Counseling Spark.Live Online

লাইসেন্স প্রাপ্ত থেরাপিস্ট, কাউন্সিলার, হিলার, মনোবিদদের সাথে কথা বলুন, নিজের বাড়িতে বসে, নিজের গোপনীয়তা বজায় রেখে।

ভারতের প্রথম সারির থেরাপিস্টদের সাথে যোগাযোগ করুন নিজের ভাষায় কথা বলে। নিজের বাড়িতে বসেই ভিডিও অথবা অডিও কলের মাধ্যমে তাদের থেকে নিজের সমস্যা-সম্বন্ধীয় পরমর্শ নিন।

অভিজ্ঞ ও খ্যাতিসম্পন্ন থেরাপিস্ট, কাউন্সিলার এবং হিলার

Spark.Live আপনাদের যোগাযোগ করার সুযোগ দিচ্ছে একাধিক থেরাপিস্ট, হিলার, কাউন্সিলার এবং মনোবিশেষজ্ঞদের সাথে, যারা প্রতিনিয়ত মানুষদের উপযুক্ত সেশনের মাধ্যমে, নতুন চিন্তামুক্ত জীবনের স্বাচ্ছন্দ্য উপভগ করতে অনুপ্রাণিত করছেন।

Rakhi Sengupta Counselor

Rakhi Sengupta (রাখি সেনগুপ্ত)

দীর্ঘ ২৮ বছরের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন সাইকোলজিস্ট রাখি সেনগুপ্ত

‘শ্রীমতি রাখি সেনগুপ্ত একজন প্রাইভেট প্রেক্টিশনার , ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটি থেকে মাস্টার্স করেছেন সাইকোলজি নিয়ে। মুরলীধর গারলস্ কলেজের একজন স্বনামধন্য প্রফেসার , শিক্ষকতায় বিগত ২৮ বছরের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন এবং প্রাইভেট ক্লিনিকে প্রাকটিস করে চলেছেন বর্তমানে। শ্রীমতি রাখি সেনগুপ্ত মূলত বাচ্চাদের সাইকোলজিক্যাল নানান ওঠা পড়া নিয়ে কাজ করেন দক্ষতার সঙ্গে এবং প্লের মাধ্যমে বাচ্চাদের চিকিৎসা করেন মূলত উনি এগুলোয় স্পেশালিস্ট।

Ankhee Gupta Counselor

Ankhee Gupta (আঁখি গুপ্ত)

সাইকোলজিকাল কাউন্সিলর

আঁখি গুপ্ত, -একজন সাইকোলজিকাল কাউন্সিলর,- মানে একজন মনোবিশেষজ্ঞ, সাথে একজন মোটিভেশনাল স্পীকার. আঁখি স্ট্রেস ম্যানেজমেন্ট থিওরির মাধ্যমে সকলের মানসিক অবসাদ বা মানসিক যে কোনো ধরণের চাপ কাটিয়ে তুলতে বহুল ভাবে সক্ষম. ভারতের আনাচে কানাচে তো বটেই, সাথে বিদেশেও উনি নিজের সেশন দিয়ে থাকেন. মানুষের জীবন আরো সুন্দর করে তুলতে, আরো সহজ করে তুলতে আঁখি সবসময় আপনাদের পাশে রয়েছেন.

Somdutta Banerjee Psychologist Counselor

Somdutta Banerjee (সোমদত্তা ব্যানার্জি)

অভিজ্ঞ শিক্ষাবিদ এবং মনোবিদ

শ্রীমতি সোমদত্তা ব্যানার্জি একজন অভিজ্ঞ শিক্ষাবিদ এবং মনোবিদ। বিগত ১৫ বছরের অভিজ্ঞতা রয়েছে তার এই জগতে, সোমদত্তা ব্যানার্জী কলকাতার এক প্রাচীন নামকরা স্কুলের মনোবিজ্ঞানের শিক্ষিকা। সেই সঙ্গে তিনি দীর্ঘ বহুদিন ধরে মানসিক ভারসাম্যহীন বাচ্চাদের নিয়ে কাজ করে চলেছেন। সোমদত্তা ব্যানার্জি ‘ইন্ডিয়ান সাইক্রিয়াটিক সোসাইটি’-র লাইফটাইম একজন মেম্বার এবং ‘অন্তরা’ নামক একটি সংস্থার সদস্যপদে নিযুক্ত রয়েছেন।

Sudarshana Dasgupta Therapist

Sudarshana Dasgupta (সুদর্শনা দাশগুপ্তা)

লাইসেন্সড ক্লিনিকাল সাইকোলজিস্ট

সুদর্শনা দাশগুপ্তা, একজন লাইসেন্সড ক্লিনিকাল সাইকোলজিস্ট| বর্তমানে তিনি Neuromax -এর সাথে কর্মরত. তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স আর রাঁচি ইউনিভার্সিটি থেকে এমফিল শেষ করেছেন| দীর্ঘ তিন বছর ধরে টানা তিনি এই সিবিটি পদ্ধতিটির ওপর কাজ করে চলেছেন| আরো একটি চমৎকার দিক তার ক্যারিয়ারের- সুদর্শনা কাজ করেছেন প্রখ্যাত স্ত্রীরোগবিশেষজ্ঞ ডাঃ রত্নাবলী চক্রবর্তী, মনোবিদ ডাঃ উদয় চৌধুরী এবং মনোবিদ ডাঃ অভিরুচি চ্যাটার্জীর সাথে. এছাড়াও সাইকোলজি বিষয়টির ওপর তিনি অধ্যাপনাও দিয়ে থাকেন|

Sulata Chaterjee Counselor Therapist

Sulata Chatterjee (সুলতা চ্যাটার্জি)

একজন বিশিষ্ট, অভিজ্ঞ ও আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন জ্যোতিষ ও রেইকি থেরাপিস্ট

সুলতা চ্যাটার্জি : একজন বিশিষ্ট, অভিজ্ঞ ও আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন জ্যোতিষ ও রেইকি থেরাপিস্ট| আধ্ম্যাতিকতার ওপর তার অনুপ্রেরণীয় কথা শুধু দেশে নয়, বিদেশেও একইভাবে প্রসিদ্ধ| তিনি Law of Attraction এর প্রশিক্ষণ নিয়েছেন ক্যালিফোর্নিয়া থেকে| আপনার জন্ম পত্রের কোনো সমস্যা বা বিবাহ জনিত সমস্যা বা যদি আপনার ক্যারিয়ার সংক্রান্ত কোনো সমস্যা হয়, তার কাছে আসতে পারেন নিশ্চিতে. সমস্যার সমাধান পাবেনই.

