সুস্থ থাকতে কি খাবেন, কতটা খাবেন এই লক ডাউনে ?জেনে নিন একজন অভিজ্ঞ ডায়েটিশিয়ানের কাছে (What should you eat to stay healthy during lockdown)

এখন লকডাউনের আওতায় আমরা সকলেই গৃহবন্দী হয়ে পরে আছি. আর এই সময়েই যেন বেশি ইচ্ছা করে এটা খাই ওটা খাই. আগে তো কাজের চাপে, মাঝেমধ্যে খেতেই ভুলে যেতাম, কিন্তু এখন প্রতিটি পর্বের মানে সকাল, দুপুর, বিকাল, সন্ধ্যা আর রাত্রির খাবার সবটাই আমাদের সর্বক্ষণের চিন্তা. আবার অনেকেই তো নিত্যদিন দারুন দারুন খাবার ট্রাই করছেন বাড়িতে. এক কথায়, সোশ্যাল মিডিয়াতে রীতিমতো ঝড় উঠছে বাড়ির বানানো খাবারের. কিন্তু একটা জিনিস লক্ষ্য করে দেখেছেন? সব কয়টি রান্নাই কিন্তু তেল ঝাল মশলা যুক্ত. মানে একেবারে চটপটে রান্না. একটি রান্নাও কিন্তু সুস্বাথ্যের গুণসম্পন্ন নয়.

এইবার আপনার মাথায় প্রশ্ন আসতে পারে, তাহলে এই মুহূর্তে কি খাওয়া উচিত? পাশের বাড়ির কাকিমা বা টালিগঞ্জের মাসির কাছে আপনি নানা টিপস পেতেই পারেন, কিন্তু সেটি কতটা ঠিক, সেই নিয়ে একটা সংশয় আসতেই পারে মনে. তো এই জন্য আমাদের প্রয়োজন একজন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া. বিশেষজ্ঞ মানে একজন বিশিষ্ট ডায়েটিশিয়ানের পরামর্শ নেওয়া.

বাইরে তো প্রচুর ডায়েটিশিয়ানরা রয়েছেন, কিন্তু আপনার সবার আগে লক্ষ্য থাকা উচিত অভিজ্ঞ ডায়েটিশিয়ানের পরামর্শ নেওয়া. Spark.Live -এর সাথে যুক্ত হয়েছেন, ১৪ বছর ধরে ডায়েট সংক্রান্ত বিষয়ে সকলকে সাহায্য করে যাওয়া স্বনামধন্যা ডায়েটিশিয়ান অগ্নিমিত্রা মুখার্জি.

ডায়েটিশিয়ান অগ্নিমিত্রা মুখার্জির সাথে সরাসারি কথা বলার জন্য এই লিংকে ক্লিক করুন- https://spark.live/consult/secret-to-healthy-body-with-dietician-agnimitra-mukherjee/

অগ্নিমিত্রা মুখার্জি একজন ক্লিনিক্যাল ডায়েটিশিয়ান এবং ইন্ডিয়ান ডায়টেটিক আইসোসিয়েশনের লাইফ মেম্বার। এছাড়াও তিনি একজন ডায়াবেটিক এডুকেটার। এই ক্ষেত্রটিতে তিনি বিগত ১৪ বছর ধরে কাজ করে আসছেন দক্ষতার সাথে। আমার তার কাছে কিছু প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করেছিলাম, চলুন জেনে নেওয়া যাক সেই সকল প্রশ্নের উত্তরগুলি.

প্রশ্ন-১. এই লকডাউনের পিরিয়ডে আমাদের কি কি ধরণে ডায়েট চার্ট অনুসরণ করা উচিত?

