COVID-19 ও সোশ্যাল ডিসট্যান্স কিভাবে মানসিক স্বাস্থ্যের উপর প্রভাব ফেলছে (How COVID-19 and Social Distance Affect Mental Health)

বর্তমানে আমরা সকলেই সোশ্যাল ডিসট্যান্স বজায় রেখে চলছি নিজেদেরকে সুরক্ষিত রাখার জন্য, কিন্তু এই দূরত্ব অনেক সময়েই আমাদের মনের মধ্যে বাসা বাঁধছে যা খুবই কষ্টকর।

সারা বিশ্ব যেন কেমন থমকে গেছে,সকলেই আমরা বলতে গেলে গৃহবন্দি হয়ে পড়েছি, সোশ্যাল মিডিয়া এবং খবরের চ্যানেল এখন উত্তাল হয়ে আছে করোনা ভাইরাসের খবরে। নিউজ চ্যানেলগুলি নানা রকমের চমকপ্রদ তথ্য নিয়ে হাজির হচ্ছেন প্রতিদিন। দিনে দিনে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। একে অপরকে সচেতন করার কথা বারবার বলা হচ্ছে। অন্যদিকে আবার করোনা ভাইরাস এড়ানোর জন্য মাস্ক এবং জীবাণুনাশকারী হ্যান্ড স্যানিটাইজারের আকাল পড়ে যাচ্ছে বাজারে।

লকডাউনের প্রভাব

Spark.Live এর স্বনামধন্য মনোবিদদের সঙ্গে পরামর্শের জন্য লিংকটিতে ক্লিক করুন-https://spark.live/consult/mindfulness-online-session-in-bangla-with-priti-dey

লকডাউনের অর্থ হল সারা দিন আপনাকে বাড়িতে থাকতে হবে। আপনি বাড়িতে বসে বসে যা খুশি করুন, কেউ কিচ্ছুটি বলবে না, তবে বাড়ির বাইরে পা রাখা নিষেধ। বাড়ি বসে বসে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঠিক ভুল নানা তথ্য পাচ্ছেন আর এদিকে লাফিয়ে লাফিয়ে আপনার টেনশন, অ্যাংজাইটি আর ব্লাড প্রেশার বাড়ছে। এ যেন এক উল্টো বিপদ দোয়া দাঁড়িয়েছে। একে করোনায় রক্ষা নাই, অ্যাংজাইটি হয়ে দাঁড়িয়েছে আরেক শত্রূ। কিন্তু এ অবস্থায় কীভাবে অ্যাংজাইটি থেকে মুক্তি পাবেন, কীভাবেই বা নিজেকে মানসিকভাবে সুস্থ রাখবেন, সেই নিয়ে রইলো কিছু তথ্য।

মানসিক স্বাস্থ্যকে কিভাবে ঠিক রাখবেন

Spark.Live এর স্বনামধন্য মনোবিদদের সঙ্গে পরামর্শের জন্য লিংকটিতে ক্লিক করুন-https://spark.live/consult/keep-your-soul-happy-online-bangla-consultation-session-with-psychologist-somdutta-banerjee

সারাদিন বাড়িতে রয়েছেন এবং খুব অল্প খরচে ইন্টারনেট পরিষেবা পেয়ে যাচ্ছেন বলে সারদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুলভাল খবর পড়ার কোনও প্রয়োজন নেই। একবারও বলছি না করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত কোনও খবর রাখবেন না, কিন্তু ভুয়ো খবরে কান না দিয়ে অথেন্টিক সূত্রের খবরে মন দিন। আপনি ঠিক কী কারণে অ্যাংজাইটিতে ভুগছেন সে ব্যাপারে সচেতন হন। করোনা ভাইরাস প্যানডেমিকভাবে ছড়িয়ে পড়ছে সেই ভয়ে আপনার রাতের ঘুম উড়ে যাচ্ছে নাকি বাকি সবাই ভয় পাচ্ছে বলে আপনিও ভয় পাচ্ছেন সেই বিষয়টি একবার ভেবে দেখুন।

অকারণে আতঙ্কে থাকবেন না

Spark.Live এর স্বনামধন্য মনোবিদদের সঙ্গে পরামর্শের জন্য লিংকটিতে ক্লিক করুন- https://spark.live/consult/reduce-stress-anxiety-fear-depression-through-psychological-counselling-srimonti-guha

