এই যোগ ব্যায়ামগুলো করলে, করোনা, শরীরে থাবা বসাতে পারবে না ( These yogas will help to boost your immunity against Corona virus)

প্রতিদিন যোগব্যায়াম করার ফলে শরীরের নানা ধরনের রোগ সারতে পারে। তবে কোন ব্যায়ামে কোন রোগ সারতে পারে, সেইটা অনেকেই জানেন না। সঠিক পদ্ধতিতে যোগব্যায়াম এবং যোগাসন না করতে পারলে হিতে বিপরীতও হতে পারে। ফলে যোগব্যায়াম থেকে উপকার পেতে হলে আগে জানতে হবে যোগব্যায়ামের সঠিক পদ্ধতি। গরম শেষের পথে। ওয়েদার চেঞ্জের কারনে এইসময়, সর্দি কাশিতে আক্রান্ত হওয়া খুবই বিরক্তিকর একটি ব্যাপার।আর বিশেষ করে যেভাবে করণের প্রকোপে চারিদিকে মানুষের কপালে ভাঁজ পড়তে শুরু করেছে, সেইস ওই, সামান্য সর্দি কাশির সমস্যাও সরিয়ে ফেলুন যোগব্যায়ামের মাধ্যমে.

সর্দিতে আক্রান্ত হলে এর প্রতিকারও আছে অনেক, তবে যোগব্যায়ামের মাধ্যমে সারতে পারে সর্দি কাশি। এমন কিছু যোগব্যায়াম আছে, যা সহজেই এই রোগের প্রতিরোধক হিসেবে ভালো কাজ করে।

১)পদ্মাআসন :-

সর্দিকাশি কমাতে প্রতিদিন পদ্মাআসন করুন। কিভাবে করবেন? খোলা জায়গায় পদ্মাসনে বসে জোরে জোরে শ্বাস ভেতরে নিন এবং ছাড়ুন। লক্ষ রাখবেন, আপনি যখন শ্বাস নিচ্ছেন তখন আপনার পেট সম্পূর্ণ সমান হয়ে যাচ্ছে এবং যখন শ্বাস ছাড়বেন তখন পেট বাইরের দিকে ফুলে উঠবে।

পদ্মাসনে বসে ১০ থেকে ১২ বার এভাবে দীর্ঘশ্বাসের যোগব্যায়ামটি করলে, বন্ধ ণাক খুলে যাবে। এই যোগব্যায়াম কর্মক্ষমতা বাড়ায এবং রক্ত পরিষ্কার করে। আনুলম-ভিলম- ডান হাতের মধ্যমা এবং তর্জনীকে ভাঁজ করে বৃদ্ধাঙ্গুল দিয়ে ডান নাক চেপে ধরুন। এরপর বাম নাক দিয়ে জোরে শ্বাস নিন। ৮-১০ বার শ্বাস নিন এবং ছাড়ুন। এরপর ডান হাতের বাকি দুই আঙ্গুল (অনামিকা এবং কনিষ্ঠা) দিয়ে বাম নাক চেপে ধরুন এবং এখন ডান নাক দিয়ে শ্বাস নিন। আবারো ৮-১০ বার শ্বাস নিন এবং ছাড়ুন। এ সময় বাম হাতটিকে টান কারে বাম পায়ের হাঁটুন ওপর রেখে নিন। অনুলম-ভিলমের সময়ও পদ্মাসনে বসাটাই ভালো।

২)কপালভাতি ব্যায়াম :-

এই যোগব্যায়াম দেহের তাপমাত্রাকে স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে এবং শরীরকে সতেজ রাখে। রক্ত চলাচলকেও স্বাভাবিক রাখবে। কপালভাতি ডান হতের বৃদ্ধাঙ্গুল দিয়ে ডান নাক চেপে ধরুন এবং বাম নাক দিয়ে দ্রুত ছোট ছোট নিঃশ্বাস নিন। ২০ থেকে ২৫ বার শ্বাস-প্রশ্বাসের এই ব্যায়ামটি করুন। এরপর আবার বাম হাতের বৃদ্ধাঙ্গুল দিয়ে বাম নাক চেপে ধরে ডান নাক দিয়ে একইভাবে ব্যায়ামটি করুন। দ্রুত ছোট ছোট শ্বাস গ্রহণ এবং ছাড়ার ফলে নাকের ভেতর একধরনে উষ্ণতার সৃষ্টি হবে। যা নাকের ভেতরে সর্দির ভাইরাসগুলোকে মেরে ফেলবে।

৩) ওঁম ধ্যান :-

এটিও এক ধরণের ব্যায়াম. এটি স্পষ্টভাবে উচ্চারণের মাধ্যমে, আমাদের শরীরের গ্ল্যান্ডগুলি ভালো ভাবে কাজ করতে শুরু করে. এই ব্যায়াম সর্দি দমনে সবচেয়ে বেশি কার্যকরী। এই যোগব্যায়মটি দেহের রক্ত সঞ্চালনকেও সচল রাখে। এই যোগব্যায়ামগুলো সর্দি-কাশি-জ্বর থেকে মুক্তি দেবে। কিন্তু এর কার্যকরী ফল পেতে হলে ভোরবেলা খোলা জায়গায় পদ্মাসনে বসে এই যোগব্যায়াম করুন।

এই মুহূর্তে আমাদের প্রয়োজন যতটা সম্ভব আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলা. আর তার জন্য প্রতিদিন সকালে উঠে এই ব্যায়ামগুলি আপনার শরীরকে অনেক বেশি সুস্থ্য করে তুলতে সাহায্য করবে.

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।