বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবসে রইলো কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য (There was some essential information on World Photography Day)

আজ ‘বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবস’, বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে বর্তমানে ভারতেও এই দিবসটি পালিত হচ্ছে। ১৮৩৯ সাল থেকে প্রতি বছর ১৯ আগস্ট দিনটি ‘বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবস’ হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। কোনো কিছু লিখে বা বলে যতো সহজে প্রকাশ করা যায়, ছবি দিয়ে মনের গভীর অভিব্যক্তি আরও ভালো করে বোঝানো যায়।

গবেষণা বলছে মানুষের মনে কথার থেকে ছবি অনেক বেশি প্রভাব ফেলে। আর ফটোগ্রাফি হলো মানুষের একধরনের প্যাসন বা শখ। বিশ্ব আলোকচিত্র দিবস বা ‘ওয়ার্ল্ড ফটোগ্রাফি ডে’ তে সবাই ফটোগ্রাফির প্রতি নিজের সব ভালোবাসা ও নেশা প্রকাশ করে দিনটি আনন্দ উৎসবের মধ্য দিয়ে উদযাপন করে থাকে।

ভারতেও পালিত হয় বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবস

বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে ভারতেও এই দিবসটি পালিত হচ্ছে। আমরা হয়তো ভাবছি এই বছরটা সেভাবে কোনো আনন্দ উৎসব করে পালন করার মতো সুযোগ থাকছেনা, কিন্তু ফটোগ্রাফি এমনই এক অমূল্য নেশা যা আপনাকে নিজের বাড়িতে বসেও আনন্দে রাখতে সক্ষম। যেমন ধরুন আপনি বাড়ির বারান্দায় এক কাপ চা নিয়ে বসেছেন পড়ন্ত বিকেলে, হাতে হটাৎ ক্যামেরা তুলে নিয়ে আকাশের নানা রঙের খেলার ছবি তুলতেই পারেন। পাখির ঝাঁকের ছবি তুলে দেখবেন মনটাও যেন কেমন উড়ে বেড়াবে। কিংবা ছাদে গিয়ে ক্যামেরা নিয়ে গোটা একটা বিকেল কিভাবে কাটিয়ে ফেলতে পারবেন ভাবতেও পারছেন না, তাই নেশা যখন রয়েছে তখন আজ নাহয় একটু বেশি সময় ফটোগ্রাফি করে কাটানো যেতেই পারে।

আজই ডাউনলোড করুন ভারতের নিজস্ব অ্যাপ

ফটোগ্রাফি পেশা

আজই লগ-ইন করুন-https://spark.live/bengali/consult/

এতক্ষনতো বললাম ফটোগ্রাফিকে নেশা হিসেবে কিভাবে কাজে লাগাতে পারেন, কিন্তু জানেন কি বর্তমানে অনেকেই ফটোগ্রাফিকে পেশা হিসেবে বেঁছে নিচ্ছেন, একজন ফটোগ্রাফারের বর্তমান সময়ে বেশ চাহিদা দেখা যায়। প্রিন্ট ও অনলাইন পত্রিকা, বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান, এনজিও গুলোতে বর্তমানে আলোকচিত্রীদের খুব বেশি চাহিদা। তাছাড়া অনেকেই আবার ঝুঁকছেন ওয়েডিং ফটোগ্রাফির দিকে।

ওয়েডিং ফটোগ্রাফি

বর্তমানে এটি একটি বিশাল ট্রেন্ড। বিয়ের ছবি তোলা কিন্তু খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা পার্ট, এটা আসলে একটা বড় শিল্প। কারণ এই শিল্প মুহুর্ত ধরে রাখে। জীবনের সেরা মুহূর্তগুলো যদি ধরে রাখা না যায় তাহলে আফসোসের শেষ থাকেনা, তাই ফটোগ্রাফার হতে হবে সে রকম যার ক্লিক-এ হবে বাজিমাৎ। একারণেই যত আগে সম্ভব বিয়ের ফটোগ্রাফার ঠিক করে ফেলা দরকার। এতে প্যাকেজ নিয়েও নানারকম খুঁটিনাটি জানা যায়। কেউ চাইলে ব্যাচেলর নাইট থেকে ফটোগ্রাফার ঠিক করতে পারেন। কেউ চাইলে শুধু মূল প্রোগাম। কিন্তু যাই ঠিক করা হোক না হোক- বেশ কিছু মাস আগে বিয়ের ফটোগ্রাফারের ফোন নাম্বারটা স্পিড ডায়ালে রাখতে হবে নিলেই মুশকিল।