আপনি এবং আপনার পরিবারের লোকজন যদি ঠিকভাবে প্রতিটি নিয়ম মেনে চলেন অর্থাৎ বার বার করে সাবান দিয়ে হাত ধোওয়া, স্যানিটাইজার দিয়ে হাত ও বাড়ির অন্যান্য জিনিসপত্র জীবাণুমুক্ত করা, বাইরে না বেরনো ইত্যাদি – সেক্ষেত্রে তো আপনার ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। আপনাকে যদি একান্তই বাইরে বেরতে হয়, সেক্ষেত্রে মাস্ক পরে তবেই বাইরে বেরন। বাইরের কাউকে এ মুহূর্তে নিজের বাড়িতে আসতে দেবেন না অথবা আপনি নিজেও অন্য কারও বাড়ি গিয়ে আড্ডা দেওয়ার কথা ভাববেন না। বাড়িতে থাকার অভ্যেস অনেকেরই নেই, কিন্তু করোনা ভাইরাসের প্রকোপ আটকাতে গেলে এখন কিছুদিন গৃহবন্দি দশা কাটাতে হবে। কিচ্ছু করার নেই! খুব বেশি অ্যাংজাইটি হলে বন্ধুদের সঙ্গে বা পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলে নিন

সোশ্যাল ডিসট্যান্স এবং মানসিক স্বাস্থ্যে তার প্রভাব

Spark.Live এর স্বনামধন্য মনোবিদদের সঙ্গে পরামর্শের জন্য লিংকটিতে ক্লিক করুন-https://spark.live/consult/online-mental-wellness-session-psychologist-rakhi-sengupta-bangla

করোনা আতঙ্ক এবং লকডাউনে গৃহবন্দি জীবন এক নিমেষে পাল্টে দিয়েছে আমাদের। বদলে দিয়েছে চারপাশের সব কিছু। ভবিষ্যতের পৃথিবী কেমন হতে পারে, তা আমাদের অজানা। প্রতিদিন বাড়িতে থেকে অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ নিয়ে টেনশন চলছে প্রত্যেকের। আর এর মধ্যেই যেন বদলে যাচ্ছে সম্পর্কগুলোও। বিভিন্ন গবেষণায় উঠে আসছে এমন তথ্য যে এই পরিস্থিতিতে অন্য অনেকের তুলনায় নাকি গৃহবধূরা অনেক বেশি মানসিক স্ট্রেসে রয়েছেন। আমাদের সামাজিক কাঠামোয় এখনও পর্যন্ত অর্থনৈতিক স্বাধীনতা যাঁদের রয়েছে, পরিবারে তাঁদের কথারই দাম দেওয়া হয়। এখনও পর্যন্ত অধিকাংশ গৃহবধূ অর্থনৈতিক ভাবে স্বাধীন নন। তার জন্য সমস্যাতে তাঁরা আগেও ছিলেন। এখন যেন সেই সমস্যা আরও বেড়েছে। সাধারণত গৃহবধূদের উপর সংসার সামলানোর দায়িত্ব থাকে। বাড়ির পুরুষ সদস্য রোজগেরে। তিনি প্রতিদিন বেরিয়ে যান। আর গৃহবধূ সংসার সামলান। এটাই আমাদের বেসিক কাঠামো। এখন সেই পুরুষ সদস্য বাড়িতে। বাড়ির কাজ করার অভ্যেস হয়তো তাঁর নেই। কোনও ক্ষেত্রে ইচ্ছেরও অভাব রয়েছে। এতদিন গৃহবধূ সে সব কাজ সামলাতেন নির্দিষ্ট সময়ে। এখন সেই সময় ঘেঁটে গিয়েছে। ফলে সর্বক্ষণ বাড়ির পুরুষ সদস্যের প্রয়োজনীয় জিনিস হাতের কাছে পৌঁছে দিতে তিনি হিমশিম খাচ্ছেন। বাড়ছে মানসিক চাপ।

কেন হচ্ছে এই মানসিক অবসাদ

Spark.Live এর স্বনামধন্য মনোবিদদের সঙ্গে পরামর্শের জন্য লিংকটিতে ক্লিক করুন-https://spark.live/consult/online-mental-health-counselling-in-bangla-with-ankhee-gupta

