বেহালা বাদ্যযন্ত্রের মধ্যে রয়েছে এক ঐতিহ্যের ছোঁয়া (The violin has a touch of tradition)

বেহালার সুর আমাদের অনেকেরই ভীষণ প্রিয়, যদিও সবসময় তা শুনতে পাওয়া যায়না সহজে। আপনাদের জন্য রইলো ভারতের অন্যতম ঐতিহ্য বেহালা বাদ্যযন্ত্র নিয়ে কিছু মূল্যবান তথ্য।

বেহালার জনপ্রিয়তা

বেহালার ইংরেজি নাম ভায়োলিন। বেহালা এমন একটি বাদ্যযন্ত্র, যা ধনুক তন্তুর সম্মিলনে সুর সৃষ্টি করে। বেহালা প্রায় সব ধরনের সংগীতের সঙ্গেই ব্যবহৃত হয়। এই বাদ্যযন্ত্রটি মূলত পাশ্চাত্যে অন্যতম যন্ত্র হলেও, ভারত এবং বাংলাদেশে এটি বিপুল জনপ্রিয়তার সঙ্গে গ্রামের ঐতিহ্যবাহী সংগীতের আসর থেকে শুরু করে নাগরিক পরিমণ্ডলের আসরে এমনভাবে আত্তীকৃত হয়েছে যে, এটি বাংলাদেশের নিজস্ব বাদ্যযন্ত্রের সঙ্গে একাকার হয়ে মিশে গেছে। একইসঙ্গে গ্রামীণ আসরে এর বাদন-কৌশলের বিশেষ বিশেষ ভঙ্গির কারণে এটি এ দেশের নিজস্ব বাদ্যযন্ত্রের কাতারে একটা গুরুত্বপূর্ণ স্থান করে নিয়েছে।

Spark.Live এ বেহালা বাদ্যযন্ত্রের শিক্ষিকা কুহেলিকা দাসের সঙ্গে অনলাইন ক্লাসের জন্যে লিংকটিতে ক্লিক করুন-https://spark.live/consult/learn-to-play-violin-at-home-with-violin-teacher-kuhelika-das-bangla

বেহালার উৎপত্তি

বেহালার উৎপত্তি সম্পর্কে বিভিন্ন মত প্রচলিত। কেউ বেহালাকে ভারতীয় বাদ্যযন্ত্র, কেউ কেউ আরব যন্ত্র, কেউবা ইউরোপীয় বাদ্যযন্ত্র বলে থাকেন। ভারতীয় মতে, বেহলার উদ্ভব হয়েছে রাবণের আমল থেকে। কারণ প্রায় পাঁচ হাজার বছর আগে লঙ্কাধিপতি রাবণ দুই তারবিশিষ্ট একটি বাদ্যযন্ত্র ব্যবহার করতেন, যা ছিল ঠিক বেহালার মতো। বেহলার সুর বাহুতে লীন হয়ে যায় বলে ভারতীয়দের মতে বেহালা হচ্ছে বাহুলীন।

আবার অন্য এক মতে দেখা যায়, আরবরা যখন স্পেন দখল করে তখন ইউরোপ ও মুসলিম সংস্কৃতির যে ধারা প্রবাহিত হয় সেখানে তিন তারবিশিষ্ট একটি বাদ্যযন্ত্র ব্যবহার করা হতো, যা ছিল বেহালার মতো। তাই আরবরা কিংবা মুসলিমরা মনে করে এটি একটি আরবীয় যন্ত্র। তবে যে যাই মত প্রকাশ করুক, বর্তমান বেহালার সর্বসম্মত বৈজ্ঞানিক রূপ ধারণে সর্বপ্রথম যিনি বেহালার গঠনশৈলী ও সুরারোপে আকর্ষণীয় ভাব তৈরি করেছেন তিনি হলেন ফ্রান্সের ক্রিমোনা শহরের আন্দ্বে আমেতি। আনুমানিক ১৭০০ সালের দিকে বেহালার প্রথম বৈপ্লবিক উন্নতি সাধন করেন আন্দ্বে আমেতির প্রপৌত্র নিকোলা আমেতির ছাত্র অ্যান্টেনিও স্ট্যাডিয়াভ্যারিয়স।