Arijita Bhattacharya Counseling

Arijita Bhattacharya (অরিজিটা ভট্টাচার্য)

প্রখ্যাত প্রাণিক হিলার ,ট্যারো রিডার এবং নম্বর তত্ববিদ

অরিজিতা কলকাতার একজন প্রখ্যাত প্রাণিক হিলার ,ট্যারো রিডার এবং নম্বর তত্ববিদ । ইনি কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের সাথে সাথে অধ্যাতিকের ব্যাপারে রিসার্চ করছেন গত ১৩ বছর ধরে। তিনি অনেক বছর ধরে হিলিং অভ্যাস করেছেন এবং মন, শরীর ও আবেগের নিয়ন্ত্রণ এবং সামঞ্জস্য রাখার ব্যাপারে একজন বিশেষজ্ঞ। মাইথলজিতে/ পুরাণে লুকোনো সায়েন্সের খোঁজ করা এবং জ্ঞানের আলোচনা করতে খুবই ভালোবাসেন। অরিজিত রিসার্চ শুরু করেছিলেন ১৩ বছর আগে জীবনের সত্যতা সন্ধানের জন্য , কিন্তু যত ঢুকেছেন সবকিছুতেই সায়েন্সের আলো দেখতে পেয়েছেন।

থেরাপি, কাউন্সিলিং এবং মানসিক স্বাস্থ্য উন্নতির কনসাল্টেশন পান

Priti Dey Therapy Counseling

মনের দিক থেকে সুস্থ্য থাকুন | Say Goodbye to Depression and Anxiety

প্রীতি দে মূলত আপনাদের পাশে থেকে আপনাদের এবং আপনাদের সন্তানদের জীবনের হারিয়ে যাওয়া আনন্দের মুহূর্ত গুলো ফিরিয়ে দিতে সাহায্য করবে, তাদেরকে সঠিক পথে চলতে সাহায্য করবে। সকলেই হয়ে উঠবেন সুস্থ্য উৎফুল্ল মনের অধিকারী।


Ankhee Gupta Counselor

হাসির কলরবে ভরিয়ে তুলুন জীবন

কি কি ভাবে সাহায্য করবেন কাউন্সিলার আঁখি গুপ্তা:
– তিনি স্ট্রেস ম্যানেজমেন্ট প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আপনার মানসিক চাপ কমাতে দক্ষ। 
– কাজের চাপ, বা সাংসারিক নানা অশান্তির কারণে বেড়ে চলা অবসাদ কমাতে তিনি সিদ্ধহস্ত 
– মানসিক ভাবে আমরা ভেঙে পড়লে অনেক সময়েই সঠিক পথ খুঁজে পাই না, এই অবস্থায় একজন সঠিক পরামর্শদাতা আমাদের প্রয়োজন।
– দীর্ঘতর দাম্পত্য জীবনেও অনেক সময় বাসা বাঁধে নানা মানসিক জটিলতার, সেই ক্ষেত্রে কিভাবে আপনি আপনার দাম্পত্য জীবনকে সঠিক ভাবে পরিচালনা করবেন, কিভাবে নিজের বৈবাহিক সম্পর্ককে সুখময় করে তুলবেন তার টিপস আছে তার কাছে


somdutta banerjee counseling therapy

মনের ক্যানভাসে সোমদত্তার সাথে

সোমদত্তা ব্যানার্জি একজন সুদক্ষ সাইকোলজিস্ট হিসেবে আপনাদের পাশে থেকে আপনাদের মনের যাবতীয় ওঠা পড়া সামলে নিতে সাহায্য করবেন, যেমন- এংজাইটি, ডিপ্রেশন এবং অন্যান্য মানসিক সমস্যাকে কিভাবে আপনারা অতিক্রম করে উঠবেন তার সমাধান সূত্র খুব সহজেই পেয়ে যাবেন সোমদত্তার কাছে। মানুষের বিভন্ন বয়সে যেসকল মানসিক অস্থিরতার সৃষ্টি হয় তারমধ্যে কাউন্সিলিং , চাইল্ড সাইকোলজি , আন্ডারস্ট্যান্ডিং , টিনেজ প্রব্লেম এবং বার্ধক্যজনিত নানান সমস্যার সমাধান দিতে সোমদত্তা ভীষণভাবে পারদর্শী।

কিভাবে Spark.Live কাজ করে

Spark.Live-আপনাদের সাথে পরিচয় করাচ্ছে- ভারতবর্ষব্যাপী বিভিন্ন রাজ্যের, বিভিন্ন ভাষাভাষির থেরাপিস্ট, কাউন্সিলার এবং মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে প্রফেশনালি কর্মরত বিশেষজ্ঞদের সাথে, যারা অনেকেই অনেক সংস্থার সাথেও যুক্ত। নিজের ভাষায় বিশেষজ্ঞদের সাথে কথা বলুন, তাদের অনুসরণ করুন, Spark.Live-এর প্ল্যাটফর্মে গিয়ে তাদের সাথে সরাসরি চ্যাট করতে পারেন, নানা প্রশ্নের উত্তর আপনি টেক্সট রূপে পেতে পারেন। কোনও বিশেষজ্ঞের সাথে কথা বলার আগে, তার থেকে পরামর্শ নেওয়ার আগে, Spark.Live-এর প্ল্যাটফর্মে দেওয়া তার বিভিন্ন ভিডিওগুলি দেখুন, তার সম্পর্কে একটি ধারণা পাওয়ার জন্য।


অভিজ্ঞ বিশেষজ্ঞদের খোঁজ পান

Spark.Live আপনাদের যোগাযোগ করার সুযোগ দিচ্ছে একাধিক থেরাপিস্ট, হিলার, কাউন্সিলার এবং মনোবিশেষজ্ঞদের সাথে, যারা প্রতিনিয়ত মানুষদের উপযুক্ত সেশনের মাধ্যমে, নতুন চিন্তামুক্ত জীবনের স্বাচ্ছন্দ্য উপভগ করতে অনুপ্রাণিত করছেন।

বিশেষজ্ঞের সাথে সেশন বুক করুন

Spark.Live-এর বিশেষজ্ঞরা ওয়ান-অন-ওয়ান সেশন দিয়ে থাকেন, যার মাধ্যমে আপনি নিজের গোপনীয়তা কে সঠিক ভাবে বজায় রেখেই যে কোনও প্রান্ত থেকে কনসাল্টেশন নিতে পারেন। আজই আপনারা ভাষায় কথা বলে এমন বিশেষজ্ঞদের সাথে সেশন বুক করুন, এবং একজন পেশাদার অভিজ্ঞ মনোবিদের সাহায্যে নিজের মনে লুকিয়ে সমস্যাগুলির সমাধান করুন।

বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিন ভিডিও, অডিও অথবা চ্যাটের মাধ্যমে

Spark.Live অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করুন নিজের মুঠোফোনে, নিজের ব্যক্তিগত ফোন নাম্বার, ব্যাঙ্ক একাউন্ট নাম্বারকে গোপন রেখেই আপনি বিশেষজ্ঞদের সেশন বুক করতে পারবেন। Spark.Live অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমেই আপনি অডিও, ভিডিও কল এবং চ্যাট করতে পারবেন আপনার নির্দিষ্ট বিশেষজ্ঞকে এমনকি প্রয়োজনীয় ফাইল, ডকুমেন্ট শেয়ার করতে পারবেন।


Spark.Live banner

সচরাচর জিজ্ঞাস্য (FAQs)

থেরাপি বা কাউন্সিলিং কি?

