কোনো মতেই অপরিষ্কার থাকাটা এই সময় কাম্য নয়. কারণ অপরিষ্কার থাকা মানেই রোগ জীবাণুর প্রভাব বিস্তার হওয়া শরীরে. তাই যতটা সম্ভব নিজেকে পরিষ্কার রাখুন. সব সময় কাছে রাখুন স্যানিটাইজার. এমনকি ঘর বিশুদ্ধ রাখতে, স্যানিটাইজ স্প্রেই করতে পারেন. এছাড়া বাইরে থাকলে, যতবারই কিছু খাবেন বা চোখে মুখে হাত দেবেন স্যানিটাইজার টা হাতে দিয়ে দিন.

২. স্নান-

কোনো মতেই স্নান স্কিপ করবেন না. এখন গরমটা পড়ার মুখে. তাও বলবো স্নান টা সারুন একটু উষ্ণ জলে. কারণ উষ্ণ জল আমাদের শরীরে নানা জীবাণু শেষ করে দেয়.

৩. পার্টি অভয়ড করুন-

এই মুহূর্তে যদি কোনো অনুষ্ঠান বাড়ি যাওয়ার নিমন্ত্রণ থেকে থাকে, তাহলে বলবো এখন সেখানে না যাওয়াটাই ভালো. কারণ সংক্রমণ যেভাবে ছড়াচ্ছে, তাতে বেশি মানুষের ভিড়ে যেতে বারণ করছে স্বাস্থ্যবিভাগ. কারণ কার মধ্যে এই ভাইরাসটি প্রভাব ফেলেছে, তা সাধারণ মানুষ মানে আমি আপনি দেখে বুঝতে পারবো না.

৪. দূরে থাকুন-

যদি দেখতে পান সামনে কেউ কাশছে বা সর্দির জেরে নাক ফোঁচ ফোঁচ করছে বা হাঁচি দিচ্ছে তার থেকে একটা দূরত্ব বজায় রাখুন. হতেই পারে তার এই ভাইরাস ঘটিত কিছু হয়নি, আবার হতেও পারে, সে এই ভাইরাসে আক্রান্ত. তাই একটা দূরত্ব বজায় রাখা দরকার.

৫. বাইরের খাবার-

না বাইরের খাবার থেকে এই ভাইরাস ছড়াচ্ছে, তা একেবারেই বলছি না. তবে আমাদের এই সময় যেটা সবচাইতে বড় বিষয় সেটি হল আমাদের ইমুইনি সিস্টেমকে ভালো রাখা. তাই বাইরের খাবার এই কিছুদিন অভয়ড করাই শ্রেয়.

৬. ঘুরতে যাওয়া-

এছাড়াও এই সময়ে ছুড়তে যাওয়ার কোনো প্লেন থাকলে, বিশেষ কোনো জনবহুল স্থানে, বা বিদেশে, না যাওয়াটাই ভালো. কিছুদিনের জন্য পিছিয়ে দিন. যতদিন না পরিস্থিতি আয়ত্তে আসছে. কারণ যেচে ভাইরাসকে আমন্ত্রণ জানানোর তো কোনো মানে হয় না.

রুমাল ব্যবহার করুন যদি মাস্ক না পড়ছেন. বাইরে কাউকে অসুস্থ দেখলে নাকে মুখে রুমাল চাপা দিতে পারেন. কিছুটা সাবধানতা রাখা এই যা. নিজে সুস্থ থাকুন, আর সকলকে সাউথ রাখতে এই নিয়মগুলি মেনে চলতে বলুন.

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।