তুলসী পাতার ঠিকঠাক ব্যবহার করছেন তো- নইলে আসতে পারে বিপদ (How Tulsi Leaf Brings Misfortune For You?)

  • by

তুলসী পাতা ভেষজ উপাদানের মধ্যে একটি অন্যতম উপাদান. তার গুণাবলী নিয়ে কথা শুরু করলে, শেষ করা মুশকিল. সর্দি কাশি থেকে শুরু করে, এমনকি ত্বকের পরিচর্চায়ও তুলসী পাতার জুড়ি মেলা ভার. কিন্তু এই তুলসী পাতার আরো একটি দিক আছে. হিন্দু শাস্ত্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান অধিকার করে আছে তুলসী গাছ. প্রায় প্রতিটি হিন্ধু বাড়ির উঠানে বা ফ্ল্যাটের বারান্দায়, ছাদে ছোট্ট টবে বা মঞ্চ গড়ে তুলসী গাছ রাখা হয়, সকাল সন্ধ্যে পূজাও করা হয়, বাড়ির শুভকামনার আশায়. কিন্তু তুলসী পাতা নিয়ে সামান্য অবচেতনেই যে আপনার পরিবারের জন্য হয়ে দাঁড়াতে পারে বিপদ, তা কি জানেন?

মানা হয় , তুলসী পাতার যেমন তেমন ব্যবহার নিয়ে আসে আপনার পরিবারে অন্ধকার. সব দেব দেবীদের প্রতি নিবেদন করা যায় না এই পবিত্র গাছের পাতা. এমনকি বাড়ির উঠানে হোক বা বাড়ির ছাদে তুলসী মঞ্চ বা ছোট টবে তুলসী গাছ লাগিয়ে, পূজা তো করে যায়, কিন্তু গাছটিকে যদি ঠিকঠাক দিকে না রাখেন, তাহলে কিন্তু সেটাও আপনার বিপদ বাড়াবে.

তো চলুন আজ আমরা আলোকপাত করি তুলসী পাতার ব্যবহারে কি কি সাবধানতা রাখা উচিত?

১. কোন পূজায় নিবেদন করতেই হয়-

কম বেশি অনেক পূজাতেই তুলসী পাতার ব্যবহার করা হয়ে থাকে. এমনকি ভগবান বিষ্ণুর বিশেষ আশীর্বাদ পুষ্ট বলে গণ্য করা হয় তুলসী গাছকে. তাই বিষ্ণু দেবের আরাধনায়, তুলসী পাতার ব্যবহার করতেই হয়.

২.কোন পূজায় তুলসী পাতা নিবেদন নিষিদ্ধ-

কিন্তু আবার সিদ্ধিদাতা গণেশ ঠাকুরের পূজাতে তুলসী পাতার ব্যবহার করা যায় না. কারণ হিন্দু শাস্ত্র অনুসারে, এককালে দেবী তুলসী আর এবং ভগবান গণেশের মধ্যে কিছু নিয়ে বিবাদ তৈরী হয়েছিল. তার পর থেকেই গণেশ ঠাকুরের পূজায় তুলসীর ব্যবহার হয় না.

৩.জটাধারীর পূজায় তুলসী পাতা নিবেদন নিষিদ্ধ-

আবার একইভাবে দেবাদিদেব ভগবান শিবের পূজাতেও তুলসী দেওয়া যায় না. কারণ কথিত আছে, দেবী তুলসির স্বামী ছিলেন রাক্ষস রাজ জলন্ধর।তার তপস্যায় প্রসন্ন হয়ে, তাঁকে অমরত্বের আশীর্বাদ দিয়েছিলেন দেবেরা।তারপরই তার মাথায় ত্রিভুবন জয়ের নেশা জাগে. আর এই নেশায় মত্ত হয়ে, জলধর দেবতাদের ওপর আক্রমণ করতে থাকে, তখন ছলনার আশ্রয় নিয়ে দেবাদিদেব রাক্ষস রাজকে বধ করেন। এই বিষয়টি, জানার পর দেবী তুলসি ক্ষোভে শিব ঠাকুরকে অভিশাপ দেন, যে তাঁর পুজোয় কখনও তুলসি পাতা ব্যবহার করা হবে না।

এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে একাদশী, রবিবার, সূর্য এবং চন্দ্র গ্রহণের সময় ভুলেও তুলসি পাতা ছেঁড়া উচিত নয়। এতে দেবী তুলসি বেজায় ক্ষুন্ন হন, রেগে যান. তাঁর অভিশাপে জটিল কোনও রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কার মাত্রা বাড়ে ! এমনকী, খুব কাছের মানুষের চূড়ান্ত ক্ষতি বা মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।

তো পরিবারে সুখ সমৃদ্ধি আর তুলসী দেবীর কৃপাদৃষ্টি বজায় রাখতে মেনে চলুন এই নিয়মগুলি.

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।