সঠিক খাদ্যের মধ্যেই লুকিয়ে রয়েছে সব সমস্যার সমাধান- সঙ্গে রয়েছেন ডায়েটিশিয়ান সোমশ্রী চ্যাটার্জী (The solution to all problems lies in the right diet – with dietitian Somosree Chatterjee )

আজকাল ওজন বেড়ে যাওয়ার সমস্যায় আমরা কম বেশি সকলেই ভুগছি , ব্যস্ত ও অনিয়ন্ত্রিত জীবন যাত্রার ফলস্বরূপ অতিরিক্ত ওজন যেন পিছু ছাড়ছেনা। সেই কারণে নানান রোগ ব্যাধির সম্মুখীন হতে হচ্ছে আমাদের , আপনাদের সবরকম সমস্যার সমাধান করতে Spark.Live এ রয়েছেন ডায়েটিশিয়ান সোমশ্রী চ্যাটার্জী , ওনার সঙ্গে কথা বলে আমরা জেনে নেবো অনেক অজানা তথ্য –https://spark.live/consult/key-to-wellness-online-consultation-in-bangla-with-dietician-somosree/

১) প্রশ্ন – এমন কিছু খাবার কি আছে যেগুলো এন্টি এজিং প্রপার্টিস হিসেবে কাজ করে ?

উত্তর – অবশ্যই গুড ফুডস কিছু আছে যেগুলো এন্টি এজিং প্রপার্টিস হিসেবে কাজ করে , যেমন- পাকা পেঁপে , ব্রকোলি , পালং শাক , এভোকাডো এই ধরণের কিছু জিনিসে এন্টি এজিং প্রপার্টিস আছে। এছাড়াও হাই প্রোটিন অর্থাৎ গুড কোয়ালিটির প্রোটিন যেমন- চিকেন , মাছ , ডিম এছাড়াও যারা ভেজিটেরিয়ান তাদের ক্ষেত্রে- মুসুর ডাল , মুগ ডাল বা যে কোনো ধরণের ডাল , স্প্রাউটস খাওয়া অত্যন্ত জরুরি। নিজেদের খাদ্য তালিকা ঠিক রাখলে তাড়াতাড়ি চামড়া কুঁচকে যাওয়া বা ৪০ বছরের পর থেকেই স্কিনে ভাঁজ পড়া এগুলোর থেকে কিছুটা হলেও রেহাই পাওয়া সম্ভব।

২) প্রশ্ন – স্ট্রেস থেকে অনেকের ওভার ইটিং এর সম্ভবনা দেখা যায় , এটা কিভাবে কন্ট্রোল করা যেতে পারে ?

উত্তর – আমরা অনেকেই খুব স্ট্রেসফুল কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকি, নানারকম প্রফেশনাল স্ট্রেস থাকে , ফ্যামিলি রিলেটেড নানারকম স্ট্রেস থাকে , বিভিন্ন রকমের মেন্টাল স্ট্রেস থাকে আমাদের কম বেশি সকলেরই। অনেক ক্ষেত্রে কি হয় স্ট্রেস থেকে একটা ডিপ্রেশনের সৃষ্টি হয় এবং সেই ডিপ্রেশনটা থেকে আমাদের একটা ওভার ইটিং বা অতিরিক্ত খেয়ে ফেলার সম্ভবনা তৈরী হয়। সেক্ষেত্রে একটা অনিয়ন্ত্রিতভাবে ওয়েট গেইন এর সম্ভবনাও এসে যায়। কিন্তু এই ধরণের অতিরিক্ত খেয়ে ফেলা থেকে নিজেদের কিভাবে সরিয়ে রাখতে পারি তার প্রধান উপায় হল- মেন্টাল এক্সসারসাইস বা মেন্টাল রিলাক্সেশন। সেটা আমাদের অভ্যেস করতে হয়, যেমন ধরুন মেডিটেশন আমরা করতে পারি অথবা যোগা করতে পারি , খোলা হাওয়ায় একটু হাঁটতে পারি। সকালে হলে সব থেকে ভালো হয় কারণ সকালের হাওয়া বাতাস একটু হলেও পিওর হয় এবং সকালের যে হালকা রোদটা থাকে তাতে ভিটামিন-D আমাদের শরীরে জেনারেট হয় তাই সকালবেলা আমরা ৩০ মিনিট মতো হাঁটতে পারি। আরেকটা গুরুত্বপূর্ব বিষয় হল- রাতে যখুন আমরা শুতে যাবো নিজেদের মাইন্ডকে স্ট্রেসফ্রি করতে হবে , আমরা শুয়ে স্ট্রেস কমানোর জন্য ১০০ থেকে ১ অবদি উল্টো দিকে কাউন্ট করতে পারি , এভাবে ধীরে ধীরে ঘুম আসবে এবং স্ট্রেসও কমবে ফলে অতিরিক্ত খাওয়াটাও কমে যাবে।

সোমশ্রী চ্যাটার্জী

৩) প্রশ্ন – সুগার কি আমাদের ডায়েট থেকে সম্পূর্ণ কাট করা উচিত ?