উত্তর:-প্রথমত আমরা এখন লোক ডাউনে আছি কোভিড -১৯ এর মতো অতিমারীর কারণে. টিভি খুললেই কিন্তু দেখা যাচ্ছে, সকলকে ইমিউনো মানে স্বাস্থ্যের প্রতিরক্ষামূলক খাবার খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন সকলে. সেক্ষেত্রে আমি বলতে পারি কিছু নিয়ম মেনে চলতে-

  • না খেয়ে থাকবেন না, খালি পেটে আমরা অনেক বেশি রোগকে আমাদের শরীরে আহ্বান করি.
  • অল্প অল্প করে বাড়ে বাড়ে খাওয়া উচিত.
  • আমরা সুষম খাদ্য গ্রহণ করব.
  • বেশ কিছু নিউট্রেট যেমন ভিটামিন-ই, ভিটামিন-বি, ভিটামিন-সি, পটাশিয়াম, জিঙ্ক, আয়রন এইগুলি আমাদের ইমিউনি বুস্ট করতে সাহায্য করে. কাজেই আমাদের খাবারে যাতে এই জিনিসগুলি থাকে, সে দিকে আমরা নজর দেব.

প্রশ্ন-২. ভিটামিন ই ও সি পাবো কোন খাবার গুলিতে?

উত্তর- মূলত ভাটামিন -সি পাওয়া যায় যেকোন লেবু জাতীয় খাবারে. তাই আমাদের চেষ্টা করা উচিত দিনের খাবারে একটা লেবু রাখতে.
ভিটামিন-ই পাওয়া যায় যে কোনো ধরণের বাদামে.

প্রশ্ন-৩. ভিটামিন -ডি আমাদের শরীরে কতটা প্রয়োজনীয়?

উত্তর- ভিটামিন -ডি- আমরা মূলত তিনটি উপায়ে আমাদের শরীরে যোগান দিতে পারি
প্রথমত- ডিম্, মাশরুম, ডেয়ারি প্রোডাক্ট এই সব থেকে আমরা ভিটামিন ডি পেতে পারি
দ্বিতীয়ত- সূর্যের রশ্মি আমাদের শরীরে ভিটামিন ডি -এর যোগান ঘটাতে পারে.
তৃতীয়ত- কিছু সাপ্লিমেন্ট বা মেডিসিনের মাধ্যমে আমরা শরীরে ভিটামিন ডি পেতে পারি.

প্রশ্ন-৪. কি কি ধরণের খাবার খাওয়া উচিত?

উত্তর- নর্মাল খাওয়ার খেতে আমি সবসময় পরামর্শ দেব. দিনে অত্যন্ত একটা করে ডিম্ খান. দুপুর ও রাতের খাবারে রাখুন মাছ, আর প্রতিদিন একবাটি করে ডালও খায়া খুব জরুরী. আর তার সাথেই আমাদের শরীরকে হাইড্রেট রাখতে আর প্রতিটি খাদ্য উপাদান যাতে ঠিকঠাক কাজ করে, তার জন্য পর্যাপ্ত পরিমানে জল খেতে হবে.

এই ছিল বিশিষ্ট ডায়েটিশিয়ানের এখনকার ডায়েট সংক্রান্ত কিছু কথা. আপনার যদি ডায়েট সংক্রান্ত যেমন- প্রায়ই বদহজম হয়, বা খাবার হজম হতে চায় না, বা রক্তচাপ বেড়েই চলছে- এমন সমস্যাগুলি থেকে থাকে, তো অবশ্যই কনসাল্ট করুন অগ্নিমিত্রার সাথে. না তার জন্য আপনাকে তার চেম্বারে যেতে হবে না. বাড়িতে বসেই অনলাইনে আপনি তার সাথে সরাসরি যুক্ত হতে পারেন, এবং নিজের স্বাস্থ্যকে ভালো করে তুলতে পারেন. তো ভালো ভাবে সুস্থ ভাবে বাঁচার জন্য আজই অনলাইন সেশন নিন ডায়েটিশিয়ান অগ্নিমিত্রা মুখার্জির.

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।