থেরাপি কথাটির আক্ষরিক মানে হল- পরিষেবা প্রদান। মানসিক স্বাস্থ্যের সম্বন্ধীয় বহু থেরাপি রয়েছে যেগুলির মধ্যে নাম করা যায়- কগনিটিভ বিহেভেরিয়াল থেরাপি, কাউন্সিলিং, পরিবারের সমস্যা জনিত থেরাপি, শিশুকালীন থেরাপি, কিশোরকালীন থেরাপি, সম্পর্কজয়ন্ত সমস্যা সমাধানের থেরাপি এবং সাইকোথেরাপি।

কিভাবে বুঝবো আমার থেরাপি প্রয়োজন?

থেরাপি আপনাকে সাহায্য করবে আপনার চিন্তা ভাবনা গুলিকে বুঝতে, আপনার পরিবর্তিত ব্যবহারকে উপলদ্ধি করতে। সুতরাং, আপনার যদি মনে হয় আপনার সমস্যার জন্য নির্দিষ্ট কোনো থেরাপির প্রয়োজন নেই, তাহলেও, এটি আপনাকে সাহায্য করবে আপনার সমস্যাগুলি নিয়ে একটি ঠিকঠাক ধারণা আনতে। এটি আপনাকে সাহায্য করবে, সমস্যা নিয়ে খোলাখুলি কথা বলতে, নিজেকে চিনতে এবং নিজেকে আরও উন্নত করে তুলতে।

কিভাবে থেরাপি সাহায্য করবে?

থেরাপি আপনাকে সাহায্য করবে নিম্নোক্ত সমস্যাগুলির থেকে নিরাময় পেতে –

অবসাদ (মন খারাপ, কোনো কিছুতে মন না বসা, আত্মহননের চেষ্টা বা চিন্তা)
উদ্বেগ (প্যানিক আটক, ভয় পাওয়া, নিজেকে সামাজিক ভাবে দূরে সরিয়ে রাখা)
কর্মক্ষেত্রে সমস্যা (চিন্তা, কর্ম জীবন ও ব্যক্তিগত জীবনে ভারসাম্য না রাখতে পারা)
আত্মবিশ্বাসের অভাব
কোনো কিছু নিয়ে বেশি চিন্তিত হয়ে পড়া
কোনো কিছু বিশেষ জিনিস বা অবস্থা নিয়ে ভয়, ফোবিয়া
হারিয়ে ফেলার আশংকা
খাদ্যাভ্যাসের সমস্যা (নিজের শারীরিক আকৃতি, খাদ্য চয়ন নিয়ে সমস্যা)
কোনো কিছুতে আসক্তি, নেশাগ্রস্থতা
বাজে ব্যবহারের শিকার হওয়া (মারধর, গালিগালাজ, অত্যাচার – মিখিক এবং শারীরিক)
মানসিক আঘাত (ধর্ষণ, অতীতে ঘটে যাওয়া কোনো বাজে ঘটনা, দুর্ঘটনা)
সম্পকগত জটিলতা (সম্পর্ক ভেঙে যাওয়া, ডিভোর্স, বিবাহ বহির্ভুত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়া, একাকিত্ব, হিংসা, বিবাহ জীবনে প্রবেশের আগে ভয় পাওয়া, ঝামেলা- ঝঞ্জাট)
যৌন সম্পর্ক জনিত সমস্যা (যৌন সম্পর্কে আসক্ত হয়ে ওঠা, যৌন সম্পর্কে অক্ষমতা, গর্ভধারণের সমস্যা)
পোস্টপার্টাম অবসাদ বা বাচ্চা জন্মানোর পরের অবসাদ
এডিএইচডি

করা থেরাপি নিতে পারবে?

যে কোনো বয়সের মানুষই থেরাপি নিতে পারবেন। যে যেই ধরণের সমস্যায় ভুগছেন, সে সেই সমস্যার ভিত্তিতে থেরাপি নিতে পারবেন।

আমার কি নিজের সমস্যা নিজেরই সমাধান করা উচিৎ?

একজন থেরাপিস্ট আপনার সমস্যার নিবারণ করবেন না – আপনি নিজেই নিজের সমস্যার সমাধান করবেন। একজন থেরাপিস্টের মূল উদ্দেশ্য হল- আপনাকে আত্ম-নির্ভর করে তোলা, আপনাকে পারমর্শ দেওয়া, সমর্থন করা, এবং আপনি যাতে সমস্যাগুলির সাথে লড়তে পারেন, সেই মতো আত্মবিশ্বাসী করে তোলা।

আমি নিজের বন্ধুদের সাথে কথা বলে বিনা পয়সায় সমস্যার সমাধান করে ফেলি, কেন আমি অন্য কাউকে এই সমস্যা সমাধানের জন্য পেইমেন্ট করতে যাবো?

আসলে আমাদের পরিবারের সদস্যরা, প্রিয়জনেরা, বন্ধুদের – সকলেরই একটি গন্ডি বা সীমাবদ্ধতা রয়েছে আপনাকে বোঝানোর এবং আপনার সমস্যাগুলিকে ঠিক ভাবে বুঝতে, কারণ তারা প্রশিক্ষিত নন। একজন থেরাপিস্ট সঠিক মাত্রায় প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত হন, তাই তিনি আপনাকে সঠিক গাইডেন্স দিতে সক্ষম। ঠিক কি ভাবে আপনার সমস্যাকে গোড়া থেকে উৎখাত করা সম্ভব সেটি একমাত্র একজন থেরাপিস্টই আপনাকে বলতে পারবেন।

কিভাবে আমি আমার প্রথম সেশনের জন্য প্রস্তুত হবে?

প্রথম থেরাপিটি হল আপনি এবং আপনার থেরাপিস্টের একে অপরকে চেনার জন্য। এই সেশনে থেরাপিস্ট বোঝার চেষ্টা করবেন, সেশনটি থেকে আপনি কি পেতে চান? প্রথম সেশনটি আপনার সমস্যাটি জানার আর বোঝার ক্ষেত্রে নির্ধারণ হবে।

কতবার আমার সেশনের প্রয়োজন পড়বে?

