সহজ যোগব্যায়াম যেগুলি, বয়সের বাঁধ মানে না (Simple yoga that can be practiced by anyone of any age)

বয়স কখনই যোগ ব্যায়ামে বাধা হয়ে দাঁড়ায় না। আট থেকে আশি সকলেই যোগ ব্যায়াম করতে পারেন। তবে আপনি কি জানেন? যোগ ব্যায়ামের জন্য যে ম্যাটটি আপনি ব্যবহার করেন তার গুরুত্বও কতখানি? একমাত্র এই ম্যাটই আপনার শারীরিক এবং মানসিক অনুশীলনের সংমিশ্রণ ঘটায়। তবে সঠিক পদ্ধতিতে যোগা করা মানেই যোগী অথবা যোগিনী হওয়া নয়। বহু বছর ধরে শারীরকে সুস্থ রাখতে যোগ ব্যায়ামের ভূমিকা অপরিসীম। যে কোনো বয়সেই, একমাত্র যোগব্যায়ামই পারে শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমাতে এবং শরীরকে ফিট রাখতে। অনেকেই আছেন যারা যোগ ব্যায়ামের পরিভাষা বোঝাতে গিয়ে জটিল ভঙ্গিতে ভয় দেখিয়ে ফেলেন। তবে এই রকমটা কখনই হওয়া উচিত নয়। তাই ১০ রকম সহজ ভঙ্গিতে আপনার যোগব্যায়াম জানাটা অবশ্যই দরকার। ফলে ১০টি সহজ ভঙ্গি হলো-

১) চাইল্ড পোজ :-

এইটি খুবই সাধারণ একটি ভঙ্গিমা। ফলে আপনি যোগার অন্যান্য পোজে যাওয়ার আগে, বিশ্রাম কারার ভঙ্গিতে এইটি করতে পারেন। এইটি করার জন্য আপনাকে এটি আলতো করে আপনাকে পিঠ, এবং হিপ ও উরুকে হাঁটু এবং গোড়ালির উপর প্রসারিত করতে হবে। এরপর আপনার মেরুদণ্ড, কাঁধ এবং ঘাড়টিকে আস্তে আস্তে শিথিল করে দিতে হবে।এরপর মেরুদণ্ডের পেশীগুলি শিথিল করার দিকে মনোনিবেশ করুন এবং শ্বাস নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আস্তে আস্তে পিছনের দিকে ফিরে যান। তবে এই পোজটি করার সময় কি করবেন এবং কি করবেন না সেইটা অবশ্যই আপনাকে মাথায় রাখতে হবে। আপনি ঘাড় সমেত তলপেটের কাছে মৃদু প্রেসার দেবেন। তবেই আপনি সুফল পাবেন। তবে আপনার যদি হাঁটুতে ব্যাথা, উচ্চরক্তচাপ অথবা আপনি গর্ভবতী হন তবে, আপনি এই ব্যায়ামটি এড়িয়ে চলুন।

Spark.Live-এর ওয়েবসাইটে –https://spark.live/bengali/consult/ ক্লিক করেও নিজের পছন্দের যোগব্যায়ামের ট্রেইনারের কাছে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন বাড়িতে থেকেই

এছাড়াও এইটি করার সময় অস্বস্তি বোধ করলে, আপনি একটি কুশান অথবা একটি বালিশ মাথার কাছে রাখতে পারেন এবং আপনি পায়ের গোড়ালির কাছে রোল করা একটি তোয়ালেও রাখতে পারেন।

২) ডাউনওয়ার্ড ফেসিং ডগ :

এইটি করতে আপনাকে প্রথমে দাঁড়িয়ে পা দুটিকে সোজা করে নিচু হয়ে দুইটি হাত প্রথমে সামনে রেখে কোমরের অংশটিকে উঁচু করে তুলে ধরতে হবে৷ এইটিতে আপনার পিঠের ব্যাথা সম্পূর্ণ ভাবে সেরে যাবে। এছাড়াও আপনার সুবিধা মতোন আপনি যদি হাত ছাড়াও শুধু কনুই-এর উপর ভর দিতে চান তবে দিতে পারেন। ফলে যদি আপনার কার্পাল টানেল সিনড্রোম বা কব্জির অন্যান্য সমস্যা থাকে। অথবা গর্ভাবস্থা ও উচ্চরক্তচাপের মতোন সমস্যা থাকে তবে এই ভঙ্গিটি আপনার পক্ষে সুখকর হবে না।

Spark.Live-এর ওয়েবসাইটে –https://spark.live/bengali/consult/ ক্লিক করেও নিজের পছন্দের যোগব্যায়ামের ট্রেইনারের কাছে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন বাড়িতে থেকেই

৩) প্লাঙ্ক পোজ :

