বাড়তি ওজন কমিয়ে ফেলে পুজোর আগেই হয়ে উঠুন ফিট এন্ড ফাইন(Lose excess weight and become fit and fine before Pujo)

করোনা সংক্রমণ এড়াতে দীর্ঘ লকডাউনের ধাক্কা সামলে এবার দুর্গাপুজো হবে কিনা, একটা অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে সে নিয়ে। কিন্তু বিভিন্ন বড় পুজো কমিটি জানাচ্ছে, সাবধানতার বিধি নিষেধ মেনেই এবছরও পুজো হবে। লকডাউনের জেরে কলকাতার দুর্গোৎসবের জৌলুস কমতে চলেছে তা খুবই স্বাভাবিক।

কিন্তু বাঙালির মন থেকে তো দুর্গোৎসবের আনন্দ কেড়ে নিতে পারবেনা, সারা বছরের অপেক্ষা এই কটা দিনের জন্য, তাই এই বছরটা একটু অন্য ভাবেই সকলে আনন্দ করে কাটাবেন নিশ্চয়ই। মনকে ভালো রাখতে এবং শরীরকে ফিট রাখতে শুরু করে ফেলুন পুজো স্পেশাল ডায়েট

পুজো স্পেশাল ডায়েট

মা দূর্গা তো আর বারে বারে আসেন না, আসেন বছরে মাত্র একবারই। তাই এই সময় একটু সাজগোজ না করলে চলে বলুনতো, কিন্তু সমস্যা একটাই। সারা বছর কব্জি ডুবিয়ে খেয়ে ওজন যে উর্দ্ধগামী, তাই টেন্ডি ফ্যাশনের কুর্তি সালোয়ার ফিট হবে কীভাবে তাই ভাবছেন? এই চিন্তায় যাঁদের রাতের ঘুম উড়েছে, তাঁদের জন্য সুখবর। একটু ইচ্ছে, আর অনেকটা মনের জোর থাকলে এক মাসের মধ্যেই চর্বি ঝরিয়ে ওজন কমিয়ে ফেলা সম্ভব। সেই সঙ্গে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ত্বক এবং ঝলমলে চুল হচ্ছে এক বাড়তি পাওনা।

চটজলদি কি সত্যিই ওজন কমানো যায়?

অবশ্যই সম্ভব, তবে স্বাস্থ্যকর উপায়ে দুই থেকে সাড়ে তিন কিলো পর্যন্ত ওজন কমানো যেতে পারে। তার চেয়ে বেশি না কমানোই উচিত। খাওয়াদাওয়া ছেড়ে দিয়ে দ্রুত ওজন কমানোর চেষ্টায় লেগে পড়াটা অস্বাস্থ্যকর, কারণ এমনটা করলে মেদ তো ঝরবেই না, উল্টে ‘মাসল ব্রেকডাউন’ হয়ে সেই জায়গায় আরও বেশি করে চর্বি জমতে শুরু করবে। ফলে ওজন কমা তো দূর, বরং ওজন বাড়ার আশঙ্কা আছে! সেই সঙ্গে কিডনি লিভারেরও ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। তাই শরীর বাঁচিয়ে ওজন কমাতে চাইলে এক মাসে তিন কিলোর বেশি ওজন না কমানোই বুদ্ধিমানের কাজ।

আরও পড়ুন-সঠিক ডায়েটের মধেই লুকিয়ে রয়েছে সুস্বাস্থ্যের সন্ধান ( The search for good health is hidden in the right diet )

ক্যালোরি মেপে খেতে হবে

আজই লগ-ইন করুন-https://spark.live/bengali/consult/

ওজন কমানোর সহজ একটা ফর্মুলা রয়েছে। সারা দিন যত ক্যালরির প্রবেশ ঘটছে শরীরে, তার চেয়ে আরও ৫০০ ক্যালরি বেশি খরচ করলেই ওজন কমতে শুরু করবে। সহজ কথায় বললে, সারা দিনে যদি ১,০০০ ক্যালরি খান, তা হলে দিনে মোট ১,৫০০ ক্যালরি ঝরাতে হবে। ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ এবং ডিনার, এই তিনটে মিলের জায়গায় সারা দিনে ছ বার খাবার খেতে হবে। তাতে ‘পি পি’ সুগার ঠিক থাকবে, যে কারণে মেটাবলিক রেট এতটাই বাড়বে যে, শরীরের ইতি উতি জমে থাকা মেদ ঝরে যেতে সময় লাগবে না। তাই কাল থেকেই ব্রেকফাস্টের পর থেকে আড়াই ঘণ্টা অন্তর অল্প অল্প করে খাবার খাওয়া শুরু করুন। দেখবেন, উপকার হবেই হবে।