বেশিরভাগ থেরাপিস্টরাই প্রতি সপ্তাহে তাদের সেশন দিয়ে থাকেন। আপনার মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতি অনুসারে তারা আপনাকে সেশনের ব্যবধান জানাবেন। ঠিক কতদিন পর পর আপনার সেশনের প্রয়োজন, তা জানাবেন তারা। একইভাবে, আপনি যদি জটিলতর সমস্যার মধ্যে দিয়ে যান, তাহলে আপনার থেরাপিস্ট আপনাকে একই সপ্তাহে বহুবার সেশন দিতে পারেন।

আমি কি করে বুঝবো থেরাপিটি কাজ করছে?

যদি থেরাপি শুরু করার আগে আপনার মাথায় থেরাপি সংক্রান্ত কোনো নির্দিষ্ট উদ্দেশ্য থেকে থাকে, তাহলে ষ্টি ভীষণ সাহায্য করবে আপনাকে বুঝতে, যে থেরাপিটি আপনাকে কতটা সাহায্য করল। মাথায় রাখবেন, থেরাপিটি চলাকালীন কিছু বিষয় আপনার মাথায় আসতে পারে, যেগুলি নিয়ে আপনি কোনোদিন কিছু চিন্তায় করেননি, তো সেই অবস্থায় আপনার লক্ষ্য পরিবর্তনও হতে পারে। আবার আপনার মানসিক উন্নতির সাথে সাথেও আপনার লক্ষ্য পরিবর্তন হতে পারে। যদি আপনি কোনো লক্ষ্য সেট না করেই, থেরাপি নেওয়া শুরু করেছেন, তাহলে সেশনটি আপনার মানসিক উন্নতি ঘটাচ্ছে না কি নয়, সেটি বুঝতে পারবেন আপনার ব্যবহারের মধ্যে পরিবর্তন লক্ষ্য করলে। আরেকটি বোঝার পথ হল- আপনি আপনার সমস্যা নিয়ে মনে কোনো দ্বিধা ছাড়াই স্পষ্ট করে বলতে পারছেন, নিজের কোনো কষ্টকর মুহূর্তের কথা যেটি আপনার ভাবতেও ভয় লাগতো, তা নিয়ে আলোচনা করতে পারছেন, তাহলে বুঝবেন থেরাপিটি কাজ করছে।

কতদিন পর্যন্ত আমার থেরাপির প্রয়োজন হবে? আমার কি সারাজীবন ধরে এই থেরাপিটি নিয়ে যেতে হবে?

সেটি এক একজনের ওপর নির্ভর করে। যেমন- সিবিটি- একটি স্বল্প পরিসরের সমাধান- এটি খুব কঠোর কিছু পদ্ধতির মাধ্যমে সম্পন্ন হয়, ছয় থেকে ২০ টি সেশনের মধ্যেই শেষ হয়ে যায়। সাইকোডায়নামিক এবং সাইকোথেরাপি বহুদিন পর্যন্ত চলে।

থেরাপিটি এগোনোর সাথে সাথেই আপনি লক্ষ্য করতে পারবেন নতুন বিষয়, নতুন সমস্যা উঠে আসছে, যেগুলি আপনার মধ্যে সুপ্ত ছিল। এই গুলি আপনার থেরাপির মেয়াদ বাড়িয়ে তুলতে পারে। আবার, এইরকমও হতে পারে, আপনি নিজের সমস্যাটি থেকে বেরিয়ে আসতে পারবেন খুব শীঘ্রই, যেটা আপনি কল্পনা করেন নি।

Spark.Live -এর কাউন্সিলররা কি লাইসেন্সড প্রাপ্ত?

Spark.Live -এর প্রত্যেক থেরাপিস্ট/ কাউন্সিলররা আমাদের টিম দ্বারা পরীক্ষিত – তাদের সবধরণের যোগ্যতা, ডকুমেন্টস আমরা যাচাই করে তবেই তাকে অনলাইন সেশনের জন্য নির্বাচন করা হয়।

অন্য যে কোনও পেশার মতোই, আপনি থেরাপিস্ট / পরামর্শদাতাদের নির্দিষ্ট কিছু ক্ষেত্র এবং থেরাপির নির্দিষ্ট ফর্মগুলিতে বিশেষজ্ঞ হিসেবে পাবেন। দয়া করে তালিকা এবং প্রোগ্রামের ডেস্ক্রিপশনের মাধ্যমে ব্রাউজ করুন এবং আপনার পক্ষে সবচেয়ে উপযুক্ত একটি থেরাপিস্ট / পরামর্শদাতা নির্বাচন করুন।

কত খরচ হবে?

প্রতিটি সেশনের একটি নির্দিষ্ট চার্জ থাকে, যা সেশন পৃষ্ঠায় উল্লেখ করা হয়। আমাদের থেরাপিস্টরা 200 থেকে শুরু করে 3000 টাকার মধ্যে চার্জ নিচ্ছেন।পে স্কেল চিকিৎসক / কাউন্সিলর তাদের কর্মজীবনে কত বছরের অভিজ্ঞতা, দক্ষতা এবং জ্ঞানের উপর ভিত্তি করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

অনলাইন কাউন্সিলিং কীভাবে কাজ করে?

Spark.Live অ্যাপ্লিকেশন বা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে – একটি বোতামে ক্লিক করেই আপনি এখন সারা দেশের অভিজ্ঞ থেরাপিস্টদের সাথে কথা বলতে পারেন। সামনে সামনি মিটিংয়ের তুলনায় ইন্টারনেট ব্যবহারের অনেকগুলি সুবিধা রয়েছে।

এটি সুবিধাজনক। অনলাইন থেরাপির অর্থ আপনার কর্মক্ষেত্রের বেশি নষ্ট না করা, বা ট্র্যাফিকের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা বা আপনার থেরাপিস্টের ক্লিনিকে ট্রান্সপোর্ট পাওয়া নিয়ে চিন্তা করার থেকে রেহাই। যদি কেউ সত্যিই অসুস্থ বোধ করেন তবে তার পক্ষে কোনও থেরাপিস্টের কাছে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বেরোনো খুবই কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। এছাড়াও, কেউ যদি অনলাইনে কন্সালটেশন করে তবে সহজেই অন্য কোনও শহরে থেকে / শহরের পরামর্শদাতার সাথে পরামর্শ করতে পারেন। আপনি অ্যাপটি ডাউনলোড করতে বা ওয়েবসাইটে লগ ইন করতে পারেন এবং আপনি আপনার সুবিধেজনক জায়গায় থেকেই সেশনটি করতে পারেন।

