পান পাতা কি সেক্স উদ্দীপক হিসেবে কাজ করে? (Do you know that betel leaf is an aphrodisiac?)

  • by

ছোট থেকেই মা ঠাকুমাদের দুপুরে খাওয়ার পর, সন্ধ্যাকালীন আড্ডা, কিংবা সকালে প্রাতরাশ করার পর পান সেজে খেতে দেখতাম। কি সুন্দর পানের বাটা থেকে পান বের করে সুন্দর করে সাজিয়ে খেতেন তারা। তবে এখন মা ঠাকুমাদের সেই অভ্যেস বিশেষ দেখা যায় না।

কিন্তু এখনও যে কোনও নেমন্তন্ন বাড়ির শেষ পাতে পান না পেলে ঠিক তৃপ্তি পান না অনেকে। পান বানানোর হাতের গুণে বিশেষ বিশেষ দোকান তো রীতিমতো সেলিব্রিটি স্টেটাস অর্জন করে ফেলেছে! শুধু মুখশুদ্ধিই নয়, খাবার হজম করাতে পানের রস খুবই কাজের। তবে এর মধ্যে সবচাইতে যেটি বিস্ময়কর বিষয়, সেটি হল পান পাতা সেক্স উদ্দীপক রূপে কাজ করে। চলুন এই বিষয়টির ওপরই কিছুটা আলোকপাত করা যাক।

আয়ুর্বেদিক গুরুত্ব-

আয়ুর্বেদের বই গুলি ঘাটলেই, পান পাতার কামোদ্দীপক হিসেবে কাজের বহু তথ্য মেলে। এমনকি এই পান খাওয়ার প্রথা ভারতীয়দের মধ্যে কোন যুগ থেকে সূচনা হয়েছিল তার সঠিক সময় অনুমান করা প্রায় অসম্ভব। তবে মুঘল আমল থেকেই বা বহুমত বলা চলে তার আগে থেকেই একটি প্রথার উল্লেখ পাওয়া যায় ইতিহাসের পাতায়- যৌন সঙ্গমের আগে মহিলা সঙ্গিনীরা নিজের হাতে পান সাজিয়ে পুরুষ সঙ্গীদের দিতেন, সাথে নিজেরাও খেতেন, এটি একটি বিশেষণ বা যৌন সঙ্গমের ইঙ্গিত রূপে কাজ করতো সেই সময়।

তারপর সেই প্রথার কিছুটা বদল হয়, বিবাহের পর প্রথম রাতে পান সাজিয়ে দেওয়ার প্রথা আসে। এই ক্ষেত্রেও বিবাহিতা স্ত্রীরাই দিতেন পান তাদের স্বামীকে। এমনকি বৈষ্ণব পদাবলী ঘাটলেও, দেখা যায়, শ্রী কৃষ্ণ পান দিয়েই রাধাকে নিজের প্রেমের কথা ব্যক্ত করেছিলেন। মোট কথায় সেই পুরোনো আমল থেকেই পান কিন্তু সেক্স উদ্দীপক রূপেই সকলের কাছে পরিচিত ছিল। পরে যদিও আধুনিকতার দৌড়ে, পান কামোদ্দীপক হিসেবে নিজের পরিচিতি কিছুটা হলেও হারিয়েছে, কিন্তু গুন্ কিন্তু একই রয়েছে।

অনেকেই পানকে মুখশুদ্ধি হিসেবে ব্যক্ত করে থাকেন। মানে মুখে একটি ভালো গন্ধ তৈরী করে। যেটি সঙ্গীকে আকর্ষণ করার বিশেষ গুন্ রাখে। আবার পানের রস রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে সাথে এনার্জি মানে শরীরে শক্তি যোগায়। যা একটি সুস্থ যৌন সঙ্গম কন্টিনিউ করার জন্য ভীষণ দরকার। কাজ থেকে ফিরে, রাতে ঘুমানোর আগে যদি আপনি পান খান, তা আপনার খাবার হজম করবে সাথে ক্লান্তি দূর করবে।

কিভাবে সাজাবেন পান-

পান সাজানোটা কিন্তু একটা আর্ট। এখন যেমন পাড়ার ঘুমটি পানের দোকানগুলিতে, বেশ কিছুটা চুন, সুপারি আর খয়ের দিয়ে কোনোমতে একটা পান সাজিয়ে দিতে পারলেই বাঁচে, আদতে ওই পান সাজানো আর পৌরাণিক কাল থেকে যে পান সাজানোর প্রথা আসছে তা একেবারেই আলাদা।

আগেকার দিনে, পাত্রপক্ষও মেয়ে দেখতে গেলে, হবু পাত্রীর পান সাজিয়ে দেওয়ার মধ্য দিয়েই শ্বাশুড়ি মা বেছে নিতেন নিজের পুত্রবধূকে। ভাবতে পারছেন কতটা গুরত্ব রয়েছে এই পানের, আমাদের পূর্বপুরুষদের জীবনে? পুরোনো বাঙালি বাড়িতে কিন্তু এখনো পানের বাটা মানে পান ও তার আনুষাঙ্গিক উপাদানগুলি রাখার আলাদা পাত্র দেখতে পাওয়া যায়। আগে যেগুলি নাকি এক একটি বাড়ির ঐতিহ্য বহন করতো।

প্রথমে পান পাতা জলে ভালো করে ধুয়ে নিয়ে, তাতে সামান্য চুন লাগিয়ে, মিহি করে কাটা সুপারি দিয়ে, লবঙ্গ ও নিজের পছন্দ মতো মুখশুদ্ধি যোগ করে বেশ সিঙ্গারার মতো মুড়ে পান সাজানো হতো। এইভাবে সাজানো পান কিন্তু সত্যি শরীরে কাম উদ্দীপক হিসেবে কাজ করে।

পানের মধ্যে এই গুণগুলি যে লুকিয়ে আছে জানতেন? আধুনিক যুগে পানকে আমরা অনেকটাই ব্যাকডেটেড এর তকমা দিয়ে নিজেদের জীবন থেকে দূরে সরিয়ে রেখেছি। কিন্তু আমি বলব সামান্য হলেও পান অবশ্যই রাখুন বাড়িতে। আশা করি পানের এই গুণগুলি দেখে, আপনার বাড়িতে নিশ্চই কিছুটা জায়গা করতে পারবে পানপাতা। আপনি কি পান খান? কমেন্টে জানান আমাদের।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।