আমাদের অভ্যেস সকলেরই এখন সম্পূর্ণ বদলে গেছে, যে মানুষগুলো রোজ সকাল হলেই অফিস এ বেরিয়ে যেত তারা এখন সারা দিন বাড়িতে। বাড়িরই ছেলে মেয়েরা স্কুল কলেজ না যেতে পেরে মন খারাপ করে বাড়িতে থাকছেন। প্রতিদিনের কাজে আমাদেরকে বাড়িতে যাঁরা সাহায্য করেন, এখন তাঁদের ছুটি দেওয়া হয়েছে। ফলে বাড়ির সব কাজ সামলাতে গিয়ে চাপ বেড়েছে মনের উপরেও। বাড়ির পুরুষ সদস্য বেরিয়ে গেলে এতদিন পর্যন্ত নিজের জন্য কিছুটা সময় পেতেন গৃহবধূ। সে সময় হয়তো বই পড়তেন, বাগান করতেন, ফোনে গল্প করতেন অথবা ঘুমিয়ে নিতেন। এখন সেই অবসর আর নেই। পাশাপাশি বাড়ির পুরুষ সদস্যেরও স্পেস প্রবলেম হচ্ছে। ভবিষ্যতের অর্থনৈতিক চিন্তা এখন দুঃসহ হয়ে উঠেছে সকলের কাছেই। অনেক বাড়িতেই পুরুষেরা বাড়ির কাজে গৃহবধূদের সাহায্য করতে এগিয়ে আসছেন। কিন্তু বহু ক্ষেত্রে গৃহবধূরাই যেন সেই পরিস্থিতি মেনে নিতে পারছেন না। পিতৃতান্ত্রিক পরিবেশ তাঁদের শেখায়নি পুরুষরাও বাড়ির কাজ করতে পারেন। ফলে বাড়ির অন্যান্য সদস্যদের গঞ্জনার শিকার হচ্ছেন গৃহবধূরাই। সর্বোপরি লকডাউনের পরিস্থিতিতে গার্হস্থ্য হিংসার পরিমাণ বেড়েছে অনেকটাই।

মানসিক ডিসট্যান্স যেন না বাড়ে

Spark.Live এর স্বনামধন্য মনোবিদদের সঙ্গে পরামর্শের জন্য লিংকটিতে ক্লিক করুন-https://spark.live/consult/keep-your-soul-happy-online-bangla-consultation-session-with-psychologist-somdutta-banerjee

যতই আমরা এখন সকলের থেকে দূরে থাকিনা কেন, তাদের সঙ্গে মানসিক যোগসূত্র যেন আমাদের অটুট থাকে এটা খেয়াল রাখতে হবে। আগে হয়তো সন্ধে হলেই অফিসের পর আমরা বন্ধুদের সঙ্গে একটু আড্ডা দিতাম, আর উইকেন্ড হলেতো কোথায় নেই সিনেমা খাওয়াদাওয়া মল এ ঘোড়া এটাই যেন ছিল আমাদের রুটিন। কিন্তু এই বদলটাও আমাদের মেনে নিতে হবে আর সেটা আমাদেরই ভালোর জন্য। ধীরে ধীরে সবই স্বাভাবিক হয়ে যাবে হয়তো এই সময়টাই স্ট্রেস হচ্ছে মারাত্মক কিন্তু তা কিন্তু চিরস্থায়ী নয়।
তাই এখন মনকে বোঝান আর আগামী দিনের জন পরিকল্পনা করতে শুরু করুন। যা যা ইচ্ছে এতদিন চেপে রেখেছেন ধীরে ধীরে সবই পূরণ করতে পারবেন শুধু একটু ধৈর্য ধরলেই খেলাফতে।

Spark.Live এর স্বনামধন্য মনোবিদদের সঙ্গে পরামর্শের জন্য লিংকটিতে ক্লিক করুন-https://spark.live/consult/mindfulness-online-session-in-bangla-with-priti-dey


Spark.Live এ আমাদের সঙ্গে রয়েছেন স্বনামধন্য সব মনোবিদেরা যারা আপনাদের মনকে এই কঠিন সময়েও ভালো রাখতে সহায়তা করবে এবং সকলের সঙ্গে মানসিক যোগসূত্র তৈরী করে রাখার ক্ষেত্রে আপনাদের সাহায্য করবেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।