সাইকোথেরাপিস্টের সাথে পরামর্শ করতে চাইলে কখনও কখনও সম্পূর্ণ গোপনীয়তার প্রয়োজন হয়। অনলাইন থেরাপি ভিডিও / অডিও কল বা টেক্সট মেসেজের মাধ্যমে নিখুঁত গোপনীয়তায় করা যেতে পারে। কখনও কখনও এটি ব্যক্তিগতভাবে দেখা করার চেয়ে অনেক বেশি স্বাচ্ছন্দ্যযুক্ত।দামগুলিও যুক্তিসঙ্গত কারণ প্রযুক্তি এটির অনুমতি দেয়।
অ্যাপ্লিকেশন ইন্টারফেস সম্পূর্ণ গোপনীয়তা এবং সুরক্ষা প্রদান করে।
আপনি আশ্বস্ত হতে পারেন যে আপনি অ্যাপের মাধ্যমে যা কিছু আলোচনা করবেন তা আপনার এবং আপনার পরামর্শদাতার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে। এবং কন্সালটেশনের শেষে ফলো-আপ পরামর্শের জন্য চ্যাট সুবিধার মাধ্যমে চিকিৎসকের কাছে পৌঁছানো সহজ।
অনলাইন পরামর্শের সাথে সামাজিক দূরত্ব অনুসরণ করা সহজ।

একজন চিকিৎসক, কাউন্সিলর, সাইকোলজিস্ট এবং একজন সাইক্রিয়াটিস্টের মধ্যে পার্থক্য কী? আমার জন্য কোনটি সঠিক হবে কীভাবে জানব?

একজন সাইকিয়াট্রিস্ট এমন একটি চিকিৎসক যিনি মানসিক অসুস্থতা প্রতিরোধ, রোগ নির্ণয় এবং মানসিক চিকিৎসা বিশেষজ্ঞ। একজন চিকিৎসক হিসাবে একজন সাইকিয়াট্রিস্ট প্রেসক্রিপশন লেখার লাইসেন্স পেয়ে থাকেন।

সাইকোলজিস্ট, কাউন্সিলর, এবং থেরাপিস্ট শব্দগুলি প্রায়শই পরস্পরের পরিবর্তে ব্যবহৃত হয়। লাইসেন্সযুক্ত মনোবিজ্ঞানীরা কাউন্সেলিং এবং সাইকোথেরাপি করার জন্য, মনস্তাত্ত্বিক টেস্টিং করতে এবং মানসিক ব্যাধিগুলির জন্য চিকিৎসা সরবরাহ করার জন্য উপযুক্ত হন।

Spark.Live ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, বাংলা এবং কন্নড় পরামর্শ দেওয়ার জন্য ভারতজুড়ে প্রশংসিত এবং লাইসেন্সপ্রাপ্ত থেরাপিস্টদের সাথে অংশীদার হয়েছেন। আমরা বিশ্বাস করি যে ক্লায়েন্ট যদি যে ভাষায় বোঝে এবং সর্বাধিকরূপে সেগুলি সনাক্ত করে, এমন একটি ভাষায় কথা বলতে পারলে তবে থেরাপি আরও কার্যকর হয়। আমরা মনোরোগ বিশেষজ্ঞদের সাথে যৌথভাবে কাজ করি নি।

কাউন্সেলিং এবং থেরাপির মধ্যে পার্থক্য কী?

কাউন্সেলিং আপনাকে আসক্তি বা স্ট্রেস ম্যানেজমেন্টের মতো কোনও নির্দিষ্ট সমস্যা সমাধানে সহায়তা করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। সমস্যা সমাধানে বা সমস্যাগুলির ক্ষেত্রগুলি মোকাবেলা করতে বা এড়ানোর জন্য নির্দিষ্ট কৌশল শেখার দিকে দৃষ্টি নিবদ্ধ করা। এটি সাধারণত থেরাপির চেয়ে স্বল্প-মেয়াদীও হয়।

সাইকোথেরাপি কাউন্সেলিংয়ের চেয়ে দীর্ঘমেয়াদী এবং সুদীর্ঘ বিভিন্ন বিষয়ের উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করে। অন্তর্নিহিত নীতিটি হ’ল আপনার চিন্তাভাবনা এবং আচরণের ধরণগুলি আপনার বিশ্বের সাথে যোগাযোগ করার পদ্ধতিকে প্রভাবিত করতে পারে।

আমি কীভাবে একজন অপরিচিত ব্যক্তিকে বিশ্বাস করতে পারি?

একজন থেরাপিস্ট আপনার কাছে অপরিচিত হতে পারে তবে তারা তাদের পেশায় ডাক্তার-রোগীর গোপনীয়তার সম্পূর্ণভাবে বজায় রাখে।এটি নিশ্চিত করে যে আপনি আপনার থেরাপিস্টের সাথে যে কোনও আলোচনা করবেন তা আপনার প্রকাশের অনুমতি ব্যতীত কারও সাথে ভাগ করা হবে না।

গোপনীয়তা কীভাবে কাজ করে?

গোপনীয়তার অর্থ আপনার সমস্ত তথ্য সুরক্ষিত এবং কখনই কারও সাথে ভাগ করা যায় না – আপনি থেরাপিতে যা কিছু বলুন না কেন তা কেবলমাত্র থেরাপিতে থাকবে। ব্যতিক্রম কেবলমাত্র যদি থেরাপিস্ট বিশ্বাস করেন যে আপনি নিজের বা অন্যের কাছে আসন্ন বিপদে আছেন।

শুধুমাত্র কথা বলা কীভাবে আমার সমস্যার সমাধান করতে পারে?

কথা বলার মাধ্যমে যে কেউ তাদের জীবন এবং তাদের ব্যক্তিত্ব সম্পর্কে অনেক কিছু প্রকাশ করতে পারে। একজন প্রশিক্ষিত পেশাদার আপনার চিন্তা এবং আচরণের নিদর্শনগুলি খুঁজে বের করতে পারে যা আপনার মন খারাপের কারণগুলি বুজতে সাহায্য করে। তারা আপনাকে সেই নিদর্শনগুলি নির্দেশ করতে এবং এই জ্ঞানের সাথে সজ্জিত করতে সহায়তা করতে পারে, আপনি সচেতনভাবে সেগুলি পরিবর্তন করার চেষ্টা করতে পারেন।

আমি এবং আমার সঙ্গী কীভাবে একসাথে সেশনে অংশ নিতে পারি?

অনলাইন কাউন্সেলিংয়ের প্রকৃতির কারণে আপনি এবং আপনার সঙ্গী একসাথে সমস্ত সেশনে অংশ নিতে পারবেন। যদি কোনও কারণে কোনও অংশীদার কোনো একটি সেশনে অংশ নিতে না পারেন তবে থেরাপিস্ট উপলব্ধ অংশীদারের নিয়েই সেশন চালিয়ে যাবেন এবং যখন আবার অপরজন সময় পাবেন সেশনটি আবার নিতে পারবেন নতুন করে।

থেরাপির সময় আমার কী করা দরকার?