বেহালা আর ছড়ি

আমাদের প্রিয় বাদ্য যন্ত্রের তালিকায় বেহালা এক অন্যতম তাতে কোনো সন্দেহ নেই। যেকোনো বয়সের বা যেকোনো রুচির মাউসেরই বেহালার সুর মনে কেড়ে নেয়। যারা মিউজিক ভালোবসেন তাদের মনে এক সুপ্ত বাসনা থাকে বেহালা বাজানোর, কিন্তু সময় সুযোগ বা সঠিক চর্চার অভাবে অনেকেরই এই স্বপ্ন পূর্ণ হয়ে ওঠেনা। সব থেকে বড় সমস্যা এই দেশে ভালো বেহালা শিক্ষক হাতে গুনে খুঁজে পাওয়া যায়. দেখা যায় অনেকেই জনপ্রিয় গানের লাইন বেহালায় তুলিয়ে দিচ্ছে কেমন যেন সেই গিটারে গান তোলানোর মতো করে। আজকাল আবার ইন্টারনেট থেকে অনেক রকমের লেসেন জোগাড় করে অনেকেই বেহালা শিখতে শুরু করে দিচ্ছেন। আপনাদের জন্য বেহালা সম্পর্কে নূন্যতম কিছু ধারণা রইলো।

বেহালা বাজানোর কিছু নিয়মাবলী

Spark.Live এ বেহালা বাদ্যযন্ত্রের শিক্ষিকা কুহেলিকা দাসের সঙ্গে অনলাইন ক্লাসের জন্যে লিংকটিতে ক্লিক করুন-https://spark.live/consult/learn-to-play-violin-at-home-with-violin-teacher-kuhelika-das-bangla
  • Tension screw এমন ভাবে টাইট দিতে হবে যাতে bow hairs থেকে bow stick এর দূরত্ব প্রায় একটি পেনসিলের সমান হয়,
  • তারপর ভালোভাবে bow hairs এ রজন লাগাতে হবে,
  • রজন হচ্ছে সোল্ডারিং আয়রনে যে কমলা স্ফটিক পদার্থ ব্যবহার হয়, বেহালাতে তার এবং ছড়িতে ঘর্ষণে শব্দের উৎপত্তি হয়,
  • বেহালা বাজানোর পর তারের উপর জমে থাকা রজন কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন,
  • বাজানোর শেষে ছড়ির Tension screw লুস করে রাখুন,
  • বেশি গরম বা ঠান্ডা জায়গায় বেহালা রাখা উচিত নয়।

ব্রিজের অবস্থান

ব্রিজ বসবে দুই F- Holes এর ঠিক মাঝ বরাবর, ব্রিজ কিন্তু কোনো আঠার উপর বসে থাকেনা। তাই আগে দু পাশে তার লাগিয়ে কিছুটা টাইট করে তার নিচে ব্রিজ বসাতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে ব্রিজ যেন ৯০ ডিগ্রি খাড়া হয়ে বসে।

টিউনিং

বেহালার চারটে তারের পরপর ইন্টারভাল হচ্ছে পারফেক্ট ফিফথ, অর্থাৎ উঁচু নোট E ,তারপর A এবং তারপর D, একদম শেষে সব থেকে মোটা তারটি G, যাদের গিটারে হাতেখড়ি আছে তারা ইতিমধ্যেই গিটার র বেহালার বেশ কিছু মিল খুঁজে পেয়েছেন।
অনেক আলোচনা হলো কিন্তু ঠিক কার কাছে সঠিক ভাবে বেহালা শেখ যেতে পারে তার ধারণা বোধাই আমাদের হয়নি এখনো, আপনাদের জন্য Spark.Live এ রয়েছেন বিশিষ্ট একজন বেহালা বাদ্যযন্ত্রের শিক্ষিকা, আসুন একটু জেনে নেওয়া যাক।

হিন্দুস্তানী ক্লাসিকাল বেহালা বাদ্যযন্ত্রের শিক্ষিকা কুহেলিকা দাস

কুহেলিকা দাস শিলিগুড়ি শহরের বাসিন্দা। তিনি সাড়ে তিন বছর বয়স থেকে সঙ্গীত চর্চা শুরু করেন, বিভিন্ন গুরুর সংস্পর্শে এসে অনেক কিছু শেখার সুযোগ পেয়েছেন। পরবর্তীতে সঙ্গীত এবং বেহালা বাদন শেখানো শুরু করেন। ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অনেকেই তার কাছে সঙ্গীতচর্চা তথা বেহালা বাদন এর তালিম নিচ্ছেন। বাদ্যযন্ত্র বানানোর মধ্যে এক অপরিসীম আনন্দ পাওয়া যায়, Spark.Live এ কুহেলিকার কাছে এবার থেকে আপনারা সকলেই বাড়িতে বসেই বেহালা শিখতে পারবেন এবং নিজেদের মনকে ভালো রাখতে পারবেন।

Spark.Live এ বেহালা বাদ্যযন্ত্রের শিক্ষিকা কুহেলিকা দাসের সঙ্গে অনলাইন ক্লাসের জন্যে লিংকটিতে ক্লিক করুন-https://spark.live/consult/learn-to-play-violin-at-home-with-violin-teacher-kuhelika-das-bangla

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।