ওয়াইল্ডলাইফ ফোটোগ্রাফি

আজই লগ-ইন করুন-https://spark.live/bengali/consult/

প্রকৃতি এবং বন্যপ্রাণীদের দৈনন্দিন জীবনযাত্রার প্রতি সাধারণ মানুষের খুব কৌতূহল থাকে। আর সেই কৌতূহলের কারণে অনেকেরই ওয়াইল্ডলাইফ ফটোগ্রাফারদের প্রতি ভালবাসা জন্মায়। সেই ভালবাসা থেকেই অনেকেই পেশা হিসেবে বেছে নিতে চান ওয়াইল্ডলাইফ ফটোগ্রাফিকে। হাতে ক্যামেরা ও লেন্স নিয়ে বেরিয়ে পড়েন তারা অজানার সন্ধানে, পাড়ি দেন নানা বিপদসংকুল পথ।

কখনো জঙ্গলের হিংস্র পশুর সামনে পড়তে পড়তে বেঁচে যাওয়া, কখনো আবার খরস্রোতা নদীতে বা পাহাড়ি পিচ্ছিল পথে বিপদ ঘটতে ঘটতে রক্ষা পাওয়া ওয়াইল্ডলাইফ ফটাগ্রাফারদের জীবনের নিত্যদিনের ঘটনা। তারপরও সেসব মানুষকে প্রতিনিয়ত আকর্ষণ করে যায় প্রকৃতির সেই বুনো গন্ধ, প্রাণীকূলের উদ্দামতা। প্রকৃতির রুক্ষতার অধরা সৌন্দর্য কিংবা নীলাভ সবুজের অপার সৌন্দর্যকে তুলে আনা বা খুঁজে ফেরা কোনো বিপন্ন পশুর সন্ধানে বা কোনো পশুর জীবনকে কাছ থেকে দেখার এক দুনির্বার আকর্ষণে রাতের পর রাত জেগে ক্যামেরার লেন্সে চোখ রেখে যাওয়া। এই বুঝি এক অসাধারণ ছবি ধরা পড়তে যাচ্ছে তার ক্যামেরায়।

রেফারেন্স-https://economictimes.indiatimes.com/magazines/panache/why-august-19-is-observed-as-world-photography-day/articleshow/53688266.cms

ফটোগ্রাফির মূল শর্ত

আজই লগ-ইন করুন-https://spark.live/consult/category/all/?lang=en

ফটোগ্রাফির মূল শর্ত হলো ছবি তোলার আগ্রহ থাকা আর ছবি তোলার মৌলিক বিষয়গুলো জানা। এক্ষেত্রে বই পড়ে, ইন্টারনেট ঘেঁটে, নিজে নিজে ছবি তুলে, অভিজ্ঞ আলোকচিত্রীর সাথে কাজ করেও শেখা যায় এই ফটোগ্রাফি, যত অভিজ্ঞতা হবে ততই ভালো শেখা যাবে ফটোগ্রাফি। শখে ছবি তোলা বা পেশাদার ফটোগ্রাফার যে যাই হোকনা কেনো, এদিনটি তারা উৎসবমুখরভাবে পালন করে থাকেন বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে।

সাধারণত ক্যামেরা দিয়ে আলোকচিত্র নেওয়া হয়, এখানে ক্যামেরার লেন্স বড় ভূমিকা পালন করে। এই আলোকচিত্র নেওয়ার বা তোলার পদ্ধতিকে ফটোগ্রাফি বলে, একে আলোকচিত্র শিল্পও বলা যায়। বর্তমানে মোবাইল ফোনের সহজলভ্যতা ও ভালো মানের ক্যামেরার সংযুক্তির কারনে ক্যামেরার অনেক কাজই মোবাইল করে দিচ্ছে৷

ফটোগ্রাফি শুধু এখন আর শখই নয়, অনেকেরই এটা পেশা হিসেবে খুব ভালো ফল দিচ্ছে। আলোকচিত্র একটি সৃজনশীল কাজ, এই শিল্পকে আরও প্রতিষ্ঠিত করতে দেশের বিভিন্ন জায়গায় তৈরি হয়েছে ফটোগ্রাফিক সোসাইটি। ফটোগ্রাফিক সোসাইটির সৃজনশীল কাজ যেন আরো পেশাদারিত্বের সাথে এগিয়ে যায় ও ছড়িয়ে যায় তরুন প্রজন্মের কাছে, সেটির প্রত্যাশা থাকবে সবসময়। বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবস এর উদ্দেশ্য সফল হোক।

ভারতীয় নিজস্ব অ্যাপ Spar.Live আজই ডাউনলোড করুন-https://play.google.com/store/apps/details?id=com.tamilsouthnews

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।