থেরাপির অন্যতম মূল বিষয় হ’ল বিশ্বাস এবং যোগাযোগ। এটি অর্জনের জন্য, আপনার চিকিৎসক আপনাকে ওয়ার্কশিটগুলি সম্পূর্ণ করতে, একটি সঙ্গেএকটি ডায়েরি রাখতে বলবেন ইত্যাদি। এটি আপনাকে আপনার নিজের মনের মধ্যে আরও ভাল অন্তর্দৃষ্টি পেতে এবং আপনার চিন্তাভাবনা, ক্রিয়াকলাপ এবং আচরণগুলি আরও সমালোচনামূলকভাবে শুরু করতে সহায়তা করবে।

আমার ধারণা আমার সন্তান / ভাই / বাবা / মা / পরিবারের সদস্যের থেরাপির প্রয়োজন।

যদিও আমরা বুঝতে পেরেছি যে আপনি কোনও প্রিয়জনের জন্য উদ্বিগ্ন হতে পারেন, যদি ব্যক্তি তাদের নিজস্ব থেরাপিস্টের কাছে আসে তবে ভাল। তবে আপনি এই বিষয়টি তাদের কাছে শান্ত এবং যুক্তিযুক্ত পদ্ধতিতে বোঝাতে পারেন তবে আমরা আপনাকে বলবো তাদের নিজস্ব সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য অনুরোধ করতে।

আপনি যদি বিশ্বাস করেন যে কোনও প্রিয়জন নিজের বা অন্য কারও ক্ষতি করার ঝুঁকিতে রয়েছে,দয়া করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে কল করুন।

স্ট্রেস কি জীবনের একটি সাধারণ অংশ নয়?

চরম বা দীর্ঘমেয়াদী স্ট্রেসের ফলে পারফেকশনিজম, বিলম্ব, প্যানিক আক্রমণ, ঘুম কম হওয়া, বিশৃঙ্খল খাওয়া এবং এমনকি পিটিএসডি হতে পারে। এই কারণে, এটি প্রস্তাবিত হয় যে আপনি যদি দীর্ঘকাল ধরে চাপের মধ্যে থাকেন এবং আপনার আচরণ, ক্রিয়া, সম্পর্ক এবং মেজাজে পরিবর্তনগুলি লক্ষ্য করেন, তবে থেরাপি একটি সার্থক প্রচেষ্টা হতে পারে আপনার জন্য।

প্রত্যেকেই আমরা মাঝে মাঝে দুঃখ বোধ করি, তাইলে কী?

মন খারাপ বা বেদনাদায়ক ঘটনার প্রতিক্রিয়া হিসাবে দুঃখ এবং খারাপ মেজাজ জীবনের একটি সাধারণ অঙ্গ। তবে, যদি এই সংবেদনগুলি এবং খারাপ মেজাজ দীর্ঘ সময়ের জন্য স্থায়ী হয় বা আপনার প্রতিদিনের কাজকর্মকে প্রভাবিত করে, তবে এটির জন্য থেরাপিতে যাওয়া এবং উপযুক্ত সহায়তা অ্যাক্সেসের পক্ষে উপযুক্ত।

কে জানবে যে আমি থেরাপির জন্য সাইন আপ করেছি?

আপনার বয়স যদি 18 বছরের বেশি হয় তবে আপনার থেরাপিস্ট এবং ফিনান্স দলের (কেবল অর্থ প্রদানের জন্য) ব্যতীত আপনার থেরাপির অ্যাপয়েন্টমেন্ট সম্পর্কে কেউ জানতে পারবেন না। আপনি কেন থেরাপি বেছে নিয়েছিলেন, কোনও নির্দিষ্ট থেরাপিস্ট বা থেরাপিতে কী আলোচনা করা হয়েছে সে বিষয়ে ফিনান্স টিম গোপনীয় বজায় রাখবে।

আমার ইতিমধ্যে একটি রোগ নির্ণয় হয়েছে। আমি কি এখনও আপনাদের পরিষেবা ব্যবহার করতে পারি?

অবশ্যই। আপনার প্রথম অ্যাপয়েন্টমেন্টের সময় আপনার থেরাপিস্টের কাছে এই তথ্যটি প্রকাশ করতে আমরা আপনাকে উৎসাহিত করি কারণ এটি আপনার সেশনগুলির খুব ভালো করে সম্পন্ন হতে সহায়তা করবে।আপনি এখনও পর্যন্ত যে ধরণের থেরাপি পেয়েছেন তাও প্রকাশ করতে পারেন।

আমাকে কি ওষুধ দেওয়া হবে? আমি যদি ওষুধ খেতে না চাই তবে কী হবে?

কেবল সাইকিয়াট্রিস্টদের ওষুধ লিখে দেওয়ার অনুমতি রয়েছে। তবে, আপনার চিকিৎসক আপনাকে একটি প্রেসক্রিপশনের জন্য একজন সাইকিয়াট্রিস্ট দেখার পরামর্শ দিচ্ছেন। তারপরেও, যদি আপনি এটির সাথে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ না করেন তবে আপনার কাছে সর্বদা অপশন রয়েছে ওষুধগুলি বন্ধ করার।

আমি যদি আমার থেরাপিস্টের সাথে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ না করি তবে কী হবে?

আপনি যে কোনও সময়ে সর্বদাই একজন থেরাপিস্ট পরিবর্তন করতে পারেন।কারও উপর আস্থা রাখতে গেলে আপনার স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করা জরুরী এবং আপনার থেরাপিস্ট এটি বুঝতে পারবেন এবং সে সম্পর্কে পেশাদার হন।

একটি সেশন কত সময় স্থায়ী হয়?

সেশনগুলি 30 মিনিট থেকে 1-ঘন্টা-30-মিনিট পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে। প্রতিটি থেরাপিস্টের জন্য সেশন সময়কাল তাদের সেশন পৃষ্ঠাগুলিতে পাওয়া যায়।

আমি কীভাবে প্রদত্ত পরিষেবাদিগুলিতে বিশেষ ছাড় পেতে পারি?

হ্যাঁ, আপনি পারেন। কারণ Spark.Live পর্যায়ক্রমে বিশেষ ছাড় দেয়। আমরা বিভিন্ন সংস্থার সাথে পার্টনারশিপ শুরু করেছি – আপনি এবং আপনার কয়েকজন সহকর্মী যদি অনলাইন থেরাপিতে আগ্রহী হন তবে আপনি আমাদের কাছে পৌঁছাতে পারেন।


মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে আরও জানুন


ভারতে মানসিক সুস্থ্যতা

ভারতের স্বাস্থ্য পরিষেবায় মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কাজ খুব নতুন বলা চলে, আগে থেকে তার অস্তিত্ব থাকলেও, সম্প্রতি তা বিশেষ মাত্রায় প্রাধান্য পেয়েছে। কারণ হিসেবে বলা যেতে পারে, আগেকার দিনে বেশিরভাগ মানুষই নিজের পরিবারের সাথে একত্রিত হয়ে থাকতেন, জেক বলে একান্নবর্তী পরিবার। একই বাড়িতে বাবা, মা, ঠাকুরদা- ঠাকুমা, জ্যেঠু-কাকুরা একসাথে বাস করতেন, খাওয়া দাওয়া থেকে বাড়ির সব রকম সিদ্ধান্তও একসাথে আলোচনার মাধ্যমে নেওয়া হত। কিন্তু মানুষ কাজের সূত্রে. পড়াশোনার বা ভালোভাবে থাকার জন্যই হোক না কেন বড় বড় শহরের অত্যাধুনিক অট্টালিকায় নিজেদের ছোট্ট নিউক্লিয়ার ফ্যামিলি গড়ে তুলেছেন, আর তখন থেকেই, মানুষের জীবনে ধীরে ধীরে একাকিত্ব, অবসাদ পাকাপাকি স্থান করে নিয়েছে। বিশেষ করে, এখনকার ইয়ুথ জেনারেশনদের মধ্যে এটি বেশি মাত্রায় দেখা যায়। বহুল সংখ্যক মহিলারা এখন কর্মরত, তাই তারা কাজ ও পরিবারের দায়িত্ব সমান ভাবে সামঞ্জস্য রেখে পালন করতে শিখে গিয়েছেন, কিন্তু পুরুষরা সামাজিক পরিবর্তনের জটিলতার মধ্যে এখনও নিজেদের যুঝিয়ে উঠতে শিখছেন।

ধীরে ধীরে মানসিক স্বাস্থ্য বা মানসিক অসুস্থতা নিয়ে কথা বলা, আলোচনা করা নিয়ে মানুষ আগের মতো লজ্জা বা সংশয় বোধ করেন না। এখন আগের থেকে অনেক বেশি প্রকাশ্যে মানুষ এটি নিয়ে খোলাখুলি কথা বলতে, বুঝতে, নিজের আবেগ, উদ্বেগকে নিয়ে কথা বলতে আগ্রহী হয়েছেন। মা-বাবারা এখন আগের থেকে অনেক বেশি নিজেদের সন্তানের মানসিক পরিস্থিতি নিয়ে সজাগ হয়েছেন, এমনকি কর্পোরেট সংস্থাগুলিতেও, কর্মীদের মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতির দিকে বিশেষ খেয়াল দেওয়া হয় এখন। এমনকি খবরের সংস্থাগুলিও মানসিক স্বাস্থ্যের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনার ব্যবস্থা করে থাকে, যাতে মানুষ আরও অবগত হন বিষয়গুলি নিয়ে, অন্যদিকে অবসাদের জেরে মৃত্যু, অপমান, উদ্বেগ নিয়েও এখন তারা সরাসরি কথা বলে, খবর সম্প্রচার করে।

এই প্রগতিশীল ভারতে, এটি খুবই অনুপ্রেরণামূলক যে প্রচুর মানুষ নিজেদের খারাপ অভিজ্ঞতা, আর তার জন্য হয় অবসাদ, মন খারাপ, এছাড়াও নানান মানসিক জটিলতা নিয়ে সরাসরি কাউন্সিলারদের সাথে কথা বলতে এবং তার সমাধান খুঁজতে এগিয়ে আসছে। মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কাজ বা পেশাদারিত্ব এখন বহু মানুষের উপকারে ব্রত হয়েছে। বহু সংখ্যক দক্ষ মনোবিদরা মানুষদের ভাষা, সংস্কৃতি, তার প্রকৃতিকে মাথায় রেখে তাদের মানসিক সময়ের ওপর কাজ করছেন, যার ফলে বহু মানুষ আবার জীবনে নিজেদের ভুলে যাওয়া হাসি খুঁজে পাচ্ছেন।

থেরাপির গুরুত্ব বা থেরাপির প্রয়োজন কি? কেন কারোর থেরাপি প্রয়োজন, কখন প্রয়োজন, কোন কোন সমস্যা দেখা দিলে থেরাপি দরকার- এই সবকিছুই প্রত্যেকের মাথায় রাখা উচিত, যাতে আমরা আমাদের পরিবারের কোনো সদস্য, আমাদের বন্ধু বা নিজের সমস্যাটি অনুধাবন করে, থেরাপিস্টের কাছে সমাধানের জন্য যেতে পারি।

একক কাউন্সিলিং

বেশিরভাগ সাইকোলজিকাল কাউন্সিলিং সেশন ওয়ান-অন-ওয়ান ভাবে হয়ে থাকে, যাতে রোগী তার ব্যক্তিগত সমস্যা নিয়ে খোলাখুলি ভাবে আলোচনা করতে পারেন কাউন্সিলারের সাথে। এই ধরণের সেশন খুব সাহায্য করে- যারা নিজেদের জীবনের সমস্যাগুলির সাথে প্রতিনিয়ত কুস্তি লড়ছেন বা জীবনে ঘটে যাওয়া পরিবর্তনগুলোর সাথে আপোষ করার চেষ্টায় ক্ষতবিক্ষত হয়ে উঠছেন, অতীতের কোনো ঘটনার জেরে মর্মাহত এবং তারা সমধানের জন্য আকুল চেষ্টা করে চলেছেন – তাদের ক্ষেত্রে। এই ধরণের সেশনের মাধ্যমে তারা সম্পূর্ণরূপে মনকে শান্ত করে তুলতে সক্ষম। অনেকে বিয়ের মতো বড় সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগেও এই ধরণের সেশন নিতে পছন্দ করেন।

রোগবিশেষে মনোবিদরা তাদের মানসিক অসুস্থতার গভীরতার ওপর ভিত্তি করে তাদের বিভিন্ন ধরণের কাজ করার পরামর্শ দেন, যেমন- একটি নিয়মিত লেখার অভ্যাস করা, যেখানে প্রতিদিনের কাজের বিষয়ে লেখা, নিজের পছন্দের মানুষের সাথে সময় কাটানো, কথা বলা কোনো নির্দিষ্ট বিষয় নিয়ে ইত্যাদি। এই টাস্কগুলি, রোগীকে নিজের বিষয়ে জানতে, নিজের চিন্তা-ভাবনা নিয়ে নতুন কিছু আবিষ্কার করতে, নিজের প্রকৃতি, ব্যবহার বুঝতে এবং এর মাধ্যমে নিজেকে আত্ম-নির্ভর করে তুলতে সাহায্য করে। এইভাবেই মনোবিদদের দেওয়া থেরাপিগুলি কাজ করতে থাকে, আপনাকে সাহায্য করতে থাকে।

নির্দিষ্ট পদ্ধতির মাধ্যমেই, একজন মনোবিদ আপনার সমস্যার গভীরে পৌঁছে, সেই সমস্যাটির সমাধান করতে পারেন। এবং এটির জন্য একজন মনোবিদের যথেষ্ট অভিজ্ঞতা, দক্ষতার প্রয়োজন হয়, রোগীর চিন্তার ধরণকে বোঝার, তার সমস্যাগুলির নেপথ্যের কারগুলিকে বোঝার, তার আবেগ, ভয় সব কিছুকে সঠিক ভাবে পর্যবেক্ষণ করার। অনেকেই যারা জীবনভর নিজের সমস্যার সাথে যুদ্ধ করে গেছেন, তারা থেরাপিস্টের সাহায্যে নিজের জীবনে আবার উন্নতি করতে পারেন।

