জেনে নিন লিপগ্লস লাগানোর সঠিক উপায় (How to apply lip-gloss correctly?)

  • by

কমলালেবুর কোয়ার মত টুসটুসে রসালো ঠোট কার না ভালো লাগে বলুন তো আর তার জন্য দরকার লিপস্টিক আর সেই সঙ্গে লিপগ্লস ।লিকুইড লিপস্টিক এর চড়া রং যাদের পছন্দ নয়, তারা বেছে নিতেই পারেন লিপগ্লস এর মোলায়েম উজ্জ্বলতা। ম্যাট লিপস্টিক এর শুকনো ভাব ঢাকতেও লিপগ্লস খুবই কাজের।

আপনি যদি ভেবে থাকেন নিজের মেকআপ কীটে লিপগ্লস রাখবেন, তাহলে চট করে চোখ বুলিয়ে নিন কিছু খুঁটিনাটি তে।

কিভাবে বেছে নেবেন লিপগ্লস

হালকা লিপগ্লস কেনাই সবচেয়ে ভালো। একটু রঙের আভাস চাইলে হালকা রঙের লিপগ্লস কিনতে পারেন। গাঢ় রঙের গ্লস না পড়াই ভালো। গাড়ো গ্লাস খুব দ্রুত স্মাচ হয়ে গিয়ে আপনার লুক নষ্ট করতে পারে।

অনলাইনে লিপগ্লস কিনবেন না

লিপস্টিক বা ব্লাশারের মতই অনলাইনে লিপগ্লস কেনার সমস্যা হলো আপনি রংটা পুরোপুরি বুঝতে পারবেন না। তবে যদি কিনেই ফেলেন আর কেনার পর রং পছন্দ না হয় তাহলে ক্লিয়ার গ্লাস এর সঙ্গে মিশিয়ে পড়তে পারেন পেট্রোলিয়াম জেলি তে গাঢ় রঙের লিপগ্লস মেশানো তে একটা নতুন রং পাবেন। লিপগ্লসে হালকা ম্যাট এফেক্ট আনতে চান?তাহলে সামান্য কনসিলারের সঙ্গে মিশিয়ে পড়ুন।

লিপ গ্লস লাগানোর আগে কিভাবে ঠোঁট প্রস্তুত করবেন

ঠোঁটে লিপগ্লস সেট করার পর ঠোঁটের রেখা আর খাঁজগুলো খুব স্পষ্ট হয়ে যায় তাই আপনার ঠোঁট যদি ফাটা থাকে, তাহলে ফাটাভাব স্পষ্ট চোখে পড়বে তাই লিপগ্লস পড়ার আগে ঠোঁট এক্সফলিয়েট করে মৃত চামড়া তুলে ফেলুন যাতে ঠোঁট মসৃণ হয়ে যায়।

লিপ গ্লস পড়ার আগে কি লিপবাম লাগানো দরকার

ফুটের উপরে হালকা তেল মাখলে জেএফেট হয় লিপগ্লসও সেই একই এফেক্ট আসে তাদের শুধু লিপগ্লস পরলে ঠোঁটের উপর টা কালো হয়ে যেতে পারে। তাই লিপগ্লস পড়ার আগে ঠোঁটে অবশ্যই লিপবাম দেবেন।আর লিপবাম যেন spf যুক্ত হয়।

লিপ গ্লস পড়ার পর ঠোঁট ঘষবেন না

লিপস্টিক পরার পর উপরের ঠোঁট আর নিচের ঠোঁট জোড়া করে ঘষে নেওয়ার অভ্যাস আমাদের সকলেরই রয়েছে। কিন্তু লিপ গ্লস পড়লেও এ অভ্যাস থাকলে চলবে না। কারণ তাতে লিপগ্লস সরে গিয়ে ঠোঁটের ধারে জমে যাবে ,আর ঠোঁটের ধারগুলো অনাবৃত থেকে যাবে। ফলে আপনার লুকের বারোটা বাজা শুরু। শুধু এটুকুই যথেষ্ট নয় তাই না।

