কত রকম ভাবে ব্যবহার করা যায় কন্সিলার? (How to use concealer? )

  • by

প্রতিদিনের মেকাপে আমরা সচরাচর ব্যবহার করি না , শুধু ওই কোন অনুষ্ঠানে গেলে, তখন আমাদের মাথায় আসে কন্সিলারের কথা.
কিন্তু এই কন্সিলারের কিন্তু আরো কিছু গুন্ আছে, যেগুলিও কিন্তু বাদ দেওয়া যায় না. সাধারণ দাগছোপ থেকে শুরু করে চোখের নিচের কালো দাগ বা ডার্ক সার্কল, শুধু দাগছোপ ঢাকার কাজেই নয়, ঠিকঠাক কৌশল জানা থাকলে আরও নানা কাজে লাগানো যায় কনসিলার! ঝটপট চোখ বুলিয়ে জেনে নিন, কেন আজ থেকেই আপনার মেকআপ সরঞ্জামে যোগ করে নেবেন কনসিলারকে! তার আগে চোখ রাখা যাক কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নে.

এই ১. কনসিলার কি?
২. কি কিভাবে ইউজ করবেন কনসিলার- কি কি করে লুকাবেন ডার্ক সার্কলেস,ডার্কস্পটস ,ব্রণ স্পটস

তো চলুন আর দেরি নয়, চোখ রাখা যাক প্রশ্নগুলির উত্তরের দিকে.

১. কনসিলার কি?

প্রথমেই আপনাদের জানাই কনসিলারের প্রথম লঞ্চ হয়েছিল 1954 ।এমন একটি জিনিস যা আপনাদের মুখের দাগ ,ডার্ক সার্কলেস,ডার্ক স্পটস, ব্রণ স্পটস এবং নানান রকম বাজে ব্যাপারগুলোকে বেশ কিছুক্ষণের জন্য ম্যাজিকের মতো উড়িয়ে দিতে পারে। এবং আপনাকে দারুন সুন্দর করে তুলতে পারে তাতে কোন সন্দেহ নেই এটি অতি সাধারণ দেখতে ক্ষাণিক ক্রিজের মত থাকে ঠিক। যে কোন কনটেইনারের ভিতরে। কিন্তু এই ক্রিম ফর মেন ভেতরেই একটা দারুণ ম্যাজিক আছে এটি বিভিন্ন শেডের হয়।

২. কি কিভাবে ইউজ করবেন কনসিলার- কি কি করে লুকাবেন ডার্ক সার্কলেস,ডার্কস্পটস ,ব্রণ স্পটস

বিভিন্ন নামিদামি কোম্পানির আনাগোনা আমরা দেখতেই পাই বাজারে নিজের স্কিনটোন হিসেবে দেখে কিনুন কনসিলার । বা এখন অনলাইনেও নিজের স্কিনটোন অনুসারে বেছে নিন, ভালো কন্সিলারটি. দেখবেন যেন স্কিনটোনের অতিরিক্ত উজ্বল না হয়ে যায়, আপনার কন্সিলারটি.

অনেক সময়ই আইশ্যাডো ঠিক করে সেট হয় না. আইশ্যাডো সেট করতে তাই আই প্রাইমার ব্যবহারের পরামর্শ দেন মেকআপ বিশেষজ্ঞেরা। আপনার হাতের কাছে আই মেকআপ প্রাইমার নেই? বেস হিসেবে কনসিলার ব্যবহার করুন।

  • অনেক সময়, রাতে ঘুমের অনিয়ম হলে, চোখের তোলা ফুলে যায়. এই ফোলাভাব ঢাকতে কনসিলার, আই ক্রিম আর হাইলাইটার সাবধানে মিশিয়ে নিন। তারপর চোখের নিচে আর চোখের ভিতরের দিকের কোণগুলির চারপাশে সাবধানে লাগিয়ে নিন।
  • ঠোঁটে লিপিকালার এপলাই করার আগে একটু কন্সিলার লাগিয়ে নিন. তারপর যে লিপি কালার ই লাগান না কেন অনেকক্ষন স্টেই করবে. আর রংটি উজ্জ্বলও দেখাবে.
  • প্রথমেই আপনার ডার্ক সার্কেল ,ডার্ক স্পট এন্ড ব্রোনো অংশে আপনার টোন অনুযায়ী ওই স্থানগুলিতে কনসিলার লাগিয়ে নিন তারপর কনসিলার ভালো করে ব্লেন্ড করুন ।
  • কনসিলার কালার কানেক্টিং এর কিছু বিষয় আছে যেমন আপনার স্কিন টোন অনুযায়ী আপনি ঠিক তার লাইট টোন ইউজ করবেন আপনার ডার্ক স্পট ,ডার্ক সার্কেল এই জায়গা গুলিতে ।
  • আপনার মুখের সমস্ত বাজে স্কিন থেকে একটা দারুণ স্কিনের লুক দেওয়ার কাজ করে কনসিলার।
  • আপনার মুখের ডার্ক জায়গাগুলিতে প্রথমে কনসিলার লাগিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করুন, তাহলেই আপনার মুখের স্কিনে একটা আলাদাই ঝাঁ-চকচকে জেল্লা আসবে।

তাহলেই বুঝতে পারছেন কনসিলার ব্যবহারের পদ্ধতি ।এই ভাবেই ব্যবহার করতে হয় কনসিলার তবে তার ওপর কম্প্যাক্ট ব্যবহার করাটা কিন্তু ভীষণ জরুরী। না করলে আপনাকে স্কিনে কিন্তু অত সুন্দর জেলা আসবেনা। তবে অবশ্যই মাথায় রাখবেন নিজের স্কিনটোন’ অনুযায়ী কনসিলার কালার কারেকশন করে নেবেন অবশ্যই। বাজারচলতি, হরেকরকমের কন্সিলার এর মধ্যে আপনার পছন্দের ব্র্যান্ড কোনটি?, কমেন্টে জানান আমাদের.

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।