পিয়াঁজের তেল ধন্বন্তরি নতুন চুল গজানোর ক্ষেত্রে (Homemade Onion oil helps to regrowth hair)

  • by

চুলের রিগ্র্যথ – কথাটি এখন কেউ ছোট করে মানতে চান না। কারণ চুল পড়ার সমস্যা এখন কম বেশি প্রত্যেকের। চিরুনি দেওয়া মাত্র চুল ওঠা স্টার্ট। হ্যা কেউ কিন্তু চুপ করে বসেও থাকেন না। এই সমস্যা নিরাময়ের জন্য যথাসাধ্য করেন। এই চুলে রকমারি তেল লাগানো। বাজার চলতি, মানে কোনো হেয়ার প্রোডাক্ট যেটির বিজ্ঞাপনের প্রচার তুঙ্গে, আবার নিজের শ্যাম্পু এর ওপর আস্থা হারিয়ে, শ্যাম্পু পরিবর্তন করা- সকল জিনিস করেও, কোনো ফলই দেখা যায় না।

কিন্তু আমরা কেউ একবার ভাবিই না যে, আমাদের বাড়িতে রান্না ঘরেই রয়েছে চুল পড়ার সমস্যা নিবারণের উপযুক্ত ওষুধ। কথা বলছি পিয়াজের। বলা হয়, চুলের জন্য ছাঁচি পিয়াঁজ সবচাইতে ভালো। কিন্তু বড় পেঁয়াজের জাদুও কম নয়।

আসলে পিয়াঁজের মধ্যে থাকা সালফার হলো সব চাইতে উপকারী আমাদের চুলের জন্য। মূলত এটি চুল পড়া তো কমেই, সাথে অদ্ভুতভাবে, নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। যদি কেউ প্রতিদিন স্নানের আধ থেকে এক ঘন্টা আগে, চুলের সামনে বা যেখানে চুল কম সেই জায়গাগুলিতে পিয়াঁজের তেল লাগান, তার চুল গজাবেই। আর এর মধ্যে থাকা পর্যাপ্ত পরিমানে এন্টি অক্সিডেন্ট চুলের পুষ্টি জোগাতে সাহায্য করে।

চলুন দেখা যাক বাড়িতে কিভাবে বানাবেন ওনিয়ন হেয়ার অয়েল-

মাঝারি মাপের বা ছাঁচি পেঁয়াজ পরিমান মতো বেটে নিয়ে, একটি সুতির কাপড়ে রেখে তার নির্যাসটি বের করে নিন। এইবার একটি পাত্রে নিজের পছন্দ মতো নারকেল তেল নিয়ে অল্প আঁচে তা গরম করুন। একটু ফুটে উঠলে, তেলে পিয়াঁজের নির্যাস সাথে পিয়াঁজ বাটা পুরোটাই দিয়ে ফুটাতে থাকুন। সাথে দিতে পারেন, সামান্য পরিমাণ কালো জিরে এবং কারি পাতা গোটা মিশ্রণটি আধ ঘণ্টা থেকে ৪০ মিনিট পর্যন্ত অল্প আঁচে ফুটতে দিন। যতক্ষণ পর্যন্ত পেঁয়াজ বাদামী রঙ হচ্ছে ফোটাতে থাকুন। এরপর সেটিকে নামিয়ে কোনো কাঁচের বোতলে ভোরে রাখুন। স্নানের আগে মাখুন বা রাতে তেল সামান্য গরম করে চুলের গোড়ায় ম্যাসাজ করুন। ফল পাবেনই।

কি কি ভাবে উপকার করে-

১। পেঁয়াজের মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট চুলের বৃদ্ধিকে তরান্বিত করতে সাহায্য করে।
২।চুলের ফলিকলের মাত্রা মান উন্নত করে। ফলে চুলকে গোড়া থেকে শক্ত করে।
৩।পেঁয়াজের তেল যদি নিয়মিত মাথার সামনের অংশে লাগানো যায় তাহলে সেখানে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে।

মানে বলা চলে এক কোথায় ধন্বন্তরি। আমাদের এই টিপস আপনাদের কতটা সাহায্য করল, কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।