সাধারণত যোগ ব্যায়ামের এই ভঙ্গিমাটি আপনার কাঁধ, বাহু এবং পায়ের শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। এইটি করতে আপনি প্রথমে উপুর হয়ে শুয়ে পায়ের পাতা এবং দুইটি হাতের সাহায্যে ভর দিয়ে শরীরটাকে উপরের দিকে ওঠাবেন। এছাড়াও আপনি মেঝেতে হাঁটু রেখে এইটি করতে পারবেন। এই ভঙ্গিমাটি আপনার পিঠের ব্যাথায় উপশম ঘটাতে পারে। এছাড়াও কব্জিকে শক্ত করতে সাহায্য করে।

Spark.Live-এর ওয়েবসাইটে –https://spark.live/bengali/consult/ ক্লিক করেও নিজের পছন্দের যোগব্যায়ামের ট্রেইনারের কাছে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন বাড়িতে থেকেই

৪) কোবরা পোজ :

এই পোজটি মেরুদণ্ডের নমনীয়তা বাড়ে এবং বুক, কাঁধ এবং পেট প্রসারিত করতে সহায়তা করল। এছাড়াও দেহের নিম্নাংশের মাংসপেশিকে আরও দৃঢ় করতে সাহায্য করে।

এইটি করার সময়, দেহের নিম্নাংশ এবং বুকের উপর ভর রেখেই, হাতের ভরে আপনি আপনার উপরের অংশটিকে কয়েক ইঞ্চি উপরে ওঠান। এছাড়াও এইটি করার সময় আপনি অবশ্যই আপনার নাভি থেকে মেঝের দূরত্ব বজায় রাখার চেষ্টা করুন। দেখবেন ফল পাবেন।

যোগব্যায়ামের নানারকম সার্টিফিকেট কোর্সের জন্য আজই সেশন বুক করুন যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তীর, এই লিংকে ক্লিক করে- https://spark.live/consult/certificate-course-in-yoga-with-apurba-chakraborty-bangla/

৫) ট্রি পোজ :

আপনার দেহে ভারসাম্য রক্ষা করতে এই ট্রি পোজ অতন্ত্যই জরুরি। ফলে প্রথমে সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে, একটি পায়ের থাই-এর উপর আর একটি পায়ের পাতা দিয়ে হাত দুইটিকে জোড় করে দাঁড়িয়ে পড়তে হবে। এতে আপনার মেরুদণ্ড এবং গড়ালিকে মজবুত করে। এছাড়াও এইটি উচ্চরক্তচাপকেও নিয়ন্ত্রণ করে। ফলে যারা ব্লাড প্রেসারে ভোগেন, তারা ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া এইটি করতে যাবেন না।

যোগব্যায়ামের নানারকম সার্টিফিকেট কোর্সের জন্য আজই সেশন বুক করুন যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তীর, এই লিংকে ক্লিক করে- https://spark.live/consult/certificate-course-in-yoga-with-apurba-chakraborty-bangla/

৬) ট্রাইঅ্যাঙ্গেল পোজ :

এই ভঙ্গিটি পায়ের শক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। এইটি মেরুদণ্ড, কাঁধ ও পায়ের পেশী মজবুত করতে সহায়তা করে। কারোর রক্তচাপ বেশী থাকতে এই ভঙ্গিটি এড়িয়ে চলুন। তবে আপনার যদি ঘাড়ে ব্যাথার মতোন সমস্যা হয়ে থাকে তবে আপনিনএই ভঙ্গিটি করার সময় কখনই ঘাড়টিকে ঘোরানো যাবে না।

যোগব্যায়ামের নানারকম সার্টিফিকেট কোর্সের জন্য আজই সেশন বুক করুন যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তীর, এই লিংকে ক্লিক করে- https://spark.live/consult/certificate-course-in-yoga-with-apurba-chakraborty-bangla/

৭) ফোর-লিম্বড স্টাফ পোজ :

এই ভঙ্গিটি সূর্যের অভিবাদন হিসাবে পরিচিত। দেহের ভারসাম্য রক্ষা করার জন্য এই পোজটি অতন্ত্য গুরুত্বপূর্ণ একটি পোজ। এই ভঙ্গির মাধ্যমে আপনার হাতের বাহু এবং কব্জি দুটোই খুব শক্তিশালী করে। এইটি করতে হলে, দুইটি হাতের চেটো এবং পায়ের পাতার উপর ভর করে দেহটিকে উপরে ওঠাতে হবে। অবশ্যই এইটি করার সময়, মাথাটি মেঝের থেকে দূরে রাখতে হবে। এক্ষেত্রে আপনার যদি উচ্চ রক্তচাপ থাকে এবং আপনি যদি গর্ভবতি হন তবে এই ভঙ্গিমাটি এড়িয়ে যেতে হবে।

