দুর্গাপুজোয় আনন্দ করুন তবে স্বাস্থ্যের খেয়াল নিতে ভুলবেননা(Enjoy Durgapujo but don’t forget to take care of your health)

পুজোর গন্ধে চারিদিক ভোরে উঠেছে, যতই এই বছরের পুজো সকলের কাছে আলাদা হোক না কেন। ঝকঝকে নীল রঙের আকাশে, পেজা তুলোর মতো মেঘ আমাদের জানান দিচ্ছে মা দুর্গার আগমনী বার্তা। পুজোর আমেজে নিজেকে মাতিয়ে রাখতে কেই বা চান না বলুন? কমবয়সিরাই কেবল পূজোয় আনন্দ করবেন, আর বাকিরা অসুস্থ হওয়ার ভয়ে বাড়িতে বসে ছুটি কাটাবেন, এমনটা মোটেও নয়। পুজোর ক’টা দিন ডায়েট ভুলে জমিয়ে খাওয়াদাওয়া আর আড্ডার সুবর্ণ সুযোগ। তবে বয়স যা-ই হোক না কেন, অতিরিক্ত অনিয়ম করলে কিন্তু পুজোর পরেই বিপদের সম্ভবনা প্রবল হবে৷ তাই আনন্দ করুন কিন্তু কিছু বিষয়কে মাথায় রেখে।

দূর্গা পুজো ২০২০

পুজো মানেই দীর্ঘ দিনের অপেক্ষার পর পুরনো বন্ধুদের আবার দেখা। জমিয়ে আড্ডা আর পার্টি, পুজোর কটা দিন আনন্দ অবশ্যই উপভোগ করুন তবে বেলাগাম ভাবে নয়। এক একটা বয়সের জন্য নির্দিষ্ট রয়েছে এক একটা নিয়ম। অসুস্থ হলে এক রকম ভাবে আনন্দ করতে হবে, সুস্থ হলে আর এক রকম ভাবে। কোন কোন নিয়ম মানলে আনন্দও করতে পারবেন আবার শরীরও বিগড়োবেনা আসুন একটু জেনে নেওয়া যাক।

কম বয়সীদের পুজোর প্ল্যান

মদ্যপানের পরিকল্পনা না রাখাই ভাল। শরীরের জল শুষে নিয়ে শরীরকে শুষ্ক করে তোলে অ্যালকোহল। তবুও যদি সেই পরিকল্পনা একান্তই থাকে তা হলে সারা দিন বেশি করে জল খান৷ খালিপেটে নয়, বরং সামান্য মদ্যপানও ভরা পেটে করুন। তার সঙ্গে ভাজাভুজি এড়িয়ে উপযুক্ত অথচ স্বাস্থ্যকর খাবার রাখুন। এতে অ্যালকোহলের পরিমাণ যেমন নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন, তেমনই মদ শরীরের পেশী ও স্নায়ুকেও অতিরিক্ত উত্তেজিত করতে পারবে না।

আরও পড়ুন-বাড়তি ওজন কমিয়ে ফেলে পুজোর আগেই হয়ে উঠুন ফিট এন্ড ফাইন(Lose excess weight and become fit and fine before Pujo)

হ্যাংওভার হইতে সাবধান

গ্যাস অম্বলের ধাত থাকলে এবং অনিয়মে তা বাড়বে বলে মনে হলে পার্টির আগে অম্বলের ওষুধ খাবেন কি না সে পরামর্শ চিকিৎসকের কাছে নিন৷ নইলে এক কাপ জলে এক চামচ জিরে সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। সকালে খালি পেটে সেই জল খেয়ে নিন। গ্যাস অম্বলকে বুড়ো আঙ্গুল দেখানোর মোক্ষম দাওয়াই। পার্টি সচরাচর রাত্রেই হয়৷ সে ক্ষেত্রে দিনে যথাসম্ভব হালকা ঘরোয়া খাবার খাওয়াই ভাল। রাতে পার্টি থাকলে সম্ভব হলে দুপুরে একটু গড়িয়ে নিন৷

বয়স্ক ও মধ্যবয়সের পুজো কাটুক আনন্দে

পুজোর কোটা সেদিন নিয়মিত যে সব ওষুধ খান, তা খেতে ভুলবেন না৷ প্রেশার, সুগার, পেট বা হার্টের রোগ, হাই কোলেস্টেরল ইত্যাদি থাকলে পার্টিতে যাওয়ার আগে হালকা খাবার খান৷ পেট ভরা থাকলে নিষিদ্ধ খাবারের টান কমবে৷ হৃদরোগ, মৃগী বা কোনও জটিল ক্রনিক অসুখ থাকলে কিংবা বয়স বেশি হলে খুব বেশি রাত পর্যন্ত বাইরে না কাটানোই ভাল৷ ঘুমের অভাব হলে সমস্যা বাড়তে পারে৷ আর্থ্রাইটিসের রোগী হাই হিল জুতো না পরে প্ল্যাট জুতো পরেই সাধ মেটানো ভালো। কোষ্ঠকাঠিন্যের ধাত থাকলে ল্যাকটুলোজ বা ইসবগুল খেতে হতে পারে দু’–এক দিন৷

আরও পড়ুন-মহালয়া মানেই মা দুর্গার আগমন বার্তা (Mahalaya means the arrival message of mother Durga)

মদ্যপানের আছে কিছু বিশেষ নিয়মাবলী

মদ্যপান করলে অবশ্যই খেয়াল রাখুন হ্যাংওভারের বিষয়টিও। পরের দিনের যাবতীয় কাজ পণ্ড করতে না চাইলে ও শরীরকে অকারণে ব্যস্ত করতে না চাইলে মদ্যপানের দিন মেনে চলুন কিছু নিয়মকানুন। হ্যাংওভার কাটানোর প্রথম ও প্রাথমিক শর্ত, পরিমিতিবোধ। কোনও ভাবেই অতিরিক্ত মদ্যপান নয়। সুস্থ্য থাকুন আনন্দে থাকুন তবেই আগামী বছর গুলোর পুজোতেও আনন্দ করার অবস্থায় থাকবেন। নয়তো শরীর সঙ্গ না দিলে মনও কিন্তু ক্লান্ত হয়ে পড়বে।

Spark.Live এ রয়েছেন ভারতের বিশিষ্ট ডায়েটিশিয়ানরা

বর্তমানে দেশের নিজস্ব অ্যাপের মধ্যে Spark.Live অন্যতম। একাধিক বিশিষ্ট পুষ্টিবিদরা যুক্ত হয়েছেন Spark.Live এ, এবং তারা অনলাইন কন্সালটেশনের সুযোগ রাখছেন আপনাদের সকলের জন্যই। দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা কেন্দ্রীভূত করে আপনাদের ডায়েটের যেকোনো ধরণের সমস্যার সমাধান খুব সহজেই করে দিচ্ছেন আমাদের ডায়েটিশিয়ানরা দক্ষতার সঙ্গে এবং সব থেকে সুবিধে হল নিজের বাড়িতে বসেই স্বল্প মূল্য ব্যায় করে আপনারা নিজেদের ডায়েট চার্টটি পেয়ে যাবেন।

তাই আর দেরি না করে, আজই নিজের সেশন বুক করুন এই লিংকটিতে ক্লিক করে-https://spark.live/consult/category/all/?page=2&lang=en

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।