ওজন কমাতে সারা দিনের ডায়েট চার্ট:

ব্রেকফাস্ট

এই সময়ে খেতে পারেন ওটস, ডালিয়া অথবা মাল্টি গ্রেন সিরিয়ালের মতো কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ খাবার। সঙ্গে দু তিন রকমের ফল আর অল্প করে দুধ খাওয়া কিন্তু মাস্ট। যাঁদের দুধ পছন্দ নয়, তাঁরা দুটো ডিমের সাদা অংশ খেতে পারেন। সকাল সকাল শরীরে ফ্যাটের চাহিদা মেটানোটাও জরুরি। তাই অল্প করে মাখন বা ঘি খেতে ভুলবেন না, তবে সাত থেকে দশ গ্রামের বেশি ফ্যাটের প্রবেশ না ঘটাই বাঞ্ছনীয়। ব্রেকফাস্টের ঘণ্টা তিনেক পরে অল্প করে ছোলা সেদ্ধ বা এক বাটি ছানা বা ডাবের জল খেতে হবে।

লাঞ্চ

দুপুরের খাবারের মেনুতে থাকুক দু তিন বাটি তরকারি, সঙ্গে একটা মাছ। তবে ভুলেও মাছের মাথা খাওয়া চলবে না। এমনকী, মৌরলা মাছের মাথাও এড়িয়ে চলতে হবে। মাছ তরকারির পাশাপাশি এক বাটি ঘন ডাল আর শেষ পাতে খাওয়ার জন্য দই বা রায়তাও রাখতে পারেন। লাঞ্চের তিন ঘণ্টা পরে অল্প পরিমাণে ছোলা সেদ্ধ, নয়তো মুগ সেদ্ধ খেতে হবে। ইচ্ছে হলে ভুট্টাও খেতে পারেন। এর পর এক কাপ গ্রিন টি। তবে এক্ষেত্রে একটা বিষয় মাথা রাখা জরুরি। তা হলে এক কাপ গ্রিন টি খাওয়ার পরে মনে করে অন্তত তিন কাপ জল খান! না হলে কিন্তু কিডনিতে স্টোন হওয়ার আশঙ্কা বাড়বে।

ডিনার

আজই লগ-ইন করুন-https://spark.live/bengali/consult/

সন্ধে সাড়ে ছটার মধ্যে রাতের খাবার খেয়ে নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন বহু ডাক্তাররা। কারণ, সূর্যাস্তের পর থেকে ধীরে ধীরে আমাদের মেটাবলিজম রেট কমতে থাকে। তাই দেরি করে রাতের খাবার খেলে ওজন বাড়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। ডিনারে এক বাটি মাছ বা চিকেনের সুপ খেলে মন্দ হয় না। তবে রাতের খাবার খাওয়ার আড়াই ঘণ্টা পরে ছোট বাটির এক বাটি ছানা বা দুধ খাওয়া চলতে পারে।

এই নিয়মগুলি মেনে খাবার খাওয়ার পাশাপাশি নিয়মিত অল্পবিস্তর হাঁটাহাঁটি, জগিং অথবা স্কিপিং করলে এক মাসে তিন থেকে সাড়ে তিন কিলো ওজন কমবেই কমবে। আর যদি বিকেলের দিকে এক্সারসাইজ করতে পারেন, তা হলে তো কথাই নেই! পরিমাণমতো জল খাওয়া খুব জরুরি, চটজলদি ওজন কমাতে গেলে দিনে তিন-চার লিটার জল এবং ৫০০ এম এল ডাবের জল খেতেই হবে।

ভারতীয় নিজস্ব অ্যাপ Spar.Live আজই ডাউনলোড করুন-https://play.google.com/store/apps/details?id=com.tamilsouthnews

