দূর্গা পুজোয় পরিবারের সকলকে সুস্থ্য রাখতে কিছু বিষয় মেনে চলা জরুরি(In Durga Puja, it is important to follow certain things to keep the whole family healthy)

এই বছরের পুজোয় আনন্দ করার আগে মাথায় রাখতে হবে নিজের এবং পরিবারের সকলের স্বাস্থ্য যেন সুরক্ষিত থাকে। আনন্দের নতুন ধারা খুঁজে নিয়ে বাড়িতেই মনের মতো মানুষদের সঙ্গে খাওয়া-দাওয়া আড্ডায় কাটুক আপনাদের দুর্গোৎসব। কিছু বিশেষ বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করা হল যেগুলো মাথায় রাখা খুবই জরুরি। এই নিয়মগুলি মেনে চললে পরিবারের সকলের শরীর সুস্থ্য থাকবে এবং আনন্দও করতে পারবেন সকলে মিলে।

স্বামীর স্বাস্থ্যের উপর নজর দিন

কাজের চাপে ব্রেকফাস্ট-লাঞ্চ ঠিক মতো না হওয়ার কারণেই যে স্বামীর ওজন বাড়ছে, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। উপরন্তু রোল বিরিয়ানি তো মাঝে মধ্যেই চলছেই। তাই বুঝতেই পারছেন, গ্যাস অম্বল আর বদহজমের পিছনে কারণটা ঠিক কি? যদি সুস্থ্য থাকতে হয় তাহলে, আগামী কয়েকদিন বাইরের খাবার খাওয়া এক্কেবারে চলবে না। এড়িয়ে চলতে হবে ভাজাভুজি এবং মিষ্টিও। প্রয়োজনে লাঞ্চে বাড়িতে তৈরি খাবারই দিয়ে দেবেন। তাতে বাইরের খাবার খাওয়ার ঝোঁক কমবে।

ফলে পেটের রোগের প্রকোপ কমতে দেখবেন সময় লাগবে না। আরেকটা জিনিস মাথায় রাখবেন, ব্রেকফাস্ট-লাঞ্চ থেকে ডিনার, প্রতিটি মিলেই যেন ফাইবার, কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট এবং প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার থাকে। তাতে ওজন বাড়ার আশঙ্কা থাকবে না। আর যদি তাঁকে একটু জোর করে হাঁটহাঁটি করাতে পারেন, তা হলে তো সব থেকে মঙ্গল। মর্নিং ওয়াক না হোক, অফিস থেকে ফেরার পরে মিনিটকুড়ি হাঁটলেও চলবে। এমনটা করলে ওজন কমতে সময় লাগবে না এবং এনার্জি লেভেলও দেখবেন অনেক বেড়ে গেছে।

বাড়ির বয়স্কদের সুস্থ্য রাখতে মানতে হবে কিছু বিশেষ নিয়ম

মানুষের বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এমনিতেই শরীরের জোর কমে যায়। তার উপর সারাদিন শুয়ে-বসে থাকার কারণে আরও জড়তা মাথায় চেপে বসে। সঙ্গে ডায়াবেটিস-ব্লাড প্রেসারের মতো রোগ তো রয়েছেই। তাই প্রথমেই তাঁদের ডায়েটের দিকে নজর রাখতে হবে। তাঁরা যেন নিয়ম করে ব্রেকফাস্ট করেন, তা সুনিশ্চিত করতে হবে। প্রয়োজনে অফিস বেরনোর আগেই তাঁদের খাইয়ে দেবেন। আর বলে যাবেন দুপুরের খাবার যেন ঠিক সময়ে সেরে ফেলেন। রাতের খাবার খেতে হবে আটটার মধ্যে।

এই নিয়মগুলি মানলে হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটবে। তবে শরীরের জোর বাড়াতে মাছ, মাংস, ডিমের মতো খাবার নিয়ম করে তাঁদের খাওয়াবেন। সঙ্গে অল্পবিস্তর হাঁটহাটি মাস্ট! এই নিয়মগুলি মানলে দেখবেন পুজোর আগেই বাড়ির বয়স্করা একদম ফিট হয়ে উঠবেন। তবে যাঁরা নানা রোগে ভুগছেন, তাঁদের ডায়েট প্ল্যানে কোনও পরিবর্তন আনার আগে একবার ডায়েটিশিয়ানের সঙ্গে পরামর্শ করে নিতে ভুলবেন না।

আরও পড়ুন-দুর্গাপুজোয় আনন্দ করুন তবে স্বাস্থ্যের খেয়াল নিতে ভুলবেননা(Enjoy Durgapujo but don’t forget to take care of your health)

এইসময়ে বাচ্চাদের ফিট রাখা খুব জরুরি

বর্তমানে এক অদ্ভুত আবহাওয়া চলছে, এই বৃষ্টি তো এই গরম। এমন পরিস্থিতিতে জ্বর সর্দি কাশি হওয়ার সম্ভবনা এমনিতেই থাকে, আর এই বছর করোনার ভয়ও সঙ্গে আছেই। তাই পুজোর সময় সর্দি কাশির মতো সমস্যাকে দূরে রাখতে বাচ্চাদের নিয়ম করে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল এবং সবজি খাওয়াতে হবে। তাতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এতটাই শক্তিশালী হয়ে উঠবে যে ছোট বড় কোনও রোগই ধারে কাছে ঘেঁষতে পারবে না। উপযুক্ত নিয়ম মেনে খাবার খাওয়ানোর পাশাপাশি ছেলেমেয়েদের বিকেলে একটু খেলাধুলোর অভ্যাস করাবেন, ততে শরীরের জোর বাড়বে সুস্থ্য থাকবে।

Spark.Live এ রয়েছেন ভারতের বিশিষ্ট ডায়েটিশিয়ানরা


বর্তমানে দেশের নিজস্ব অ্যাপের মধ্যে Spark.Live অন্যতম। একাধিক বিশিষ্ট পুষ্টিবিদরা যুক্ত হয়েছেন Spark.Live এ, এবং তারা অনলাইন কন্সালটেশনের সুযোগ রাখছেন আপনাদের সকলের জন্যই। দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা কেন্দ্রীভূত করে আপনাদের ডায়েটের যেকোনো ধরণের সমস্যার সমাধান খুব সহজেই করে দিচ্ছেন আমাদের ডায়েটিশিয়ানরা দক্ষতার সঙ্গে এবং সব থেকে সুবিধে হল নিজের বাড়িতে বসেই স্বল্প মূল্য ব্যায় করে আপনারা নিজেদের ডায়েট চার্টটি পেয়ে যাবেন।

তাই আর দেরি না করে, আজই নিজের সেশন বুক করুন এই লিংকটিতে ক্লিক করে-https://spark.live/consult/category/all/

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।