যোগব্যায়ামের নানারকম সার্টিফিকেট কোর্সের জন্য আজই সেশন বুক করুন যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তীর, এই লিংকে ক্লিক করে- https://spark.live/consult/certificate-course-in-yoga-with-apurba-chakraborty-bangla/

৮) হাফ-স্পাইনাল টুইস্ট :

এইটি আপনার শরীরের ব্যাক সাইডটিকে আরও মজবুত করে। আপনার কোমরে ব্যাথা থাকলে এই ভঙ্গিটি করার মাধ্যমে আপনি উপশম পেতে পারেন। আপনার যদি পিঠে ব্যাথা থাকে তবে আপনি এইটি ভঙ্গিমাটি এড়িয়ে যেতে পারেন৷ এই ভঙ্গিমাটি করতে আপনার ডান হাঁটু বেঁকানোতে যদি সমস্যা হয়, তবে হাঁটুটিকে আপনি সামনে রাখুন।

যোগব্যায়ামের নানারকম সার্টিফিকেট কোর্সের জন্য আজই সেশন বুক করুন যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তীর, এই লিংকে ক্লিক করে https://spark.live/consult/certificate-course-in-yoga-with-apurba-chakraborty-bangla/

৯) ব্রীজ পোজ :

এই ভঙ্গিটির মাধ্যমে বুক এবং ঘাড়ের পেশী গুলিকে প্রসারিত করে। এছাড়াও হ্যামস্ট্রিং পেশীগুলিতে শক্তি আরও বৃদ্ধি করে। ফলে আপনার ঘাড়ে যন্ত্রণা থাকলে এই ভঙ্গিটি আপনি এড়িয়ে যেতে পারেন। এইটি করার সময় মাথাটি মাঝেতে দিয়ে পা থেকে কোমরের অংশটিতে তুলে ধরুন এবং হাত দুটি অবশ্যই আপনার পিঠের পেছনে থাকবে।

১০) ক্রপস্ পোজ :

যোগব্যায়ামের শেষে এই ভঙ্গিমাটি করা হয়। এই পোজটি করার সময় কিছুক্ষণের জন্য মনকে স্থির রাখতে সাহায্য করে। তবে, আপনি এই ভঙ্গিটি যত বেশি চেষ্টা করবেন ততই ধ্যানমগ্ন অবস্থায় ডুবে যাওয়া আরও সহজ হবে আপনার পক্ষে। এইটি করার সময় আবশ্যই আপনি আপনার মাথার নীচে একটি কম্বল রাখুন এবং হাত ও পা-কে সোজা করে রেখে টানটান হয়ে শুয়ে থাকুন। এই ভঙ্গিটি দেহের সমস্ত অঙ্গ মেঝেতে স্পর্শ করা আবশ্যক।

যোগব্যায়ামের নানারকম সার্টিফিকেট কোর্সের জন্য আজই সেশন বুক করুন যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তীর, এই লিংকে ক্লিক করে- https://spark.live/consult/certificate-course-in-yoga-with-apurba-chakraborty-bangla/

তো এইবার নিশ্চয়ই যোগব্যায়াম নিয়ে অহেতুক ভয় আর নেই আপনার মনে। এইটা এখন খুব পরিষ্কার হয়েছে যে আপনি যে বয়সেরই হোক না কেন, উপরে দেওয়া যোগব্যায়াম গুলি আপনি অনায়াসেই করতে পারবেন। আপনার শরীর স্বাস্থ্য অনুসারে কোন যোগব্যায়ামগুলি আপনার জন্য পারফেক্ট, মানে কোন ব্যায়ামের সামান্য বয়েসী আপনার রজার, বা শারীরিক অস্থিরতা কাটিয়ে তুলতে সক্ষম, সেটিও আপনি জেনে নিতে পারেন, আপনার মুঠোফোনটির সঠিক ব্যবহারে, মানেটা হল আজই ফোনে ডাউনলোড করে নিন-https://play.google.com/store/apps/details?id=com.tamilsouthnews আর খুঁজে নিন নিজের পছন্দের যোগব্যায়াম ট্রেইনারকে, আবার ওয়েবসাইটে –https://spark.live/bengali/consult/ ক্লিক করেও নিজের পছন্দের যোগব্যায়ামের ট্রেইনারের কাছে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন বাড়িতে থেকেই।

যোগব্যায়ামের নানারকম সার্টিফিকেট কোর্সের জন্য আজই সেশন বুক করুন যোগ শিক্ষক অপূর্ব চক্রবর্তীর, এই লিংকে ক্লিক করে- https://spark.live/consult/certificate-course-in-yoga-with-apurba-chakraborty-bangla/

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।