শীতকালে পিকনিকের মেনু ঠিক করার আগে মাথায় রাখুন এই বিষয় গুলি (How To Plan Your Picnic Menu?)

  • by

নতুন বছরে পিকনিকের প্ল্যান করছেন? শীত ছাড়া পিকনিক জমে না। তাই বছরের এই সময়টা ঠাণ্ডা বেশি বা কম, যাই পড়ুক একটা ছুটির দিন দেখে দলবেঁধে পিকনিকে তো যেতেই হবে। হয়তো সেটা হবে নিউ ইয়ার পিকনিক! কিন্তু পিকনিকের মেনু ঠিক করা বিশাল ঝক্কির কাজ। জেনে নিন পিকনিকের মেনুর খাবার ঠিক করার আগে কি কি বিষয় মাথায় রাখবেন।

১) কত দূর যাচ্ছেন খেয়াল রাখুন

কতদূরে আপনার পিকনিক স্পট, সেখানে পৌঁঁছতে কতক্ষণ সময় লাগবে, সেটা আগে হিসেব করে নিন। কারণ যদি তাড়াতাড়ি পৌঁছে যান, তাহলে স্পটে গিয়েই জলখাবার খাওয়া হবে। আর নাহলে খেয়ে নিতে হবে যাওয়ার পথেই। ঠিক তেমন ভাবেই পৌঁছতে বেশি সময় লাগলে বেশি আইটেম রান্না করাও সম্ভব হবে না।

২) নিজেরা রাঁধবেন নাকি ক্যাটারিং?

পিকনিক মানে একসঙ্গে হুল্লোড়। বেশিরভাগ সময়ই পিকনিকে গিয়ে কোমরে গামছা বেঁধে রান্না করার ছবিটা বাঙালিদের মধ্যে বেশি দেখা যায়। আবার অনেকে একসঙ্গে কোনও একটা বাগান বাড়ি বা পার্কে গিয়ে হুল্লোড় করেন। আর ঠিক সময়ে চলে আসে অর্ডার করা খাবার। রান্নাটা লিস্ট থেকে বাদ দেন কোনও কোনও গ্রুপ। আপনার পিকনিকটা কোন ধরনের, সেটা ঠিক করুন আগে। অর্থাৎ স্পটে গিয়ে রান্না করবেন নাকি খাবার অর্ডার করবেন, সেই ডিসিশন নিয়ে নিন আগেই।

৩) সবার বয়স দেখে নিন

আপনাদের দলে কতজন অ্যাডাল্ট থাকছেন, আর কতজন শিশু সেই হিসেব মাথায় রেখে মেনু সেট করতে হবে। কারণ শিশুর সংখ্যা বেশি থাকলে, তাদের জন্য কম ঝালের রান্না বা হালকা রান্নার ব্যবস্থা রাখতে হবে। আবার দলে টিনএজার বেশি থাকলে তাদের পছন্দ মতো রাখতে হবে স্পাইসি ফুড।

৪) অ্যালার্জির বিষয় মাথায় রাখুন

আপনাদের দলের কারও কোনও খাবারে অ্যালার্জি রয়েছে কিনা, তা জেনে নিন আগে থেকেই। তার একটা লিস্ট করুন। চিংড়ি মাছ বা বেগুনে অনেকের অ্যালার্জি থাকে। মেনুতে যাতে সেই ধরনের খাবার না থাকে, সেটা খেয়াল রাখা জরুরি।

৫) মুখরোচক

মেনকোর্সের পাশাপাশি প্রপার স্ন্যাক্সের ব্যবস্থাও রাখুন পিকনিকে। কারণ পিকনিক মানেই পানীয়র ব্যবস্থা থাকে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে। সেখানে স্ন্যাক্স লাগবে। আবার যারা পানীয়তে আগ্রহী নন, তাদেরও আলাদা রিফ্রেশমেন্টের প্রয়োজন হবে। ফলে মেনকোর্স সেট করতে গিয়ে স্ন্যাক্সের কথাটা ভুলে গেলে চলবে না।

৬) কে কোনটা পছন্দ করে

আপনি হয়তো পিকনিকে গিয়ে মাংস-ভাত খেতে ভালবাসেন। আপনার দলের হয়তো আরও তিনজনের সেটাই পছন্দ। কিন্তু বেশিরভাগের পছন্দ চাইনিজ খাবার। তাই যারা পিকনিকে যাচ্ছেন, তাদের বেশিরভাগের কোন খাবার পছন্দ সেটা জেনে নিয়ে মেনু ঠিক করুন।

৭) মাথায় রাখবেন

ধরুন পিকনিক স্পটে পৌঁছনোর সময় বাসেই আপনি ব্রেকফার্স্ট সার্ভ করবেন। সেক্ষেত্রে এমন কিছু মেনুতে রাখুন, যা বাসে বসেও খেয়ে নেওয়া যায়। লুচি থাকলে শুকনো তরকারি রাখুন। ঝোল ঝোল আলুরদম বা ঘুগনি পছন্দ হলেও প্র্যাকটিক্যাল কারণেই তা বাদ রাখতে হবে।

আশা করছি কিভাবে পিকনিকের প্ল্যান করবেন সেটার কিছুটা হলেও গাইডেন্স দিতে পারলাম। মাথায় রেখে নেমে পড়ুন প্ল্যানিং করতে। তাই পিকনিকে জমিয়ে মজা করুন আর প্রাণ ভরে খান।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।