মুখের সবচেয়ে স্পর্শকাতর অংশ হলো তোর ঠোঁট। ঠোঁট এর ত্বকের তেলগ্রন্থি না থাকায় এটা বেশি শুষ্ক দেখায়। কথিত আছে প্রাচীন গ্রিক পুরাণে সৌন্দর্যের ও প্রেমের দেবীর ঠোঁট ছিল একেবারে রক্তিম গোলাপের মতো ।এমন ঠোঁট পাওয়ার জন্য রমণীরা মধু ,গোলাপ,জলপাই এর তেল ব্যবহার করত। এখন অবশ্য বাজারে নিত্য নতুন উপাদান এসে যাওয়ায় এই সমস্ত জিনিসের প্রচলন উঠে গেছে একেবারে। তবে শীতকালে আর্দ্রতার একেবারেই কমে যায় ফলে ঠোঁট ফেটে যাওয়ার সমস্যা দেখা যেতে পার প্রায় সকলেরই।

এই লিপগ্লস যদি আপনার ব্যাগে থাকে সারা দিনের ক্লান্তি দূর করে আবারও একটা ফ্রেশ্ লুক ফেরাতে পারে, সাথে ঠোঁটের আর্দ্রতা বজায় রাখে। খালি ঠোঁটটা একটু রাঙিয়ে নিলেই হল। ভালো মানের একটি লিপগ্লস কিনতে হাজার টাকার দরকার হতে পারে এখন থেকে খরচা টা একটু বাঁচিয়ে ফেলতে পারেন।

কিভাবে নিজেই বানাবেন লিপ গ্লস?

প্রস্তুত প্রণালীঃ নারকেল তেল কোকো বাটার ও চকলেট চিপস কম আছে গলিয়ে মিশন 5 মিনিট এভাবে নিয়ে ভিটামিন ই ক্যাপসুল দিন তার মধ্যে। কয়েক ফোঁটা রোজ অয়েল মেশাতে পারেন। ভালোভাবে মিশিয়ে ছোট কন্টেইনারে রাখুন ঠাণ্ডা হয়ে ঠোঁটের আগায় এই লিপগ্লস গরমে গলে যেতে পারে তাই ব্যাগে না রাখাই ভালো। এটিকে ফ্রিজে রেখে ব্যবহার করতে পারেন।

এছাড়াও ঠোঁটের উপযোগী আরো একটি উপায় এই লিপগ্লস তৈরি করতে পারেন। চলুন এখানে কি কি লাগছে দেখে নেওয়া যাক।

উপকরণ: অলিভ অয়েল 1 টেবিল, চামচ মোম 1 টেবিল চামচ, মধু 1 টেবিল চামচ ,কোকো পাউডার, চকলেট চিপস তিনটি ভিটামিন ই ক্যাপসুল একটি।

প্রস্তুত প্রণালী : একটি পাত্রে অলিভ অয়েল, মোম, মধু ,কোকো পাউডার ও চকলেট চিপস অল্প আঁচে গলিয়ে নিন। গলে যাওয়া পর্যন্ত ভালোভাবে নেড়ে নিন। ভিটামিন ই ক্যাপসুল তারপরে দিন ওই মিশ্রণের মধ্যে তারপর সেটি মিশিয়ে কন্টেইনারে রাখুন এবং ঠাণ্ডা করে ব্যবহার করুন। তাহলেই তৈরি হয়ে গেল ঘরোয়া পদ্ধতিতে লিপ গ্লস।

তো এইবার সবটাই আপনার জানা হয়ে গেল, কেমনভাবে এপ্লাই করলে, লিপগ্লসের রং বেশি ফুটে উঠবে? আবার প্রয়োজনে নিজের বাড়িতেই বানিয়ে নিন মনের মতন লিপগ্লস।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।