কিশোরকালীন সমস্যার সমধানের পরামর্শ

বয়ঃসন্ধিকাল প্রত্যেকটি মানুষের জীবনেই কিছু না কিছু পরিবর্তন নিয়ে আসে। একইসময়ে শরীরের পরিবর্তনের সাথে সাথে, হরমনের পরিবর্তন, তার দরুন চিন্তা ভাবনায়, বহু গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। এবং এই পরিবর্তনগুলি এতো দ্রুত হতে থাকে যে এর ফলে অনেক সমস্যার সূচনা এই বয়সেই হতে দেখা যায়, এবং এই সমস্যাগুলি অনেকে চাইলেও উপেক্ষা করতে পারে না। অনেকেই এই সময়টিতে অনেক ছোট বিষয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েন, অনেক কথাকেও অপমান রূপে নিতে থাকে, ফলে নানা রকম মানসিক জটিলতার সূচনা হয়।

বয়ঃসন্ধিকালে ঘটে যাওয়া বহু হরমোনাল পরিবর্তনের জন্য, এক একজন মানুষের ব্যক্তিগত এবং সামাজিক জীবনে নানা রকমের সমস্যা, মানসিক চাপের সৃষ্টি করে। যেগুলি, তাদের ব্যবহারেও প্রকাশ পায়। অন্যের মতামত দ্বারা চালিত হওয়া এবং নৃশংস কাজ করা এই সময়ের খুবই স্বাভাবিক বিষয়। অন্যদিকে, আপনার পরিবারের মানসিক অসুস্থতা যদি বংশপরম্পরায় থেকে থাকে, তাহলে এই বয়স থেকেই আপনার মধ্যেও সেই সমস্যা মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারে।

এই সময়ে, জীবনের পরিচিত চিত্রটি যেইভাবে পরিবর্তিত হয়, তরুণ-তরুণীরা, যারা সামান্য কিছু সমস্যারও সম্মুখীন হচ্ছেন, তাদের একজন দক্ষ সোকোলোজিস্ট বা মনোবিদের পরামর্শ নেওয়া উচিৎ। কিশোর পরামর্শদাতার, বা কিশোরকালীন সমস্যার সমাধানকারী মনোবিদরা সমস্যায় আবৃত কিশোর-কিশোরীদের তাদের সঠিক মানসিক বিকাশে সাহায্য করতে পারেন, তাদের থেরাপির মাধ্যমে। আরেকটি উল্লেখ্য বিষয় হল- এই বয়স থেকেই নিজের মধ্যে লুকানো আবেগ, যন্ত্রনা নিয়ে কথা বলার সাহস তরুণ-তরুণীদের ভবিষ্যতে নিজেকে চিনতে অনেক বেশি সাহায্য করে।

বয়ঃসন্ধিকালের কাউন্সিলিং তরুণ-তরুণীদের স্বাধীনতাকে আরও ভালো ভাবে বলা চলে সঠিক ভাবে পরিচালনা করতে সাহায্য করে। নিজেদের আবেগগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করা, এবং ভবিষ্যতের জটিল থেকে জটিলতর সমস্যার সামনে সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে সাহস যোগায়।

সম্পর্কগত সমস্যার সমাধানের থেরাপি

আমাদের সমাজে একটি আইডিয়াল রোমান্টিক সম্পর্ক এবং বৈবাহিক সম্পর্কের ধারণা নিয়ে বহু অন্ধকারাছন্ন সংজ্ঞা রয়েছে, যেগুলি মদের জীবনকে অনেক সময়েই দুর্বিসহ করে তোলে। ‘সোলমেট’ বা ‘আদর্শ ভালোবাসার মানুষ ‘ – এটির ওপর প্রচলিত বহু ভ্রান্ত ধারণার ওপর ভিত্তি করে মানুষ একটি অবাস্তব সম্পর্কে নিজেদের জড়িয়ে ফেলেন, তার সাথেই বহু আশা-আকাঙ্খাও জন্ম নিতে থাকে। পরোক্ষনে, এটিও খুব স্বাভাবিক যে সম্পর্কটি শেষ হয়, খুব যন্ত্রণাদায়ক হয়ে। এবং বাজে ভাবে শেষ হয় সম্পর্কগুলি, মানুষকে অতৃপ্তি, অসফলতার যন্ত্রনা দিতে থাকে প্রতিনিয়ত।

কাপেলস থেরাপি এই সকল অসফলতার অনুভব, অভিজ্ঞতার সাথে এবং তার জন্য তৈরী হয় অবসাদের সাথে লড়তে সাহায্য করে। এই ধরণের থেরাপিতে কথোপকথনের গুরুত্বটি বোঝা ভীষণ জরুরী। কারণ এই থেরাপির মাধ্যমে আপনাকে অনুপ্রেরিত করা হয় আপনার পার্টনারের কথা শুনতে ও বুঝতে, যার মাধ্যমে আপনাদের দুজনের প্রতি দুজনের ব্যবহারেও যথেষ্ট পরিবর্তন আসতে পারে।

যখন, একে অপরের সাথে দীর্ঘদিন কথা না বলা, আপনার সম্পর্কে একটি জটিল সমস্যার সূচনা করতে শুরু করে, তখন একজন মনোবিশেষজ্ঞের দ্বারস্থ হওয়া, খুবই স্বাভাবিক বিষয়। এতে বোঝা যায়- আপনি নিজের সম্পর্ককে বাঁচাতে, আগের মতো ভালোবাসায় পরিপূর্ণ করে তুলতে আগ্রহী । একজন দক্ষ মনোবিদ এইসময় আপনাদের বন্ধ হয়ে যাওয়া কথোপকথনের কারণ বিশ্লেষণ করে, আপনাদের দুজনের মধ্যে হওয়া দূরত্বকে কমায়। অনেকসময় এই রকম হয় যে থেরাপির পরও দম্পতি নিজেদের সম্পর্ক ভেঙেই ফেলতে চান। এই ক্ষেত্রে, মাথায় রাখবেন, আপনার সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পিছনে থেরাপির কোনো বাজে গুন্ নেই, বরং থেরাপির মাধ্যমেই, আপনার পার্টনারের সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার অক্ষমতা প্রকাশ পেয়েছে। তবে যে সম্পর্ক দুজনেই টিকিয়ে রাখতে বিদ্যমান, থেরাপির সাহায্যে সেই সম্পর্কে আবার ভালোবাসা ফিরে আসতেও দেখা গেছে।