খাবার খাওয়ার সময়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ

কী খাচ্ছেন সেটা যেমন জরুরি, তেমনই কখন খাবার খাচ্ছেন, তার উপরও কিন্তু ওজন কমবে না বাড়বে, তা অনেকাংশে নির্ভর করে থাকে। তাই ওজন কমাতে যদি চান, তাহলে সকাল সাড়ে সাতটার মধ্যে ব্রেকফাস্টে, সাড়ে দশটায় ‘মিড মর্নিং’ স্ন্যাক্স, দুপুর একটায় লাঞ্চ, বিকেল তিনটে-সাড়ে তিনটে নাগাদ অল্প করে স্ন্যাক্স, সঙ্গে এক কাপ গ্রিন টি। আর রাতের খাবার সন্ধ্যা সাড়ে ছটা থেকে সাতটার মধ্যে সেরে ফেলতে হবে।

তথ্যসূত্র-https://www.sastasundar.com/healtharticle/this-durga-puja-ditch-the-weight-gain-fear-and-eat-to-your-heart-s-content-dietitian-shampa-banerjee-shares-the-perfect-cheat-meal-plan

প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খেলে কি ওজন কমে?

অবশ্যই কমে,তবে শরীরের প্রতি কিলো ওজন পিছু ১.২ গ্রাম থেকে ১.৩ গ্রাম প্রোটিন খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন ডাঃ দত্ত। কারণ, এর চেয়ে বেশি পরিমাণে প্রোটিন খেলে শরীরের কোনও উপকারই হয় না, বরং নানা ক্ষতির আশঙ্কা থাকে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, যে ধরনের ডায়েট প্ল্যানই অনুসরণ করুন না কেন, দিনে কম করে ১০০ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ খাবার খেতেই হবে। না হলে কিন্তু শরীরের মারাত্মক ক্ষতি হবে। আর কার্বোহাইড্রেট শুধু ভাতে আর রুটিতেই রয়েছে, এমন নয়। অনেক ফল এবং সবজিতেও এই উপাদানটি মজুত রয়েছে।

ওজন কমাতে গ্রিন টি পান জরুরি

আজই লগ-ইন করুন-https://spark.live/consult/category/all/?lang=en

গ্রি টিতে এপিগ্যালোকোটিন নামে একটি উপাদান রয়েছে, যা মেটাবলিজম রেট এতটাই বাড়িয়ে দেয় যে দ্রুত ফ্যাট বার্ন হতে শুরু করে। ফলে ওজন কমতে সময় লাগে না। তবে দিনে দু’ কাপের বেশি গ্রিন টি পান করা উচিত নয়। আর প্রতি কাপ পিছু তিন কাপ জল খাওয়া মাস্ট!

আরও পড়ুন-কিটো ডায়েট করে ওজন কমাবেন ভাবছেন? রইলো কিছু টিপস(Are you thinking of losing weight by Keto Diet? Here are some tips)

কিছু বিশেষ টিপস

  • রাত ১১ টার মধ্যে শুয়ে পড়তে হবে, বেশি রাত পর্যন্ত জেগে থাকলে কিন্তু ওজন কমবে না।
  • কোল্ড ড্রিঙ্ক, চিনি এবং মধু খাওয়া চলবে না। ঘি ভাতের সঙ্গে আলু সেদ্ধও এড়িয়ে চলতে হবে।
  • অনেকক্ষণ পেট খালি থাকলে বিপদ, তাই ওজন কমাতে চাইলে আড়াই থেকে তিন ঘণ্টা অন্তর অন্তর মুখ চালাতেই হবে।
  • নিয়মিত অল্পবিস্তর এক্সারসাইজ মাস্ট।
  • অ্যালকোহল পান করা চলবে না। খুব ইচ্ছে হলে দিনে এক গ্লাস করে ওয়াইন খেতে পারেন।

Spark.Live এ রয়েছেন বিশিষ্ট ডায়েটিশিয়ান তনিমা ঘোষ, ওনার সঙ্গে অনলাইন কন্সালটেশন করে পুজোর আগেই আপনিও হয়ে উঠতে পারেন ফিট এন্ড ফাইন-https://spark.live/consult/weight-loss-diet-with-tanima-ghosh-bangla

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।