উত্তর – না, একদমই না. কিছু ক্ষেত্রে যেমন যদি ডায়াবেটিস থাকে সেক্ষেত্রে অবশ্যই সিম্পল সুগার সম্পূর্ণ কাট করে ফেলার কথা বলা হয় , সুগার বাদ দেওয়া মানে কিন্তু কার্বোহাইড্রেট বাদ দেওয়া নয়। কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট যেটা ফাইবার হিসেবে ব্যবহার হয় সেটা ডায়াবেটিস রুগীদেরও খাওয়া দরকার। যেগুলো শাক সবজিতে থাকে সেগুলো সকলের খাওয়া উচিত। ডায়াবেটিস বা প্রচন্ড ওভার ওয়েইট হয়ে গেলে তখন সিম্পল সুগার বাদ দিলে অনেকটাই সুস্থ থাকা সম্ভব হয়। কিন্তু গ্রোইং এইজ এ কখনোই সুগার বাদ দেওয়া উচিত নয়।

৪) প্রশ্ন – নিজে থেকে ভিটামিন-C সাপ্লিমেন্ট খাওয়া কি ঠিক ?

উত্তর – কার শরীরে কি প্রয়োজন আছে সেটা বুঝে বা আদৌ প্রয়োজন আছে কিনা ব্লাড টেস্ট এর মাধ্যমে আমরা জানতে পারি যে বডিতে ক্যালশিয়াম লেভেল কত আছে তারপরে যদি দরকার পরে সেই বুঝে সাপ্লিমেন্ট দেওয়া যেতে পারে। সেভাবেই নানা টেস্ট এর মাধ্যমে জেনে তারপর সাপ্লিমেন্ট দেওয়া হয়, কিন্তু সব স্বাভাবিক থাকলে আলাদা করে ভিটামিন-C সাপ্লিমেন্ট খাবার কোনো প্রয়োজনই নেই , যদি ডাক্তার মনে করেন তখন খাওয়া যেতে পারে , নিজে থেকে একদমই কোনো সাপ্লিমেন্ট খাওয়া উচিত নয়।

সোমশ্রী চ্যাটার্জী

৫) প্রশ্ন – Covid-19 বা এই লকডাউনের সময় কোনো স্পেশাল ডায়েট কি আছে ?

উত্তর – দেখুন Covid-19 বা করোনা ভাইরাস এমন একটা ভাইরাস সমগ্র পৃথিবীতে এটাক করেছে তার কিন্তু কোনো এক্সাক্ট ডায়েট নেই, মানে যেটা খেলে Covid-19 আপনার হবেনা এরকম কিছু ডায়েট হয়না কিন্তু আপনি আপনার ইমিউনিটি পাওয়ারকে বুস্ট করতে পারেন কিছু খাবার দিয়ে যেরকম হাই প্রোটিন ফুড- চিকেন , মাছ , ডিম অথবা ডাল, সয়াবিন এই ধরণের খাবার ও তার সঙ্গে সবুজ শাক সবজি। এইসময় ফল নিয়ে অনেক রকম মতবিরোধ দেখা দিচ্ছে , সেইকারণে যেগুলো মোটা খোসা থাকে সেগুলো ছাড়িয়ে খেতে পারেন , যেমন তরমুজ খাওয়া যেতে পারে। যে সবজি বা ফল খাবেন সেগুলি অনেক্ষন জলে ভিজিয়ে রাখবেন একটু গরম জলে ধুয়ে নেবেন। এভাবেই নিজেদেরকে একটু সচেতন রাখলে Covid-19 এর মতো ক্ষতিকারণ ভাইরাসের হাত থেকেও আমরা মুক্ত থাকতে পারি।

Spark.Live এ আপনারা অনলাইন সেশন বুক করে ডায়েটিশিয়ান সোমশ্রীর সঙ্গে নিজেদের সমস্যার সমাধান করে নিতে পারেন খুব সহজেই।https://spark.live/consult/key-to-wellness-online-consultation-in-bangla-with-dietician-somosree/

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।