ভ্যালেন্টাইন্স ডে তে আপনার আউটফিটটির সাথে চমকে দিন সকলকে (Special outfit for Valentines day)

  • by

সামনেই তো প্রেম দিবসের হাতছানি. হ্যাঁ অনেকের এই দিনটিকে নিয়ে মাথা ব্যাথা না থাকলেও, আবার এই দিনটিকে নিয়ে ব্যস্ততা থাকে, এমন মানুষের সংখ্যাও নেহাত কম নয়. বিশেষ করে যাদের সবে মাত্র প্রিয় মানুষটির সাথে ভালোবাসার পথে হাঁটা শুরু হয়েছে, তাদের জন্য এই দিনটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ.

তাই বছরের শুরুর থেকেই সকলের মনে চলতে থাকে, দিনটিকে স্পেশাল করে তোলা যায় কিভাবে. আর স্পেশাল ডে মানেই তো স্পেশাল আউটফিট. সকল প্রেমিকাদের জন্য থাকলো ভি ডে স্পেশাল কিছু আউটফিট এর খোঁজ.

আগে চলুন জানা যাক ভি ডে তে লাল রং পড়া হয় কেন?

১. লাল রঙ হল ভালবাসার প্রতীক, আর ভ্যালেন্টাইন্স ডে মানেই তো তা ভালবাসার দিন।তাছাড়া লাল রঙ প্যাশনের রঙও বটে। তাছাড়া লাল রঙ পরলে দেখতেও বেশ কনফিডেন্ট লাগে আর লাল রঙ দিনে হোক বা রাতে সব সময়েই পরা যায়। তাই এই দিনটির স্বাক্ষর কালার কিন্তু সবসময়ই লাল.

২. যেহুতু পুরো কনসেপ্টে পশ্চিমি, তাই অনুষ্ঠান বিশেষে ওয়েস্টার্ন আউটফিটই বেশি মানায়. পড়তে পারেন লাল রঙের গাউন. পুরো পায়ের গোড়ালি অবধি, হালকা ফ্যাব্রিক বা সামান্য ভারী ফ্যাব্রিকের মনোক্রোম গাউন বেশ ভালো. তবে বেশি জরি, বা স্টোনের কাজ না থাকায় বাঞ্চনীয়.

৩. গাউন না থাকলে, জিনসের সাথেই পড়ুন, কোনো লাল টি শার্ট বা লাল ডিজাইনার টপ.

৪. আবার লাল রঙের ওয়ান পিস্ হাঁটুর লেন্থ অবধি বেশ ভালো মানাবে. আরেকটু ডিজাইনার ভাবলে, অফ সৌল্ডার ওয়ান পিসের তো জবাব নেই.

৫. এই দিনটিতে জাম্পসুট ও আপনার পছন্দের তালিকায় থাকতে পারে. কারণ জাম্পসুট কিন্তু মেয়েদের বেশ স্মার্ট লাগে.

৬. আর যদি একান্তই এই দিনটিতেও ইন্ডিয়ান ছোঁয়া রাখতে চান, তো আপনার পছন্দের তালিকায় রাখুন- লাল শাড়ি, তার সাথে পড়ুন, স্লিভলেস লাল ব্লাউস, তবে যারা স্লিভলেসে কমফোর্ট নন, তাদের বলবো লং হাত ব্লাউস পড়তে. সাথে শিফনের বা অন্য কোন হালকা শাড়ি. চুল পারলে খোলাই রাখুন বা একটা যেমন তেমন মেসি বান. এই দিনের জন্য প্রিন্সেপ ঘাটের নৌকা বিহার বেশ রোমান্টিক হতে পারে.

অন্যদিকে, এই দিনটির জন্য বেছে নিতে পারেন- লাল সালোয়ার, বা সাদা সালোয়ার সুটের সাথে লাল কাজ করা চুনরি বা দুপাট্টা, কানে একটু ঝোলা কানের দুল পড়ুন বা বড় কোনো স্টাড. ঠোঁট রাঙান নিজের মেকাপের সাথে সামঞ্জস্য রেখে কোন রঙে. দিনটিতে প্রেম জমে ক্ষীর হয়ে যাবে.

ব্যাস এইভাবেই একেবারে প্রস্তুত হয়ে যান, ষোলো আনা দিনটি উপভোগ করতে. সব মিলিয়ে করে তুলুন দিনটিকে স্মরণীয়.

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।